ঢাকা, বুধবার, ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ০৮ রবিউস সানি ১৪৪২

অর্থনীতি-ব্যবসা

জনশক্তি রপ্তানি খাতে ৫০ হাজার দালাল সক্রিয়: সিপিডি

ইশতিয়াক হুসাইন, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫০৪ ঘণ্টা, জুলাই ৩, ২০১১
জনশক্তি রপ্তানি খাতে ৫০ হাজার দালাল সক্রিয়: সিপিডি

ঢাকা: বাংলাদেশে জনশক্তি রপ্তানি খাতে ৫০ হাজারেরও বেশি দালাল সক্রিয় বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি)।

দালালদের প্রত্যক্ষ অংশগ্রহণের ফলে বাংলাদেশ থেকে জনশক্তি রপ্তানিতে খরচ বেড়েই চলছে।

এর ফলে অভিবাসীদের পক্ষে ওই ব্যয় উঠিয়ে আনা কঠিন হয়ে যাচ্ছে বলেও ওই প্রতিবেদনে জানানো হয়।

‘বাংলাদেশ ইকোনোমি ইন ফিসক্যাল ইয়ার ২০১০-১১’ শীর্ষক এক প্রতিবেদনে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়। রিপোর্টটি গত জুন মাসের ৪ তারিখ প্রকাশিত হয়।
 
প্রতিবেদন মতে, জনশক্তি রপ্তানিতে এই দালালদের উপস্থিতি কাম্য নয়। বিশাল সংখ্যক শ্রমিকরা রিক্রুটিং এজেন্সিগুলোর ওই অনৈতিক মুনাফা ভোগের শিকার হচ্ছে। তথাকথিত স্থানীয় দালালদের খপ্পরে পরে শ্রমিকদেরকে অনেক বেশি টাকা খরচ করে বিদেশে যেতে হচ্ছে।

বাংলানিউজের পক্ষ হতে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্টারন্যাশনাল রিক্রুটিং এজেন্সির (বিএআইআরএ) সাধারণ সম্পাদক আলী হায়দারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘যেসব শ্রমিকরা দেশ ছেড়ে বাইরে যেতে আগ্রহী তাদের জন্য সবকিছু করতে আমরা প্রস্তুত। যদি তারা সরাসরি আমাদের সাথে যোগাযোগ করে তাহলে তারা জনপ্রতি ৫০ হাজার টাকা সাশ্রয় করতে পারবে। ’

তিনি আরও জানান, এজন্য সরকারকে জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে কাজ করতে হবে। সরকার প্রতিটি উপজেলায় খুব সহজেই একটি তথ্য দপ্তর খুলতে পারে।

এই অনিয়ম বন্ধে বিদেশে যেতে ইচ্ছুক শ্রমিকদের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি করা দরকার। তারা যাতে বিদেশে যাওয়ার ক্ষেত্রে দালালদের শরণাপন্ন না হন সেজন্যেও প্রচারাভিযান চালানো যেতে পারে বলেও প্রতিবেদনে উল্লেখ করে সিপিডি।

সিপিডির প্রতিবেদন মতে, বাংলাদেশ থেকে অন্য দেশে যেতে গড় খরচ হয় দুই থেকে তিন লাখ টাকার মধ্যে। যখন অভিবাসীদের পাঠানো মাথাপিছু রেমিটেন্সের সঙ্গে ওই খরচ তুলনা করা হয় তখনই একজন শ্রমিকের বিদেশে যেতে কী পরিমাণ খরচ লাগে তা সহজেই বোঝা যায়। বাংলাদেশের যেসব শ্রমিক ২০১০ সালে সৌদি আরবে যেতে দুই লাখ টাকা খরচ করেছে সেই টাকা ওঠাতে তাদের প্রায় দুই বছর সময় লেগে যাবে।

অন্যদিকে যদি অভিবাসন খরচ লাগে আড়াই লাখ টাকা তাহলে সেই টাকা ওঠাতে সময় লেগে যাবে তিন বছর। এমনিভাবে তিন লাখ টাকা খরচ করলে তার জন্য লাগবে সাড়ে তিন বছর সময়।

কম অভিবাসন খরচ, অভিবাসনে আগ্রহী দম্পতিদের আর্থিক সহায়তা দান এবং সহজ শর্তে ঋণ দানের ব্যবস্থা করা হলে বাংলাদেশের গরীব পরিবারগুলোর জন্য সহায়ক হবে বলেও মতামত দেয় সিপিডি।

বাংলাদেশ সময়: ১৫০১ ঘণ্টা, জুলাই ০৩, ২০১১

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa