ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ মাঘ ১৪২৯, ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৫ রজব ১৪৪৪

বইমেলা

বইমেলায় লেখক ‘সাকিব’ উন্মাদনা 

শরিফুল ইসলাম জুয়েল, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১০৫৬ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৫, ২০১৮
বইমেলায় লেখক ‘সাকিব’ উন্মাদনা  সাকিব ঢুকতেই শুরু হয় ভক্তদের উন্মাদনা/ছবি: বাদল

ঢাকা: তাকে একনজর দেখার জন্য শত শত মানুষের ভিড় ঠেলে ভিতরে ঢুকেছি। একটা ছবি তোলার জন্য কি না করলাম! সবাইকে অনুরোধ করেছি, কেউ সুযোগ দেয় না। পরে অনেক কষ্টে ভিতরে ঢুকতে পেরেছি। গিয়ে আবার পুলিশ দাঁড়াতে দেয় না। তাদের বলেছি আঙ্কেল খালি একটা ছবি তুলে বের হয়ে যাবো। পরে দূর থেকে একটাই ছবি তুলতে পেরেছি। আমরা সার্থক!

ঢাকা সিটি কলেজের বিবিএ’র ছাত্রী তিথি আর মিতুর এ সার্থকতা বিশ্ব ক্রিকেটের তারকা, নাম্বার ওয়ান অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান দর্শনের। টাইগার ক্রিকেটার সাকিবকে এক পলক দেখতে শত শত তরুণ-তরুণীর এই উন্মাদনা ঠেকাতে পুলিশও যেন নাভিশ্বাস।


 
সোমবার (৫ ফেব্রুয়ারি) পার্ল পাবলিকেশন্সের স্টলে শত শত দর্শকের ভিড়। এদিন শুরু থেকেই পুরো মেলায় উৎসবের আমেজ আর দর্শক উন্মাদনা যেন সাকিব আল হাসানকে ঘিরে। সেখানে বইপ্রেমী মানুষের সঙ্গে যোগ হয়েছিল সাকিব আল হাসানের ভক্তদের লম্বা লাইনও। মেলায় সাকিবের উপস্থিতি কিন্তু লেখক হিসেবে, ক্রিকেটার নয়!
 
অটোগ্রাফ ও সেলফি শিকারিদের কবলে সাকিবঅমর একুশে গ্রন্থমেলায় সোমবার (৫ ফেব্রুয়ারি) সাকিব এসেছেন পার্ল পাবলিকেশন্স থেকে প্রকাশিত নিজের লেখা প্রথম বই ‘হালুম’ নিয়ে।
 
এদিন বিকেল ৩টার দিকে বইমেলার ৬ নম্বর প্যাভিলিয়নে পার্ল পাবলিকেশন্সের স্টলে বইটির মোড়ক উন্মোচন করেন সাকিব।  

এরআগে গতকাল রোববার (৪ ফেব্রুয়ারি) রাতে নিজের ফেসবুক পেজে স্ট্যাটাস ও ভিডিও পোস্টে এ তথ্য দেন সাকিব আল হাসান।
 
এ খবর শুনে হুড়োহুড়ি পড়ে যায় পার্ল পাবলিকেশন্সের স্টলের সামনে। সাকিব পৌঁছানোর আগেই জমতে থাকে শত ভক্তের লম্বা লাইন।
 
ঢাকা কলেজের এইচএসসি দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র অটুট চাকমা বাংলানিউজকে বলেন, আমরা কাল রাতে ফেসবুকে দেখেছিলাম আজ সাকিব আসবেন। এজন্য অনেক আগে থেকে এসে স্টলের সামনে বড় ভাই আর আমি দাঁড়িয়ে ছিলাম। দু’টি বই নিয়েছি। বড় ভাই আবার বন্ধুদের জন্য বই নিতে ভিতরে গেছেন।
 
সাকিবের সঙ্গে সেফলি তুলে আপ্লুত ২ শিক্ষার্থীনিজের লেখা বই ‘হালুম’ এ সাকিব বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার হওয়ার গল্প বলেছেন। মা-বাবাকে উৎসর্গ করা এ বইয়ে সাকিব সবার উদ্দেশ্যে বলেন, ‘রয়েল বেঙ্গল টাইগার যেভাবে আমাদের দেশকে সম্মানের সঙ্গে প্রতিনিধিত্ব করে, আমরা সবাই যেন সেই বাঘের মতো বাংলাদেশকে প্রতিটা ক্ষেত্রে প্রতিনিধিত্ব করতে পারি। আমি বিশ্বের এক নম্বর অলরাউন্ডার হতে পেরেছি, তোমরাও চাইলে বিশ্ব জয় করতে পারবে। ’

পার্লের প্যাভিলিয়নে বসে সাকিবকে বিরতিহীনভাবে অটোগ্রাফ দিতে দেখা গেছে। শ্রীলঙ্কা সিরিজের ফাইনালের আগের ম্যাচে বাঁ হাতের আঙুলের চোট এখনও স্পষ্ট। ব্যান্ডেজ করা হাত উঁচিয়েই অটোগ্রাফ দিতে দেখা গেছে সাকিবকে।
 
প্রগতি প্রেস অ্যান্ড পাবলিকেশন্স থেকে মুদ্রিত বইটির মূল্য ধরা হয়েছে ২শ ৫০ টাকা। মেলায় সাকিবের অটোগ্রাফসহ বইটি ১শ ৯০ টাকায় বিক্রি করছে পার্ল পাবলিকেশন্স।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৪৫ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ০৫, ২০১৮
এসআইজে/এএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa