ঢাকা, শুক্রবার, ৬ কার্তিক ১৪২৮, ২২ অক্টোবর ২০২১, ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

আওয়ামী বাহিনীতে পরিণত হয়েছে যৌথবাহিনী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৫৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৯, ২০১৪
আওয়ামী বাহিনীতে পরিণত হয়েছে যৌথবাহিনী ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

চট্টগ্রাম: যৌথ বাহিনী যথাযথ দায়িত্ব পালন করছে না অভিযোগ করে নগর বিএনপির সভাপতি আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেছে,‘যৌথ বাহিনী এখন রক্ষী বাহিনীর ভূমিকা পালন করছে। ’

তিনি বলেন,‘সরকারের যৌথবাহিনী মুজিব আর আওয়ামী বাহিনীতে পরিণত হয়েছে।



বুধবার বিকেলে নগর বিএনপির দলীয় ‍কার্যালয় নাসিমন ভবনের সামনে অনুষ্ঠিত সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

প্রহসনের নির্বাচন, অবৈধ সরকার ও সংসদ বাতিলের দাবিতে কর্মসূচি ঘোষণা করে বিএনপি নের্তৃত্বাধীন ১৯ দলীয় জোট। কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে চট্টগ্রাম মহানগর ১৯ দলীয় জোট কর্মসূচি পালন করে।

নগর বিএনপির দলীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ করলেও চট্টগ্রামে কালো পতাকা মিছিলের অনুমতি দেয়নি পুলিশ।

নগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আবু সুফিয়ানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে প্রধান বক্তা ছিলেন সদ্য কারামুক্ত বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মীর মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন।

আমীর খসরু বলেন,‘অনির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী, মন্ত্রী পরিষদ ও নীতি নৈতিকতা বিবর্জিত যে সরকার সংসদে বসছে তার প্রতিবাদ জানিয়েছে জনগণ। ‘

অনির্বাচিত সরকারের বিরুদ্ধে জনগণ তাদের রায় জানিয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, সরকারের নির্যাতন নিপিড়ন উপেক্ষা করে জনগণ আন্দোলন চালিয়ে গেছে। মানুষ সবকিছু উপেক্ষা করে তাদের ভোটাধিকার ফিরিয়ে আনতে রাস্তায় নেমেছে।

বন্দুকের নলের মাধ্যমে আন্দোলন দমানো যায়না মন্তব্য করে নগর বিএনপির সভাপতি বলেন, ক্ষমতা হস্তান্তর না করা পর্যন্ত নতুন শপথ নিয়ে রাস্তায় নামতে হবে।

আওয়ামী লীগ ও গণতন্ত্র একসঙ্গে চলতে পারে না মন্তব্য করে প্রধান বক্তার বক্তব্যে মীর মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন বলেন, প্রহসনের নির্বাচন সফল করতে বিএনপি নেতাদের বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। তারপরও ৫ শতাংশ ভোটও পড়েনি।

‘যে নির্বাচনে ৫ শতাংশ মানুষ ভোট দেয়নি, দেশের রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, স্পিকারও ভোট দিতে পারেনি সেই নির্বাচন কোন নির্বাচন নয়। ’

আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে জামায়াত ছাড়ার পরামর্শের বিষেয় তিনি বলেন, খালেদা জিয়াকে বিভিন্ন নেতা উপদেশ দিচ্ছেন। তিনি কারও উপদেশ নিয়ে রাজনীতি করেন না।

মীর নাছির বলেন,‘যারা জামায়াতের সঙ্গ ছাড়কে বলছে তারাই জামায়াতকে সঙ্গে নিয়ে ২১ বছর পর ক্ষমতায় এসেছে। যারা জামায়াতের উপর ভিত্তি করে ক্ষমতায় আসে তাদের মুখে একথা মানায় না। ’
 
স্বঘোষিত সরকারকে জনগণ প্রত্যাখান করেছে দাবি করে বিএনপির তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ ওয়াহিদুল আলম বলেন,‘অবৈধ সরকারকে উৎখাত করতে হলে কঠোর আন্দোলন করতে হবে। ’  

কালো পতাকা প্রদর্শনের মাধ্যমে জনগণ প্রতিবাদ জানিয়েছে উল্লেখ করে দক্ষিণ জেলা বিএনপি সভাপতি জাফরুল ইসলাম অবিলম্বে নির্বাচন দেয়ার দাবি জানান।

জাতির একটি কলঙ্কময় দিনে সরকার কালো পতাকা মিছিল সহ্য করতে পারছে না মন্তব্য করে সভাপতির বক্তব্যে আবু সুফিয়ান বলেন,‘এ সরকারের প্রতি জনগণের সমর্থন না থাকায় তারা কালো পতাকা মিছিলও সহ্য করতে পারছে না।

জনগণের সাংবিধানিক অধিকারে পুলিশ বাধা দিচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ডা.শাহাদাত হোসেনের সঞ্চালনায় সমাবেশে ‍অন্যন্যের মধ্যে বিএনপির সহ- শ্রম বিষয়ক সম্পাদক এএম নাজিম উদ্দিন, নগর বিএনপির সহ-সভাপতি শামসুল আলম, কেন্দ্রীয় সদস্য মাহবুবুর রহমান শামীম, বিএনপি নেতা এমএ সবুর, এডভোকেট আব্দুস সাত্তার, মোহাম্মদ মিয়া ভোলা, নগর মহিলা দলের সভানেত্রী মনোয়ারা বেগম মনি প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৫৪ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৯, ২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa