ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ৩০ মে ২০২৪, ২১ জিলকদ ১৪৪৫

পরিবেশ ও জীববৈচিত্র্য

নামে বিষাক্ত, তবে বিষধর নয় তারা

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৪১৯ ঘণ্টা, আগস্ট ২৭, ২০১৮
নামে বিষাক্ত, তবে বিষধর নয় তারা নির্বিষ সাপ। ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা: গোটা বিশ্বের মানুষের রয়েছে অজানা সাপভীতি। কিন্তু সাপ সব সময় ভয়ের প্রাণী নয়। এরা বিশ্বের উপকারী সরীসৃপেরও অন্যতম। কিছু সাপ আছে নামেই মনে হয় বিষাক্ত। অথচ আদতে তারা বিষধর নয়।

এমন আট সাপ নিয়ে আজকের আয়োজন। অজগরঅজগর (pythons): বাংলাদেশে অজগরের তিনটি প্রজাতি আছে।

এদের মধ্যে গোলবাহার বা জালি অজগর বা রেটিকুলেটেড পাইথন সবচেয়ে বড়। এই সাপ ৩২ ফুট পর্জন্ত লম্বা হওয়ার রেকর্ড রয়েছে। তবে এরা অন্য আজগরের মতো এতো মোটা হয় না। কালনাগিনীকালনাগিনী (Ornate Flying Snake) : নামে কালনাগিনী হলেও মূলত এই সাপে বিষ থাকে না। সিলেট, পার্বত্য চট্টগ্রাম ও সুন্দরবনে এদের দেখা যায়। অধিকাংশ মানুষ কালনাগিনীকে ভয়ংকর বিষধর সাপ মনে করে মেরে ফেলে। দুধরাজদুধরাজ (Common trinket snake): নামে দুধরাজ হলেও এদের প্রধান খাদ্য ইঁদুর, টিকটিকি। উত্তরবঙ্গে এদের বেশি দেখা যায়। গোলাঘর বা যেসব স্থানে ইঁদুর বেশি ওইসব জায়গায় এদের দেখতে পাওয়া যায়।  ঢোঁড়া সাপঢোঁড়া সাপ (Striped Keelback): হলদে বাদামি রঙের এ সাপ দেশের সব জায়গায়ই পাওয়া যায়। মেটে সাপমেটে সাপ (Olive keelback water snake): পিঠ জলপাই সবুজ ও পেট হলুদাভ এ সাপ বাংলাদেশে সবচেয়ে বেশি পাওয়া যায়। নদী-নালা, খাল-বিলে সচরাচর দেখা যায়। ডাড়াশডাড়াশ (Indian rat snake): এরা কৃষকের বন্ধু সাপ। ক্ষেত-খামারের ইঁদুর খেয়ে এরা নষ্টের হাত থেকে ফসল বাঁচায়। লাউডগা সাপলাউডগা সাপ (Common Whip Snake): সরু দেহ, মাথা সুচালো এই সাপ দেশের সব জায়গায়তেই পাওয়া যায়। দেখত লাউ গাছের ডগার মতো।

বাংলাদেশ সময়: ১০১৭ ঘণ্টা, আগস্ট ২৭, ২০১৮
এএ

আরও পড়ুন >
** সত্যিকারের বিষধর সাপ
** সিনেমার ‘কালনাগিনী’ আসলে র্নিবিষ সাপ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।