ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৯, ০৯ আগস্ট ২০২২, ১০ মহররম ১৪৪৪

শিক্ষা

ঝরে পড়া শিশুদের ফেরাতে উলিপুরে ৯০ শিখনকেন্দ্র

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৩৫ ঘণ্টা, জুলাই ২, ২০২২
ঝরে পড়া শিশুদের ফেরাতে উলিপুরে ৯০ শিখনকেন্দ্র

কুড়িগ্রাম: কুড়িগ্রামে কখনো স্কুলে ভর্তি না হওয়া এবং স্কুল থেকে ঝরে পড়া শিশুদের শিক্ষার মূল স্রোতে ফিরিয়ে আনতে একযোগে ৯০টি শিখনকেন্দ্রের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয়েছে।

শনিবার (২ জুলাই) দুপুরে কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলার বেগমগঞ্জ ইউনিয়নের সরকার পাড়া-২ উপানুষ্ঠানিক শিখনকেন্দ্রের উদ্বোধন ও ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে বই বিতরণ করা হয়।

শিখনকেন্দ্রের উদ্বোধন করেন কুড়িগ্রাম উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোর সহকারী পরিচালক সাইদুর রহমান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, ছিন্নমুকুল-বাংলাদেশ এর সিনিয়র প্রোগ্রাম ম্যানেজার সুশান্ত পাল, জেলা প্রোগ্রাম ম্যানেজার শফিকুল ইসলাম, ফিন্যান্স ম্যানেজার জুয়েল ইসলাম, উপজেলা প্রোগ্রাম ম্যানেজার মাহবুব আলম, ইউপি চেয়ারম্যান বাবলু মিয়া, মিজানুর রহমান মন্ডল প্রমূখ।

বাংলাদেশ সরকারের প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রনালয়ের আওতাধীন উপনুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরোর সহযোগিতায় কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলায় এই কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে স্থানীয় এনজিও ছিন্নমুকুল-বাংলাদেশ।

ছিন্নমুকুল-বাংলাদেশ এর সিনিয়র প্রোগ্রাম ম্যানেজার সুশান্ত পাল বাংলানিউজকে জানান, আউট অব স্কুল চিলড্রেন এডুকেশন প্রোগ্রাম (পিইডিপি-৪) এর আওতায় কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলায় ১৩টি ইউনিয়নে ঝরে পড়া শিশুদের স্কুলমুখী করে পাঠদান কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। ৩ বছর মেয়াদি এই শিখনকেন্দ্রগুলোতে ৮ থেকে ১৪ বছরের যে শিশু কখনো স্কুলে যায়নি বা এখন স্কুলে যায় না তাদের অন্তর্ভুক্ত করে শিক্ষার মূল স্রোতে ফিরিয়ে আনা হবে।

উলিপুর উপজেলায় ৯০টি শিখনকেন্দ্রে ২৭০০ জন শিশু এই প্রকল্পের আওতায় শিক্ষা গ্রহণ করবে। একটি করে শিখনকেন্দ্রে শিক্ষার্থী থাকবে ৩০ জন এবং তাদের জন্য একজন শিক্ষক থাকবেন। এরকম ১৪টি স্কুল মনিটরিংয়ের জন্য একজন সুপারভাইজারসহ উপজেলা ও জেলা প্রোগাম ম্যানেজার থাকবেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৩৫ ঘণ্টা, জুন ০২, ২০২২
এফইএস/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa