ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩ কার্তিক ১৪২৮, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

আওয়ামী লীগ

‘সরকারের যে কোনো কাজের সমালোচনা করাই এখন বিএনপির ব্রত’

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭০২ ঘণ্টা, জুন ১৩, ২০২০
‘সরকারের যে কোনো কাজের সমালোচনা করাই এখন বিএনপির ব্রত’

ঢাকা: করোনা ভাইরাসের সংকটকময় পরিস্থিতিতে ২০২০-২১ অর্থবছরের অর্থনৈতিক উন্নয়নের বাজেট নিয়ে বিএনপি গতানুগতিক সমালোচনার বৃত্তে আবর্তিত হচ্ছে বলে উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সরকারের যে কোনো কাজের সমালোচনাকে বিএনপি ব্রত হিসেবে বেছে নিয়েছে। 

শনিবার (১৩ জুন) সরকারি বাসভবন থেকে দেওয়া নিয়মিত ব্রিফিংয়ে এ সব কথা বলেন তিনি। বাজেট নিয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় এ মন্তব্য করেন কাদের।

 

মন্ত্রী বলেন, পরিবর্তিত পরিস্থিতি বিবেচনায় রেখে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বাজেটের গঠনমূলক সমালোচনা করলে সেটা বাস্তবসম্মত হতো। কিন্তু তিনি তা না করে আগেভাগেই ঠিক করে রাখা, মনগড়া, গতানুগতিক প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। মির্জা ফখরুল বাজেটে স্বাস্থ্য খাতে জিডিপির ৫ শতাংশ বরাদ্দের কথা বলেছেন। কিন্তু বাজেট বাস্তবায়নের সক্ষমতার কথা বিবেচনায় থাকলে তিনি এত সহজে এভাবে বলতে পারতেন না। রাজনৈতিক বিবেচনায় আকস্মিকভাবে আউট অব বক্স কোনো বরাদ্দ দিলে সেটা চোখ ধাঁধানো হলেও বাস্তবসম্মত নয়।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, বৈশ্বিক সংকটময় পরিস্থিতিতে শেখ হাসিনার সরকার গণমুখী বাজেট উপস্থাপন করেছে। সংকটকালে মানুষের আত্মবিশ্বাস বৃদ্ধি ও অর্থনৈতিক উত্তরণের এ বাজেট নিয়ে বিএনপি গতানুগতিক সমালোচনার বৃত্তে আবর্তিত হচ্ছে। গণমানুষের আকাঙ্ক্ষা, মনের ভাষা শেখ হাসিনা বুঝতে পারেন। তাই মানুষের সুরক্ষার পাশাপাশি অর্থনীতি পুনরুদ্ধারের মাধ্যমে অভীষ্ট লক্ষ্য অর্জনের পথে প্রামাণ্য উপস্থাপনা এই বাজেট।

‘আসলে বিএনপি শুধু বাজেটই নয়, সরকারের যে কোনো কাজের সমালোচনাকে ব্রত হিসেবে বেছে নিয়েছে। দেশের সংকটকালে সাধারণ ছুটির মধ্যে এত বড় একটি বাজেট প্রণয়ন ও উপস্থাপন করে সরকার যে সক্ষমতার পরিচয় দিয়েছে তার প্রশংসা করতে বিএনপি নিদারুণ কৃপণতার পরিচয় দিয়েছে। সমালোচনার জন্য সমালোচনা না করে জনহিতকর কাজে ও বাজেট বাস্তবায়নে আমরা বিএনপিসহ সবার সহযোগিতা কামনা করছি। ’

কাদের বলেন, করোনা সংকট মোকাবিলায় শুধু স্বাস্থ্য খাতই নয়, এর পাশাপাশি অন্য সব খাতকেও গুরুত্ব দিয়েছে সরকার। করোনা প্রতিরোধের অংশ হিসেবে বিভিন্ন খাতে নতুন নতুন কিছু প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে, যেগুলো বাজেটে দেখানো সম্ভব হয়নি। করোনা ভাইরাসের প্রভাব কাটিয়ে উঠতে বাজেটের বাইরে এসব প্রকল্পে বিশেষ বরাদ্দের ব্যবস্থা রেখেছে সরকার।  

বাজেটে কালো টাকা সাদা করার প্রস্তাব নিয়ে সমালোচনা প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, এবারের বাজেটে নির্দিষ্ট হারে অপ্রদর্শিত আয়ে কর দিয়ে সেসব নিয়মিত করার সুযোগ দেওয়ায় কিছু গতানুগতিক সমালোচনা পরিলক্ষিত হচ্ছে। যারা সমালোচনা করছেন তারা নির্দিষ্ট কিছু এজেন্ডা সামনে রেখেই আসলে সমালোচনা করেন। অন্যদিকে সরকার বাস্তবতার নিরিখেই জাতীয় অর্থনীতির সুনির্দিষ্ট কতিপয় খাতে বিনিয়োগের সুযোগ রেখেছে। অর্থনীতির সব খাতে এ সুযোগ দেয়া হয়নি।
 
বাংলাদেশ সময়: ১৭০০ ঘণ্টা, জুন ১৩, ২০২০
এসকে/এইচজে

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa