ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ০৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

নির্বাচন ও ইসি

‘হালনাগাদে বাদ পড়লে আবেদন করে ভোটার হওয়া যাবে’

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১০৪৭ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২০, ২০২২
‘হালনাগাদে বাদ পড়লে আবেদন করে ভোটার হওয়া যাবে’

সিলেট: প্রবাসী অধ্যুষিত সিলেটকে গুরুত্ব দিয়ে দ্রুততার সঙ্গে জাতীয় পরিচয়পত্রের (এনআইডি) সংশোধনী কাজ চলছে। সেসঙ্গে ভোটার তালিকা হালনাগাদের কাজও শেষ পর্যায়ে রয়েছে বলে জানিয়েছেন সিলেটের আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ফয়সল কাদের।

তিনি বলেন, সেবাদান আরও সহজীকরণে হটলাইন নাম্বার চালু করা হয়েছে। এখন থেকে যেকোনো নাগরিক ১০৫ হটলাইনে কল করে জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধনীর বিষয়ে জানতে পারবেন।  

তাছাড়া দালাল না ধরে ২৪৫ টাকা দিয়ে নিজেই সংশোধনীর আবেদন করতে পারবেন বলেও জানান তিনি।  

সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) সিলেটে আঞ্চলিক নির্বাচন কার্যালয়ের সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি এ কথা বলেন।

মতবিনিময়কালে নির্বাচন কর্মকর্তারা সিলেট বিভাগের চার জেলার ১৯টি উপজেলায় ভোটার তালিকা হালনাগাদের তথ্য তুলে ধরে বলেন, এখন এসব উপজেলায় ৩৩ লাখ দুই হাজার ৮১৬ জন ভোটার রয়েছেন। নতুন ভোটারের তথ্যসংগ্রহ করা হয়েছে ৩ লাখ ২৫ হাজার ৯২৬ জন। তথ্য সংগ্রহের হার ৯ দশমিক ৮৭ শতাংশ। তবে তৃতীয় লিঙ্গের জনগোষ্ঠীর কোনো তথ্য নেই তাদের এই হালনাগাদে।  

বাড়ি বাড়ি তথ্য সংগ্রহ না করা প্রসঙ্গে নির্বাচন কর্মকর্তা ফয়সল কাদের বলেন, অনেকেই বাড়ি বাড়ি যাননি অভিযোগ রয়েছে। কেউ বাদ পড়লে অনলাইনে আবেদন করে ভোটার হতে পারবেন।  

জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধনীর ক্ষেত্রে ভোগান্তির বিষয়ে নির্বাচনী কর্মকর্তারা বলেন, অনেকে সঠিকভাবে আবেদন করেন না। দোকান থেকে আবেদন করেন, তখন যেসব কাগজপত্র প্রয়োজন, সেগুলো অসম্পন্ন থাকে। কাগজ একটি বেশি দিলে সমস্যা নেই। কিন্তু প্রয়োজনীয় তথ্যের বিপরীতে কাগজ একটি কম থাকলে তখন সংশোধনীর আবেদন আটকে যায়। তাই সংশোধনীর ক্ষেত্রে সঠিক তথ্য উপস্থাপন করা হয় না।

কর্মকর্তারা বলেন, চার ক্যাটাগরিতে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা, জেলা ও আঞ্চলিক কর্মকর্তা এবং মহাপরিচালক সংশোধনী করে থাকেন। ধরন অনুযায়ী তিন দিন থেকে একমাস পর্যন্ত সময় লাগতে পারে। শত শত আবেদন প্রতিদিন জমা হচ্ছে। সংশোধনও করা হচ্ছে। তবে জনবল সংকটের কারণে কাজের কাঙ্ক্ষিত অগ্রগতি করতে পারছেন না তারা। এজন্য সংশোধনে সময় লেগে যায়। তবে কতিপয় মধ্যস্বত্বভোগী তথা দালালদের খপ্পরে পড়ে ভুক্তভোগীরা অনিয়মের দায় কমিশনের ওপর চাপিয়ে দেন। তাছাড়া অনেকে কম্পিউটারের আবেদন করতে গিয়ে ভুল করে বসেন। তাই উপকারভোগীদের জন্য হটলাইন নাম্বার চালু করা হয়েছে, যাতে তার এনআইডির ক্যাটাগরির বিষয়ে তাৎক্ষণিক জানতে পারেন।     

মতবিনিময়কালে বক্তব্য দেন জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ শুকুর মাহমুদ মিঞা ও সদ্য যোগদানকৃত সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ফরহাদ হোসেন।  

বাংলাদেশ সময়: ১০৪০ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২০, ২০২২
এনইউ/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa