ঢাকা, শনিবার, ৮ মাঘ ১৪২৮, ২২ জানুয়ারি ২০২২, ১৮ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

ক্রিকেট

ক্যান্সারের যন্ত্রনায় স্বেচ্ছামৃত্যু চান অ্যাশেজজয়ী অধিনায়ক

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৩২ ঘণ্টা, নভেম্বর ৩০, ২০২১
ক্যান্সারের যন্ত্রনায় স্বেচ্ছামৃত্যু চান অ্যাশেজজয়ী অধিনায়ক

পৃথিবীতে সব ব্যধি থেকে মুক্তির ঔষুধ থাকলেও এখন পর্যন্ত আবিস্কার হয়নি ক্যান্সারের কোনো ঔষুধ। এই মরণব্যাধিতে আক্রান্ত হয়ে নিজের স্বেচ্ছায় মৃত্যু চেয়েছেন সাবেক ইংলিশ অ্যাশেজজয়ী অধিনায়ক রে ইলিংওয়ার্থ।

কয়েকদিন আগে ক্যান্সারে আক্রান্ত নিজ স্ত্রীকে হারিয়েছেন ১৯৭০-৭১ মৌসুমে অস্ট্রেলিয়ার মাঠে অ্যাশেজজয়ী সাবেক ইংলিশ অধিনায়ক রে ইলিংওয়ার্থ। এই ব্যধি বাসা বেধেঁছে তার শরীরেও। চিকিৎসা নিলেও সুফল পাচ্ছেন না তিনি। ভয়াবহ এই ব্যধির যন্ত্রণা সহ্য করতে না পেরে নিজের স্বেচ্ছমৃত্যু চেয়েছেন এবার। তবে ইংল্যান্ডে সেই আইন না থাকায় তিনি আক্ষেপও করেছেন।

৮৯ বছরের ইলিংওয়ার্থের খাদ্যনালীতে ক্যান্সার ধরা পড়েছে। ইউরোপের বেশ কিছু দেশে গুরুতর অসুস্থ ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে 'স্বেচ্ছায় মৃত্যু'র ব্যবস্থা আছে। কিন্তু যুক্তরাজ্যে এখনো সেটা আইনসিদ্ধ নয়। ক্যান্সারে ধুঁকে ধুঁকে মরতে রাজি নন ইলিংওয়ার্থ। 'ডেইলি টেলিগ্রাফ'কে ইলিংওয়ার্থ বলেছেন, 'চিকিৎসকেরা টিউমারের বাকি অংশটা দ্বিগুণ কেমোথেরাপি দিয়ে দূর করে দেওয়ার চেষ্টা করছেন। দেখি আগামী দুই ডোজ কেমন যায়। আমি আশায় আছি, ভাগ্য আমার পক্ষে থাকবে। '

চলতি বছরেই ক্যান্সারে মারা গেছেন ইলিংওয়ার্থের স্ত্রী শিরলে। সেই স্মৃতিচারণ করে ইলিংওয়ার্থ বলেন, 'শেষ ১২টা মাস ওর জীবনটা যে রকম ছিল, আমি চাই না আমারও সে রকম কাটুক। ওকে প্রচণ্ড যন্ত্রণা সহ্য করতে হয়েছে। এক হাসপাতাল থেকে আর এক হাসপাতালে যেতে হয়েছে। শেষ একটা বছর ওর জীবন বলে কিছু ছিল না। সত্যি বলছি, আমি ওরকম জীবন চাই না। আমি স্বেচ্ছামৃত্যুতে বিশ্বাসী। কিন্তু ইংল্যান্ডে সে আইন নেই। কী আর করা যাবে। এই নিয়ে তর্ক, আলোচনা চলছে। আশা করি, একদিন স্বেচ্ছামৃত্যু আমাদের দেশেও আইনি স্বীকৃতি পাবে। '

বাংলাদেশ সময়: ২০৩২ ঘণ্টা, নভেম্বর ৩০, ২০২১
আরইউ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa