ঢাকা, রবিবার, ৩ মাঘ ১৪২৭, ১৭ জানুয়ারি ২০২১, ০২ জমাদিউস সানি ১৪৪২

ক্রিকেট

বিফলে হার্দিক ঝড়, স্মিথ-ফিঞ্চের সেঞ্চুরিতে জয় অস্ট্রেলিয়ার

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯০৫ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৭, ২০২০
বিফলে হার্দিক ঝড়, স্মিথ-ফিঞ্চের সেঞ্চুরিতে জয় অস্ট্রেলিয়ার ব্যাট হাতে ঝড় তুলে অজিদের জয়ের নায়ক স্মিথ/ছবি: সংগৃহীত

ভারত তার প্রিয় প্রতিপক্ষ বলেই কিনা, ব্যাট হাতে খুনে মেজাজে দেখা দিলেন স্টিভ স্মিথ। যোগ্য সঙ্গ দিয়ে সেঞ্চুরি তুলে নিলেন অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চও।

দুই অজি ব্যাটসম্যানের রুদ্রমূর্তির জবাবে ঝড় তুলেছিলেন ভারতীয় অলরাউন্ডার হার্দিক পান্ডিয়াও। কিন্তু কোহলির ক্যাচ ফেলে চাপে পড়ে যাওয়া অ্যাডাম জাম্পা বল হাতে ঘূর্ণিঝড় তুলে স্বাগতিকদের জয় নিশ্চিত করলেন।  

সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে শুক্রবার (২৭ নভেম্বর) গ্যালারিতে ৫০ শতাংশ দর্শকদের উপস্থিতিতে চলমান ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে সফরকারী ভারতকে ৬৬ রানে হারিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। করোনার বিরতির পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে দর্শক ফেরার সাম্প্রতিক ঘটনা এটাই। শুরুতে ব্যাট করতে নেমে ৬ উইকেট হারিয়ে ৩৭৪ রানের বড় সংগ্রহ গড়েছিল অজিরা। জবাবে ২ উইকেট হাতে রেখেও ৩০৮ রানে থামে ভারতের ইনিংস। এই জয়ে সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেলেন স্মিথ-ওয়ার্নাররা।

লক্ষ্য তাড়ায় নেমে ভারতকে ভালো শুরু এনে দেন দুই ওপেনার মায়াঙ্ক আগারওয়াল ও শিখর ধাওয়ান। দলীয় ৫৩ রানে আগারওয়াল (২২) জশ হ্যাজেলউডের বলে ম্যাক্সওয়েলের হাতে ক্যাচ তুলে দিলে ভারতের ওপেনিং জুটি ভাঙে। এরপর ক্রিজে নামা বিরাট কোহলি অজি পেসার হ্যাজেলউডের বলে ব্যক্তিগত এক রানে ক্যাচ তুলে দিয়েছিলেন। কিন্তু সহজ ক্যাচটা জাম্পার হাত ফসকে পড়ে যায়। এজন্য অবশ্য খুব একটা মূল্য দিতে হয়নি অজিদের। কারণ আগ্রাসী ব্যাটিং করতে গিয়ে সেই হ্যাজেলউডের বলেই ফিঞ্চের হাতে ক্যাচ তুলে দেওয়ার আগে করেছেন ২১ রান।

কোহলির বিদায়ের পর ভারতীয় ইনিংসে ছোটখাটো ধস নামে। দুই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান শ্রেয়াস আইয়ার (২) ও লোকেশ রাহুল (১২) দুজনেই দ্রুত বিদায় নেন। অন্যপ্রান্তে তখনও ধীরে ধীরে ইনিংস বড় করছেন শিখর ধাওয়ান। কিন্তু ভারতের জন্য বড় ভরসা হয়ে উঠেছিলেন হার্দিক। ক্রিজে এসেই অজি বোলারদের ওপর চড়াও হন এই অলরাউন্ডার। ধাওয়ানকে নিয়ে ২২৮ রান যোগ করেন তিনি।  

ধাওয়ান ৭৪ রানের লড়াকু ইনিংস খেলে জাম্পার বলে স্টার্কের ক্যাচে পরিণত হন। ১০ চারে সাজানো এই ইনিংস। এই বাঁহাতি ওপেনারের বিদায়ের পর বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি হার্দিকও। তবে জাম্পার তৃতীয় শিকার হওয়ার আগে ৭৬ বলে ৯০ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস খেলেছেন এই ডানহাতি। ৭ চার ও ৪ ছক্কা মিলিয়ে ইনিংসটি ছিল দেখার মতো। মূলত তার বিদায়ের পরই প্রমাদ গুনতে থাকে ভারত। রবীন্দ্র জাদেজা ৩৭ বলে ২৫ রানের খেলে সেই জাম্পার বলে স্টার্কের হাতেই ক্যাচ তুলে দিলে ভারতের জয়ের আশা শেষ হয়ে যায়।

বল হাতে অজিদের জয়ের পেছনে বড় ভূমিকা রেখেছেন জাম্পা ও হ্যাজেলউড। লেগ স্পিনার জাম্পা ১০ ওভার হাত ঘুরিয়ে তুলে নিয়েছেন ৪ উইকেট। খরচ করেছেন ৫৪ রান। হ্যাজেলউড ৫৫ রান খরচে পেয়েছেন ৩ উইকেট। বাকি উইকেট স্টার্কের।

এর আগে ৬২ বলে চোখ ধাঁধানো সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে ভারতের সামনে রানের পাহাড় তৈরি করে দেন স্মিথ। তবে তার সতীর্থ ফিঞ্চ ও ওয়ার্নারও কম যাননি। অজি অধিনায়কও বলের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে ১৭তম ওয়ানডে সেঞ্চুরি তুলে নেন। ওয়ার্নার খেলেন ৬৯ রানের ঝলমলে এক ইনিংস। এছাড়া দীর্ঘদিন পর ফর্মে ফেরার ইঙ্গিত দিয়ে ব্যাটে স্ট্রোকের ফুলঝুরি ছুটিয়েছেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। ১৯ বলে ৫ রান ও ৩ ছক্কায় এই অলরাউন্ডার করেছেন ৪৫ রান।  

অজি ইনিংসের আসল নায়ক অবশ্যই স্মিথ। ষষ্ঠ উইকেট হিসেবে আউট হওয়ার আগে ৬৬ বলে ১০৫ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস খেলেছেন তিনি। শুধু কি তাই। হাঁকিয়েছেন ১১টি চার ও ৪টি ছক্কা। অজি ব্যাটসম্যান হিসেবে তৃতীয় দ্রুততম (৬২ বলে) সেঞ্চুরির মালিকও এখন তিনি। মজার ব্যাপার হচ্ছে, ফর্ম যেমনই হোক, ভারতকে প্রতিপক্ষ হিসেবে পেলে স্মিথের ব্যাটে যেন রানের ফোয়ারা ছোটে। কোহলিদের বিপক্ষে তার সর্বশেষ চার ইনিংস যথাক্রমে- ৬৯ (৭০), ৯৮ (১০২), ১৩১ (১৩২) এবং ১০৫ (৬৬)।  

ঝড়ো সেঞ্চুরির পর ম্যাচসেরাও নির্বাচিত হয়েছেন স্মিথ।

বাংলাদেশ সময়: ১৯০৪ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৭, ২০২০
এমএইচএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa