ঢাকা, রবিবার, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২২ মে ২০২২, ২০ শাওয়াল ১৪৪৩

এভিয়াট্যুর

ঢাকা-কলকাতা রুটে ইউএস-বাংলা ডানা মেলছে বৃহস্পতিবার

নিউজ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১৪৪ ঘণ্টা, নভেম্বর ৩০, ২০১৬
ঢাকা-কলকাতা রুটে ইউএস-বাংলা ডানা মেলছে বৃহস্পতিবার ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

বৃহস্পতিবার (০১ ডিসেম্বর) থেকে ঢাকা-কলকাতায় রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করতে যাচ্ছে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স। এর মধ্য দিয়ে এয়ারলাইন্সটি তাদের তৃতীয় আন্তর্জাতিক গন্তব্যে ফ্লাইট উড়াচ্ছে।

ঢাকা: বৃহস্পতিবার (০১ ডিসেম্বর) থেকে ঢাকা-কলকাতা রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করতে যাচ্ছে দেশের অগ্রসরমান বেসরকারি বিমান পরিবহন সংস্থা ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স। এর মধ্য দিয়ে এয়ারলাইন্সটি তাদের তৃতীয় আন্তর্জাতিক গন্তব্যে ফ্লাইট উড়াচ্ছে।

 

 সাশ্রয়ী ভাড়ায় এ রুটে সপ্তাহে প্রত্যেকদিন ফ্লাইট চালানো হবে বলে বুধবার (৩০ নভেম্বর) এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে ইউএস-বাংলা।

 

এতে বলা হয়, ঢাকা থেকে সপ্তাহে প্রতিদিন সকাল ১১টা ৪০মিনিটে কলকাতার উদ্দেশে ফ্লাইট ছেড়ে যাবে। স্থানীয় সময় দুপুর ১২টায় কলকাতায় পৌঁছানোর পর ১২টা ৫০ মিনিটে ঢাকার উদ্দেশে কলকাতা ছাড়বে।

ঢাকা-কলকাতা রুটে ইকোনমি ক্লাসে ওয়ানওয়ের জন্য সর্বনিম্ন ভাড়া ৫ হাজার ৯৯৯ টাকা, রিটার্ন ভাড়া ৯ হাজার ৯৯৯ টাকা। এ ভাড়াতেই সব ধরনের ট্যাক্স ও সারচার্জ অন্তর্ভ‍ুক্ত।

ভারতের অন্যতম গন্তব্য কলকাতায় ঢাকা থেকে ১৫৮ আসনের বোয়িং ৭৩৭-৮০০ এয়ারক্রাফট দিয়ে ফ্লাইট চালাচ্ছে চালাবে ইউএস-বাংলা।

প্রতিষ্ঠানটির বহরে নতুন যুক্ত হওয়া বোয়িং ৭৩৭-৮০০ এয়ারক্রাফটে ৮টি বিজনেস ক্লাস, ১৫০টি প্রিমিয়াম ইকোনমি ও ইকোনমি ক্লাসের আসন রয়েছে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে নানাবিধ দ্বি-পক্ষীয় সম্পর্ক রয়েছে। এ সম্পর্ককে আরও বেগবান করার প্রত্যয়ে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স ঢাকা-কলকাতা-ঢাকা রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করতে যাচ্ছে।

এতে ঢাকা-কলকাতা ভ্রমণকারী পর্যটক, ব্যবসায়ী, শিক্ষার্থী, রোগী ও তাদের স্বজনরা আগের চেয়ে আরও বেশি স্বাচ্ছন্দ্যে যাতায়াত করতে পারবেন। উন্নত যাত্রীসেবার প্রত্যয়ে শিগগির চট্টগ্রাম থেকে কলকাতা রুটেও ফ্লাইট চালুর পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

২০১৪ সালের ১৭ জুলাই ঢাকা-যশোর-ঢাকা রুটে ফ্লাইট চালানোর মধ্য দিয়ে যাত্রা করে ইউএস-বাংলা। যাত্রার পর থেকে সংস্থাটির ফ্লাইট পরিচালনার রেকর্ড ৯৮ দশমিক ৭ শতাংশ। এ পর্যন্ত ১৮ হাজার ফ্লাইট চালিয়েছে এয়ারলাইন্সটি, যা দেশের এভিয়েশন শিল্পে একটি অনন্য রেকর্ড।

এদিকে দেশের বেসরকারি এয়ারলাইন্সের মধ্যে শুধু ইউএস-বাংলারই নিজস্ব ক্যাটারিং সুবিধা রয়েছে। ২০১৫ সালে অভ্যন্তরীণ রুটে ‘বেস্ট এয়ারলাইন অব দ্য ইয়ার’ অ্যাওয়ার্ড অর্জন করে এয়ারলাইন্সটি।
 
বর্তমানে অভ্যন্তরীণ ৮টি ছাড়াও আন্তর্জাতিক গন্তব্য কাঠমান্ডু ও মাস্কাটসহ মোট ১০টি রুটে উড়ছে ইউএস-বাংলার প্লেন।

ইউএস-বাংলা জানায়, অচিরেই সিঙ্গাপুর, কুয়ালালামপুর, ব্যাংকক, গুয়াংজু, দোহা রুটে ফ্লাইট চালু করা হবে। এয়ারলাইন্সটির প্লেন বহরে দু’টি বোয়িং ৭৩৭-৮০০ ও তিনটি ড্যাশ ৮-কিউ ৪০০ এয়ারক্রাফটসহ মোট পাঁচটি এয়ারক্রাফট রয়েছে। শিগগির আনা হচ্ছে আরও একটি বোয়িং ৭৩৭-৮০০ এয়ারক্রাফট।

দেশের দু’টি বিমানবন্দরে মাত্র ১০ মিনিটের মধ্যেই যাত্রীদের লাগেজ ডেলিভারি দিয়ে নজির স্থাপন করেছে ইউএস-বাংলা।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৩৫ ঘণ্টা, নভেম্বর ৩০, ২০১৬
পিআর/এমএ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa