ঢাকা, বুধবার, ৩ আষাঢ় ১৪২৮, ১৬ জুন ২০২১, ০৫ জিলকদ ১৪৪২

অর্থনীতি-ব্যবসা

ঈদের কেনাকাটায় তরুণীদের তালিকায় ইমিটেশন অলঙ্কার

কাওছার উল্লাহ আরিফ, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৩০ ঘণ্টা, মে ১২, ২০২১
ঈদের কেনাকাটায় তরুণীদের তালিকায় ইমিটেশন অলঙ্কার

বগুড়া: দরজায় কড়া নাড়ছে মুসলিম সম্প্রদায়ের প্রধান উৎসব ঈদুল ফিতর। এ উৎসবকে সামনে রেখে বগুড়ায় বসে নেই ইমিটেশন অলঙ্কার ব্যবসায়ীরা।



কিছু দিন আগেও অলঙ্কার মানেই তরুণীরা বুঝতো সোনা বা রুপার গহনা। কিন্তু যুগের হাওয়ায় অনেক পরিবর্তন এসেছে। অলঙ্কারেও পরিবর্তনের ছোঁয়া লেগেছে। কেননা সোনার দাম বেড়েই চলছে। কমে গেছে রুপার প্রচলন। ফলে এসবের স্থান দখলে নিয়েছে ইমিটেশনের বাহারি ডিজাইনের রকমারি অলঙ্কার।

তরুণীদের পছন্দের তালিকায় এখন স্থান করে নিয়েছে বিভিন্ন ধরনের ইমিটেশনের গহনা। বিভিন্ন পার্টি বা নানা ধরনের অনুষ্ঠানে তরুণীরা এখন ব্যাপকহারে ব্যবহার করছেন সোনালি রঙের ইমিটেশন অলঙ্কার। ঈদকে ঘিরে কেনাকাটায় ইমিটেশন শপিংমলে ভিড় করেন তরুণীরা।

বুধবার (১২ মে) দুপুরে শহরের অভিজাত এলাকায় গড়ে ওঠা বিভিন্ন নামী-দামী শপিংমল ঘুরে ক্রেতা ও ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য জানা যায়।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বগুড়া শহরের শপিংমলগুলোতে ঈদকে ঘিরে ইমিটেশন সম্ভার গড়ে তুলেছেন ব্যবসায়ীরা। দোকানগুলোতে থরে থরে সাজিয়ে রাখা হয়েছে রকমারি ডিজাইন ও কারুকার্যের ইমিটেশনের অলঙ্কার। এসব অলঙ্কারে ছোঁয়ায় ফুটে উঠে নারীর সৌন্দর্য ও আভিজাত্য। সোনা বা রুপার গহনার আদলে এসব সামগ্রী তৈরি করা হয়েছে। ইমিটেশনের এসব অলঙ্কার স্বাভাবিক দৃষ্টিতে দেখলে সোনা বা রুপার প্রকৃত গহনার মতোই লাগবে। রকমারি ডিজাইন ও কারুকার্য খচিত অলঙ্কারগুলো নারী ক্রেতাদের দৃষ্টি কাড়ছে ভীষণভাবে।

সোহাগ, এজাজুল হক, আবু তালহাসহ একাধিক ইমিটেশন ব্যবসায়ীরা বাংলানিউজকে জানান, কমবেশি সব সময় ইমিটেশন অলঙ্কার বিক্রি হয়। তবে ঈদের সময়টা ভিন্ন। এ সময়টাতে ইমিটেশন সামগ্রী কয়েকগুণ বেশি বিক্রি হয়। সেটা মাথায় রেখে ইমিটেশন অলঙ্কারের আমদানি করেছেন তারা। ঈদকে সামনে রেখে ভারত, নেপাল, চীন, ইন্দোনেশিয়া, কোরিয়া, থাইল্যান্ডসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের আকর্ষণীয় সব অলঙ্কার আমদানি করা হয়ে থাকে।  

এরমধ্যে লহর মালা, ডায়মন্ড কাটিং চুরি, কাশ্মীরি ঝুমকা, লকেট, রাখি, চুড়ি,  ব্লু টুথ কানের দুল, ব্রাইডাল সেট, কুন্দল সেট, নেকলেস, পায়েল, সিতাহার, বাজু ও কোমরের বিছা অন্যতম ইমিটেশন অলঙ্কার।

তারা জানান, ইমিটেশনের এসব অলঙ্কার উচ্চ ও উচ্চ মধ্যবিত্ত পরিবারের তরুণীরা বেশি ব্যবহার করে থাকেন। শেষ বেলায় এসে নানা ধরনের থ্রি-পিস ও শাড়ি কাপড়ের সঙ্গে ম্যাচিং করে তরুণীরা ইমিটেশন আইটেম কিনেন। তাই প্রত্যেক ঈদের শেষ সময়টাতে তাদের বিক্রি বেড়ে যায় বলেও যোগ করেন এসব ব্যবসায়ীরা।

কলেজছাত্রী মেঘা, সোনালী, তুরা, অদ্বিতীয়া, সামিয়াসহ ইমিটেশনের অলঙ্কার কিনতে আসা একাধিক তরুণী বাংলানিউজকে জানান, ঈদের কালেকশন হিসেবে প্রত্যেকটি অলঙ্কারই তাদের পছন্দ। প্রায় প্রতিটি অলঙ্কারই দেখতে খুব সুন্দর। তাই বলে তো সবগুলো কেনা যায় না। সবকিছু মাথায় রেখে পোশাকের সঙ্গে ম্যাচিং করে ঈদে ইমিটেশনের অলঙ্কার কিনতে হচ্ছে বলে জানান তারা।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৩০ ঘণ্টা, মে ১১, ২০২১
কেইউএ/আরআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa