ঢাকা, সোমবার, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ২৩ রবিউস সানি ১৪৪৩

ফুটবল

ফিরমিনোর হ্যাটট্রিকে লিভারপুলের বিশাল জয়

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২৪ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৬, ২০২১
ফিরমিনোর হ্যাটট্রিকে লিভারপুলের বিশাল জয়

বেচারা ক্লদিও রেনিয়েরি। লেস্টার সিটিকে প্রথমবারের মতো প্রিমিয়ার লিগের শিরোপা জেতানো এই ইতালিয়ান কোচ সদ্যই যোগ দিয়েছেন ওয়াটফোর্ডে।

কিন্তু কোচ হিসেবে ক্লাবটির দায়িত্ব নেওয়ার পর প্রথম ম্যাচেই লিভারপুলের হাতে নিজ দলকে বিধ্বস্ত হতে দেখলেন তিনি।  

শনিবার ওয়াটফোর্ডকে তাদের ঘরের মাঠে ৫-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে ইয়ুর্গেন ক্লপের শিষ্যরা। অলরেডদের এই গোল উৎসবে হ্যাটট্রিকের দেখা পেয়েছেন ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার রবার্তো ফিরমিনো। বাকি দুই গোল করেছেন দুই ফরোয়ার্ড মোহামেদ সালাহ ও সাদিও মানে।  

বড় জয়ের পাশাপাশি প্রথম ইংলিশ ক্লাব হিসেবে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে টানা সাত অ্যাওয়ে ম্যাচে ৩-এর অধিক গোল করার কীর্তিও গড়েছে লিভারপুল।  

ম্যাচে বল দখল থেকে আক্রমণ সবদিক থেকেই স্পষ্ট আধিপত্য দেখিয়েছে লিভারপুল। ৭৭ শতাংশ সময় বল দখলে রাখা দলটি ১৯বার শট নিয়েছে, যার ৮টি ছিল গোলমুখে। বিপরীতে স্বাগতিকরা শট নিয়েছে ৬টি, যার দুইটি ছিল গোলমুখে।

খেলার মাত্র নবম মিনিটেই সাদিও মানের গোলে এগিয়ে যায় লিভারপুল। মাঝমাঠ থেকে বল পাওয়ার পর দারুণ এক ক্রসে তা মানের দিকে বাড়িয়ে দেন সালাহ। বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে দারুণ দক্ষতায় স্বাগতিক দলের গোলরক্ষক ফস্টারকে পরাস্ত করেন সেনেগালিজ ফরোয়ার্ড। মানেকে দিয়ে গোল করানোর পর সালাহ রীতিমত অদম্য হয়ে ওঠেন। একের পর এক আক্রমণে নেতৃত্ব দেন তিনি। যদিও বেশিরভাগ আক্রমণ লক্ষ্যের দেখা পায়নি।

গোল হজমের পর ঘুরে দাঁড়ানোর জন্য আক্রমণে জোর দেয় ওয়াটফোর্ড। কিন্তু লিভারপুলের সঙ্গে পেরে ওঠেনি তারা। বরং ৩৭তম মিনিটে দ্বিতীয় গোলের দেখা পায় লিভারপুল। মানের বাড়িয়ে দেওয়া বল ধরে বাঁদিক থেকে আক্রমণে উঠে আসেন জেমস মিলনার এবং ক্রস দেন ফিরমিনর দিকে। ওদিকে এগিয়ে আসা সালাহকে ঠেকাতে গিয়ে নিজেদের জাল অরক্ষিত করে ফেলে স্বাগতিকরা। সুযোগটা দারুণভাবে কাজে লাগিয়ে বল জালে পাঠান ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার।

প্রথমার্ধে ২-০ ব্যবধান নিয়ে এগিয়ে থাকা লিভারপুল পরের অর্ধে যোগ করে আরও ৩ গোল। এর মধ্যে ৫২তম মিনিটে দ্রুত কাউন্টার অ্যাটাকে যায় অলরেডরা। রবার্টসনের ক্রস ধরা থেকে সালাহকে আটকাতে যান ক্যাচকার্ট। এই কাজ করতে গিয়ে অল্পের জন্য নিজেদের জালে বল জড়ানো থেকে বেঁচে যান স্বাগতিক দলের ডিফেন্ডার, বল আটকান ফস্টার। কিন্তু তাতেও কাজ হয়নি। বল ঘুরে যায় ফিরমিনোর দিকে। তিনি এমন সুযোগ হেলায় নষ্ট করেননি।

দুই মিনিট পর জালের দেখা পায় সফরকারীরা। এবার আর ফিরমিনো নন, গোল করেন ম্যাচে দুর্দান্ত খেলা সালাহ। তবে গোলের উৎস ছিলেন ফিরমিনোই। প্রতিপক্ষের বক্সে সালাহর দিকে বল ঠেলে দেন ফিরমিনো। বল পেয়েই তিন ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে দূরের কোণা দিয়ে লক্ষ্যভেদ করেন মিশরীয় ফরোয়ার্ড।  
৭১তম মিনিটে অল্পের জন্য নিজের দ্বিতীয় গোলের দেখা পাননি মানে। ফিরমিনোর বাড়িয়ে বলে নেওয়ার তার শট অল্পের জন্য পোস্টের বাইরে দিয়ে বেরিয়ে যায়। ৮৪তম মিনিটে গোলের দেখা পেয়েছিল ওয়াটফোর্ড। কিন্তু অফসাইডের কারণে বাতিল হয়ে হওয়ায় হতাশায় পুড়তে হয় তাদের।  

যোগ করা সময়ে হ্যাটট্রিকের দেখা পান ফিরমিনো। বক্সে ঢুকে দূরের পোস্টের দিকে বল ঠেলে দেন উইলিয়ামস। আর ছয় গজ বক্সে বল পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে তা জালে জড়িয়ে নিজের হ্যাটট্রিক ও দলের বিশাল জয় নিশ্চিত করেন ফিরমিনো।

এখন পর্যন্ত চলতি মৌসুমে কোনো ম্যাচ না হারা লিভারপুল ৮ ম্যাচে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে আছে শীর্ষে। তবে নিজেদের পরবর্তী ম্যাচে যদি দুইয়ে থাকা চেলসি জিতে যায়, তাহলে অবস্থানের হেরফের হবে। কারণ এক ম্যাচ কম খেলা ব্লুজদের সংগ্রহ ১৬ পয়েন্ট।  

বাংলাদেশ সময়: ২০২৩ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৬, ২০২১
এমএইচএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa