ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৯ মে ২০২২, ১৭ শাওয়াল ১৪৪৩

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

১৭ ফেব্রুয়ারি থেকে চট্টগ্রামে বইমেলা: মেয়র রেজাউল 

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮১৮ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৭, ২০২২
১৭ ফেব্রুয়ারি থেকে চট্টগ্রামে বইমেলা: মেয়র রেজাউল  বক্তব্য দেন চসিক মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী।

চট্টগ্রাম: করোনা মহামারির কারণে ২০২১ সালে প্রস্তুতি থাকা সত্ত্বেও অমর একুশে বইমেলা করতে পারেননি জানিয়ে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী বলেছেন, সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করে আগামী ১৭ ফেব্রুয়ারি চট্টগ্রামে বইমেলা শুরু করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। তবে পরিস্থিতি বিবেচনায় সরকারের স্বাস্থ্যবিধি সংক্রান্ত সিদ্ধান্তের আলোকে বইমেলা আয়োজনের সার্বিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

বৃহস্পতিবার (২৭ জানুয়ারি) বিকেলে টাইগারপাসে চসিকের অস্থায়ী কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে ‘অমর একুশে বইমেলা ২০২২’ উপলক্ষে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসবকথা বলেন।

সভায় বক্তব্য দেন চসিক প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শহীদুল আলম, প্যানেল মেয়র মো. গিয়াস উদ্দিন, শিক্ষা স্ট্যান্ডিং কমিটির সভাপতি ড. নিছার উদ্দিন আহমেদ মঞ্জু, সমাজকল্যাণ স্ট্যান্ডিং কমিটির সভাপতি আবদুস সালাম মাসুম, কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লব, প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা লুৎফুন নাহার, বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. মাহফুজুর রহমান, পেশাজীবী সমন্বয় পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক রিয়াজ হায়দার চৌধুরী, প্রাবন্ধিক জামাল উদ্দিন, কবি ওমর কায়সার, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শুকলাল দাশ, সৃজনশীল প্রকাশনা পরিষদের সভাপতি মহিউদ্দিন শাহআলম নিপু, সাধারণ সম্পাদক আলী প্রয়াস, অভীক ওসমান, দেওয়ান মাকসুদ আহমেদ, দীপেন চৌধুরী, মুহাম্মদ শামসুল হক, দীপক কুমার দত্ত, আ ফ ম মোদাচ্ছের আলী, রেহেনা চৌধুরী, মিজানুর রহমান শামীম, মো. নুরুল আবছার, গোফরান উদ্দিন টিটু, রূপম মুৎসুদ্দি, কবি আইয়ুব সৈয়দ, মো. ইকবাল হোসেন, নজরুল ইসলাম মোস্তাফিজ, স.ম জিয়াউর রহমান, প্রণব চৌধুরী, জয়নুদ্দিন আহমেদ জয়, ভাস্কর ডিকে দাশ মামুন ও সমীরণ পাল।

মেয়র বলেন, বইমেলা হলো বইকে উপলক্ষ করে লেখক ও পাঠকের মিলনমেলা। গ্রন্থমেলা নিয়ে গ্রন্থপ্রেমী মানুষের মধ্যে আগ্রহ রয়েছে। এ ছাড়া করোনা অতিমারির কারণে মানুষ বাসায় বন্দি থাকতে থাকতে হাঁপিয়ে উঠেছে। তারা সুযোগ পেলেই বাইরে আসছে সুতরাং বইমেলা শুরু হলে জনসাধারণের প্রাণের স্পন্দন ও পদচারণায় মুখর হয়ে উঠবে বইমেলা।  

তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় যারা বিশ্বাস করে না তাদের প্রকাশিত বই মেলায় যাতে স্থান না পায় সে ব্যাপারে দায়িত্ব নিয়ে কাজ করতে হবে।  

মেয়র স্মরণ করিয়ে দিয়ে বলেন, চট্টগ্রাম সবসময় নানাক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছে। অনেক গৌরব-গাথায় সমৃদ্ধ চট্টগ্রামের ইতিহাস। এ ইতিহাসকে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কাছে তুলে ধরা আমাদের দায়িত্ব হয়ে দাঁড়িয়েছে। কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে যাতে বইমেলায় ক্রেতা ও পাঠকরা আসতে পারেন সে প্রস্তুতি নিয়েছে চসিক।  

এর আগের বইমেলায় যে ১৩৮টি প্রকাশনী সংস্থা অংশ নিয়েছিল তারা এবারের বইমেলায় অংশ নেবে বলে মেয়র আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

গতবারের একুশে পদক থেকে গুণীজনরা যাতে বঞ্চিত না হন: রিয়াজ হায়দার 

করোনার কারণে ২০২১ সালে বইমেলা না হওয়ায় 'চসিক একুশে পদক ২০২১' এবারের মেলায় দেওয়ার জন্য সিটি মেয়র এম রেজাউল করিম চৌধুরীর প্রতি দাবি জানিয়েছেন চট্টগ্রামের পেশাজীবী নাগরিক সংগঠক ও সাংবাদিক নেতা রিয়াজ হায়দার চৌধুরী।  

একুশে বইমেলার প্রস্তুতি সভায় এ দাবি জানান তিনি।  

চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি ও পেশাজীবী সমন্বয় পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রিয়াজ হায়দার চৌধুরী বলেন, চট্টগ্রামের সাহিত্য, সংস্কৃতিকর্মী, সংগঠক ও নানা খাতে অবদান রাখা গুণীজনরা এমনিতেই জাতীয় পর্যায়ের অনেক স্বীকৃতিবঞ্চিত। সেই কারণেই আশা করতে পারি এবার চসিকের 'লেখক মেয়র' গতবছর বকেয়া থাকা চট্টগ্রামের কৃতী সন্তানদের প্রাপ্য স্বীকৃতি দেওয়ার ব্যাপারে উদ্যোগ নিয়ে নজির তৈরি করবেন।

এ দাবির ব্যাপারে মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী তাঁর বক্তব্যে ইতিবাচক মত ব্যক্ত করেন। মেয়র বলেন, এবারের চসিক পদক প্রদানের ব্যাপারে ইতিমধ্যে একটি কমিটি গঠিত হয়েছে। সেই কমিটিই এ দাবির পরিপ্রেক্ষিতে গত বছরের পদকপ্রাপ্ত গুণীজনদের নাম চূড়ান্ত করবেন।  

মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক গবেষক ও প্রবীণ রাজনীতিক ডা. মাহফুজুর রহমান এবার ওমিক্রণের আধিপত্যেও স্বাস্থ্যবিধি মেনে বইমেলা আয়োজনের পক্ষেই মত দেন।

তিনি বলেন, 'করোনা ভাইরাস মেয়র, মন্ত্রী-এমপিদের এসি রুমেই রয়েছে বেশি। খোলা মাঠে করোনা ভাইরাস সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি কম। '

বাংলাদেশ সময়: ১৮১৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৭, ২০২২
এআর/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa