ঢাকা, বুধবার, ১২ মাঘ ১৪২৮, ২৬ জানুয়ারি ২০২২, ২২ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

নির্বাচন ও ইসি

কেরানীগঞ্জে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতার শঙ্কা

ইকরাম-উদ দৌলা, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৫২ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৯, ২০২১
কেরানীগঞ্জে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতার শঙ্কা

ঢাকা: ঢাকা জেলার কেরানীগঞ্জ উপজেলার ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতার আশঙ্কা প্রকাশ করেছে স্থানীয় প্রশাসন। এমনকি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে অতিরিক্ত বিজিবি মোতায়েনের অনুরোধ জানিয়েছে।

নির্বাচন কমিশনের (ইসি) নির্বাচন পরিচালনা শাখার সূত্রগুলো এ তথ্য জানিয়েছে। কর্মকর্তারা বলছেন, উপজেলার ১১টি ইউনিয়নের মধ্যে আটটিতেই চেয়ারম্যান পদে প্রার্থীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিনে প্রায় ৩৫ জনের মতো চেয়ারম্যান পদের প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। কেবল তিনটি ইউপিতে সব পদে ভোট হয়েছে। এসব নিয়ে নির্বাচনী এলাকায় সরকার দলীয় প্রার্থী ও বিদ্রোহী প্রার্থীদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। তাই মাঠ প্রশাসন থেকে অতিরিক্ত বিজিবি মোতায়েনের করার অনুরোধ করা হয়েছে।  

নির্বাচন কমিশনও পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে অতিরিক্ত বিজিবি মোতায়েনের জন্য নির্দেশনা দিয়েছে। ইসির উপ-সচিব আতিয়ার রহমান সোমবার (২৯ নভেম্বর) নির্দেশনাটি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিবের কাছে পাঠিয়েছেন।

এতে উল্লেখ করা হয়েছে, ২৮ নভেম্বর অনুষ্ঠিত ঢাকা জেলার কেরানীগঞ্জ উপজেলার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন উপলক্ষে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ২৬ থেকে ২৯ নভেম্বর পর্যন্ত তিন প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছিল। নির্বাচন পরবর্তী আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি হওয়ার আশঙ্কা থাকায় বিজিবি সদস্যদের মেয়াদ আরও দুদিন অর্থাৎ ৩০ নভেম্বর থেকে ১ ডিসেম্বর পর্যন্ত বাড়ানোর জন্য নির্বাচন কমিশন সিদ্ধান্ত প্রদান করেছে।

এ অবস্থায় উল্লিখিত সিদ্ধান্ত অনুসারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্দেশিত হয়ে অনুরোধ করা হলো।

নির্দেশনার অনুলিপি স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব, মহাপুলিশ পরিদর্শক, বিজিবি মহাপরিচালক, ঢাকার পুলিশ কমিশনার, জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্ট সবার কাছে পাঠানো হয়েছে।

২৮ নভেম্বর দেশের ৯৮৬টি ইউপিতে ভোটগ্রহণ করে ইসি। ভোটের দিন সহিংসতায় ২৪ জন আহত হন। তবে নিহতের ঘটনা একটিও না ঘটনায় নির্বাচন কমিশন তৃতীয় ধাপের ইউপির এ ভোটকে মডেল নির্বাচন বলে দাবি করছে।

আগামী ২৮ ডিসেম্বর চতুর্থ ধাপে ৮৪০টি ও ৫ জানুয়ারি ৭০৭টি ইউপির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এবারের ইউপি নির্বাচনে সরকার দলীয় প্রার্থীদের সঙ্গে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হচ্ছে স্বতন্ত্র তথা দলটির বিদ্রোহী প্রার্থীদের সঙ্গে। সহিংসতায় জড়িয়ে পড়ছেন তারাই।

বাংলাদেশ সময়: ২১৪৮ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৯, ২০২১
ইইউডি/আরবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa