ঢাকা, রবিবার, ৮ কার্তিক ১৪২৮, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

শিক্ষা

শিক্ষার্থীদের টিকা নেওয়ার তথ্য দিলেই খুলবে জবি

মহিউদ্দিন রিফাত, ইউনিভার্সিটি করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭৩৩ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২১
শিক্ষার্থীদের টিকা নেওয়ার তথ্য দিলেই খুলবে জবি

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি): জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) শিক্ষার্থীরা যত দ্রুত টিকা দেওয়ার তথ্য কর্তৃপক্ষের কাছে দেবে তত দ্রুতই বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেওয়া হবে। এমনটাই জানিয়েছেন রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মো. ওহিদুজ্জামান।

 

করোনার সংক্রমণের দেড় বছরেরও বেশি সময় ধরে বন্ধ ছিল দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। একই ধারাবাহিকতায় বন্ধ ছিল জবি।  

গত ১২ সেপ্টেম্বর স্কুল-কলেজ খুলে যাওয়ার মধ্য দিয়ে আবারও মুখরিত হয়েছে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। সেসঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেওয়ার পরিকল্পনা করছে জবি কর্তৃপক্ষ। তবে বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেওয়ার আগে শিক্ষার্থীদের করোনা টিকা নিশ্চিত করতে হবে। এর কারণে শিক্ষার্থীদের কাছে টিকা দেওয়ার তথ্যও চেয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। কিন্তু শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে তথ্য দেওয়ার ব্যাপারে তেমন কোন সাড়া মিলেনি। তথ্য না দেওয়ার ব্যাপারে শিক্ষার্থীদের অভিযোগ যেই পদ্ধতিতে বিশ্ববিদ্যালয় তথ্য চেয়েছে সেভাবে তথ্য দেওয়া খুবই সময় সাপেক্ষ। কেউ কেউ আবার চেষ্টা করেও যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে তথ্য দিতে পারেনি। অনেকে আবার তথ্য চাওয়ার পর টিকা দিয়েছে তাই তথ্য দিতে পারেনি।

এর আগে গত ২৯ আগস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মো. ওহিদুজ্জামান স্বাক্ষরিত এক প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সরকার ও বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের সিদ্ধান্ত মোতাবেক স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতপূর্বক বিশ্ববিদ্যালয় খোলার জন্য প্রত্যেক অনুষদ, বিভাগ, ইনস্টিটিউট, দপ্তরে কর্মরত শিক্ষক, কর্মকর্তা ও শিক্ষার্থীদের টিকা গ্রহণ সংক্রান্ত তথ্যাবলীর (কত জন প্রথম ডোজ টিকা গ্রহণ করেছেন,কত জন ২য় ডোজ টিকা গ্রহণ করেছেন, কত জন রেজিস্ট্রেশন করেছেন কিন্তু টিকা গ্রহণ করেননি, কতজনের এনআইডি আছে কিন্তু টিকার জন্য রেজিস্ট্রেশন করেননি, কতজনের এনআইডি নেই)  সফট ও হার্ড কপি ২ সেপ্টেম্বরের মধ্যে জমা দিতে বলা হয়।

এ বিষয়ে জবির নৃবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী অমৃতা বিশ্বাস রিয়া বাংলানিউজকে বলেন, আমি দুই ডোজ টিকাই নিয়েছি। বিভাগ থেকে টিকা নেওয়ার তথ্য চাওয়ার পর আমাদের সি আর যার যার স্টুডেন্ট আইডিতে লগইন করে সেখানে তথ্য আপডেট করতে বলে। কিন্তু আমি সেখানে লগইন করে আমার তথ্য দিতে পারিনি৷ টেকনিক্যাল ত্রুটির জন্য এমন হয়েছে। আমি বিষয়টি পরবর্তীতে সি আরকে জানাই। কিন্তু কোন সাড়া পাইনি।

শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থী ফাহাদ হোসেন বাংলানিউজকে বলেন, আমি ১৮ সেপ্টেম্বর প্রথম ডোজ নিয়েছি। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক আগেই টিকার তথ্য দেওয়ার জন্য নোটিশ দিয়েছিল। সময়ও অনেক আগেই শেষ হয়েছে। তাই আমি আমার টিকার আপডেট তথ্য দিতে পারিনি। ১৭ অক্টোবর আমার সেকেন্ড ডোজ নেওয়ার তারিখ।
 
বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মো. ওহিদুজ্জামান বাংলানিউজকে বলেন, শিক্ষার্থীরা আমাদের যত দ্রুত টিকা দেওয়ার তথ্য দেবে আমরা তত দ্রুতই বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দিতে পারবো।

তিনি বলেন, যেসব শিক্ষার্থী টিকা নিয়েছে ইউজিসি, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে আমাদের কাছে তাদের তালিকা চেয়েছে কিন্তু শিক্ষার্থীরা তথ্য দিচ্ছে না। এর কারণে আমরা কোন তথ্য দিতে পারছি না। এর কারণে আমরা বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেওয়ার ব্যাপারেও সিদ্ধান্ত নিতে পারছি না। কারণ বিশ্ববিদ্যালয় খুলার আগে সব শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া নিশ্চিত করতে হবে।  

তিনি আরো বলেন, ইতোমধ্যে আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ে করোনা টিকার বুথ দেওয়ার জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়েছি। এবং ব্যক্তিগতভাবেও যোগাযোগ করা হচ্ছে।  

এ সময় তিনি টিকার তথ্য দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে সহযোগিতা করার আহ্বান জানান।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৩১ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২১
এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa