ঢাকা, শনিবার, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ২১ রবিউস সানি ১৪৪৩

পরিবেশ ও জীববৈচিত্র্য

লাউয়াছড়ায় সড়কে পড়ছে গাছ, বাড়ছে ঝুঁকি 

বিশ্বজিৎ ভট্টাচার্য বাপন, ডিভিশনাল সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮২৩ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২১
লাউয়াছড়ায় সড়কে পড়ছে গাছ, বাড়ছে ঝুঁকি  সড়ক থেকে গাছ সরানো হচ্ছে। ছবি: বাংলানিউজ

মৌলভীবাজার: মৌলভীবাজারের লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যান। বাংলাদেশের একটি সংরক্ষিত বন।

শ্রীমঙ্গল এবং কমলগঞ্জ উপজেলার পাকা সংযোগ সড়কটি এ বনের ভেতর দিয়ে চলে গেছে। মাঝেমধ্যে ঝড়-বৃষ্টি কবলে এখানে ভেঙে পড়ে গাছ। ভাঙা গাছ পাকা সড়কের ওপর পড়লে সৃষ্টি হয় যানবাহন চলাচলে বিরতি।  

সংশ্লিষ্টরা বহুদিন আগে থেকেই দাবি জানিয়ে আসছেন, এ সড়কটি লাউয়াছড়ার ভেতর দিয়ে সচল না রেখে অন্যদিক দিয়ে চালু করা হয়। এর ফলে মৃত্যুর হাত থেকে প্রাণে বাঁচবে লাউয়াছড়ার মূল্যবান বন্যপ্রাণী।

বনবিভাগ সূত্র জানায়, সম্প্রতি শ্রীমঙ্গর-ভানুগাছ সড়কে গাছ ও বৈদ্যুতিক খুঁটি পড়ে প্রায় আড়াই ঘণ্টা ধরে সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ ছিল। লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানে এ ঘটনা ঘটে। এতে সড়কের দুই পাশে অনেক যানবাহন আটকা পড়ে। সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।  

লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানের বনপ্রহরী লোকমান মিয়া বাংলানিউজকে বলেন, শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা সাতটার দিকে শ্রীমঙ্গল শহরের দিক থেকে আসা জান্নাতুল কার্গো সার্ভিস নামে একটি কাভার্ডভ্যান একটি চাপালিশ গাছের সঙ্গে ধাক্কা খায়। এতে গাছটি ভেঙে আরেকটি সেগুনগাছের ওপর গিয়ে পড়ে। সেটি রাস্তায় এসে পড়ে। এ সময় দুই গাছের ধাক্কায় বৈদ্যুতিক তারসহ খুঁটি রাস্তার ওপর পড়ে। কাভার্ডভ্যানটি কমলগঞ্জের মাধবপুর চা-বাগান থেকে চা-পাতা আনতে যাচ্ছিল।  কমলগঞ্জের সংবাদকর্মী মো. আহাদ মিয়া বলেন, লাউয়াছড়ার বনের ভেতরের পাকা রাস্তা পারাপারের সময় প্রায়ই বিভিন্ন প্রজাতির প্রাণীরা গাড়ির চাকায় পিষ্ট হচ্ছে। ফলে এখানকার মূল্যবান জীববৈচিত্র্য ধ্বংস হয়ে পড়ছে। এখানকার পাকা সড়কটি যদি নূরজাহান চা-বাগানের পার্শ্ববর্তী সড়ক দিয়ে কমলগঞ্জ নিয়ে যাওয়া হয় তবে, লাউয়াছড়ার জীববৈচিত্র্য রক্ষা পাবে।  

তিনি আরও বলেন, এক বিদেশি পর্যটক লাউয়াছড়ার পাকা রাস্তায় বন্যপ্রাণী মারা যাওয়া ঘটনার মর্মাহত হয়ে বলেছিলেন মূল পাকা সড়কের নিচ দিয়ে যদি সেতুর মতো কাঠামো তৈরি করা হয় তবে, বন্যপ্রাণীরা ওই সেতুর নিচ দিয়ে চলাচল করবে। কারণ, লাউয়াছড়ার বন্যপ্রাণীরা সেতুর নিচ দিয়ে যাতায়াত করার প্রমাণ তিনি পেয়েছেন।

ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, রাস্তার একপাশে পড়ে থাকা গাছ, বৈদ্যুতিক খুঁটি ও তার অপসারণ ও মেরামত কাজ করছেন পল্লিবিদ্যুৎ ও বনবিভাগের কর্মীরা । বৈদ্যুতিক তারের কারণে বড় গাছের পাশাপাশি রাস্তার পাশের লতা জাতীয় গাছ রাস্তার ওপর পড়ে রয়েছে।  

জানা যায়, লাউয়াছড়া সড়কে বিভিন্ন উঁচু প্রজাতির গাছ পড়ে গিয়ে কিছুক্ষণের জন্য যান চলাচলে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি হয়।  

শনিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) মৌলভীবাজারের বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের সহকারী বন সংরক্ষক (এসিএফ) শ্যামল কুমার মিত্র বাংলানিউজকে বলেন, শুক্রবার সন্ধ্যায় সড়কে গাছ পড়ে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়।  ফায়ার সার্ভিস ও বন বিভাগ যৌথভাবে কাজ শুরু করে। পরে রাত পৌনে ১০টার দিকে রাস্তার একপাশ দিয়ে যান চলাচল স্বাভাবিক করা হয়।

লাউয়াছড়ার ভেতর দিয়ে পাকা রাস্তাটি অন্যদিকে সরিয়ে নেওয়ার ব্যাপারে ‘বিষয়টি এখন উচ্চপর্যায়ে প্রক্রিয়াধীন বলে যোগ করেন শ্যামল কুমার মিত্র।

বাংলাদেশ সময়: ১৮২৩ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২১
বিবিবি/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa