ঢাকা, সোমবার, ১৩ আষাঢ় ১৪২৯, ২৭ জুন ২০২২, ২৭ জিলকদ ১৪৪৩

এভিয়াট্যুর

এনার্জেটিক-ডায়নামিক এমডি’র খোঁজে বিমান

সাজেদা সুইটি, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮৪৩ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১১, ২০১৬
এনার্জেটিক-ডায়নামিক এমডি’র খোঁজে বিমান

ঢাকা: আরও ‘এনার্জেটিক’ ও ‘ডায়নামিক’ এমডি ( ব্যবস্থাপনা পরিচালক) খুঁজছে রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স।

কেবল চাকরি হিসেবেই নয়, সত্যিকারের পেশাদারিত্বে ভালোবেসে যিনি কাজগুলো করবেন, এমন একজনকেই এমডি পদে চাইছে সরকার।

আর অবশ্যই তার থাকা চাই- অভিজ্ঞতা ও ভিশন।

নিয়মানুসারে, রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী বিমানের এ পদটি খালি থাকবে না বেশিদিন। এ মাসের মধ্যেই নতুন বোর্ড (বিমান পরিচালনা পর্ষদ) হবে। পুরনো বোর্ড পুনর্বহালের সিদ্ধান্ত যদি আসে, তাও এ মাসের মধ্যেই হতে হবে। নতুন বোর্ডই আলোচনা করে নতুন এমডি নিয়োগ দেবে।

এসব তথ্য জানালেন বর্তমান বোর্ডের সদস্য ও বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন।

রোববার (১০ জানুয়ারি) এমডি পদ থেকে কাইল হেইডের বিদায়ের পর নতুন এমডি কে হচ্ছেন? কেমন হচ্ছেন?- তা নিয়ে আলোচনা শুরু হয়েছে।

‘কে হচ্ছেন’ না বলতে পারলেও ‘কেমন হচ্ছেন’-এর জবাবে শর্তগুলো জানালেন রাশেদ খান মেনন।

সোমবার (১১ জানুয়ারি) দুপুরে সচিবালয়ে তার কক্ষে বাংলানিউজ ও একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলের সঙ্গে আলাপ করছিলেন তিনি।

মন্ত্রী বলেন, রোববার দুপুরে হেইড একটি মেইল পাঠান। সেটিতে পদত্যাগের বিষয়টি জানিয়েছেন তিনি। হেইড ক্যান্সারে ভুগছেন। অসুস্থতার কারণে এ পদের মেয়াদ বাড়াতে চান না বলে মেইলে উল্লেখ করেছেন তিনি।

হেইডের পাঠানো মেইলের সারসংক্ষেপও জানান মন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘হেইড লিখেছেন- আমি অসুস্থ। পরিবারের কাছ থেকে আর বিচ্ছিন্ন থাকার শক্তি পাচ্ছি না। তাই এ পদে আমার মেয়াদ বাড়ানোর চুক্তি করতে পারছি না। চুক্তির শর্তগুলো পালনের মতো সুস্থ নেই আমি’।

কাইল হেইডের বিদায়ে বিমানের কাজে কোন ব্যাঘাতের ন্যূনতম আশঙ্কাও নেই বলে জানান রাশেদ খান।

তিনি বলেন, আগে থেকেই তিনি অসুস্থ বলে সেভাবে কাজ পাচ্ছিলাম না তার কাছ থেকে। আমরা যারা বোর্ডে আছি, এসব নিয়ে আলোচনাও করেছি।

তিনি অসুস্থতার কারণে সারা বছরে দীর্ঘসময় ছুটিতে ছিলেন। তাই কোন আহামরি ভূমিকা, পারফর্মেন্স দেখাতে পারেননি পুরো মেয়াদে। পদটি এক বছরের চুক্তিভিত্তিক। পারফর্মেন্স ভালো দেখালে চুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর সুযোগ আছে।

এদিকে খবর পাওয়া গেছে, এমডি পদে আগ্রহী ৩৭ জন ইতোমধ্যে সিভি জমা দিয়েছেন। তার মধ্যে বাংলাদেশি রয়েছেন ৩ জন। তাদের মধ্যে মোসাদ্দেক আলীর নামও শোনা গেছে।  

বিমানের প্রথম বিদেশি এমডি কেভিন স্টিলের যোগদানের আগে ও পদত্যাগের পরে ভারপ্রাপ্ত প্রধান নির্বাহী ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে বিমানে কাজ করেছেন মোসাদ্দেক আহমেদ। মন্ত্রী অবশ্য এসব বিষয়ে নিশ্চিত কিছু জানেন না বলে জানালেন।

তিনি বলেন, কতজন বা কারা সিভি দিয়েছেন, তা এখনো আমি নিশ্চিত করে বলতে পারছি না। তবে যারাই আগ্রহী থাকুন, এটুকু বলবো- নতুন এমডি হবে খুব এনার্জেটিক ও ডাইনামিক। তার অভিজ্ঞতা ও ভিশন থাকতে হবে। চাকরি হিসেবে না করে, তাকে এ কাজ সত্যিকারের পেশাদার হিসেবে ভালোবেসে করতে হবে।  

আর এক্ষেত্রে দেশী, নাকি বিদেশি- সেসবও গণ্য হবে না বলে জানান তিনি। মন্ত্রী বলেন, বিদেশ থেকে নিয়ে এলেই যে তিনি খুব আহামরি কাজের হবেন- তা নয়। যিনি ভালো পারফর্ম করবেন বলে বোর্ড মনে করবে, তাকেই করা হবে এমডি।

কাইল হেইড ছিলেন বাংলাদেশ বিমানের দ্বিতীয় বিদেশি এমডি। প্রথম এমডি ছিলেন কেভিন জন স্টিল। তারা দু্জন পরস্পরের বন্ধু। কেভিনও এক বছর মেয়াদ শেষে পদত্যাগ করেছিলেন। তার ক্ষেত্রেও অসুস্থতাই মূল কারণ দেখিয়েছিলেন।

জানা গেছে, কাইল ক্যান্সারে ভুগছেন এবং কেভিন ভুগছিলেন যক্ষ্মা ও মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণজনিত সমস্যায় (স্ট্রোক)। একবার বিমানের পরিচালনা পর্ষদের সভায় হঠাৎ সংজ্ঞাহীনও হয়ে পড়েছিলেন কেভিন।

তাই বলাবলি হচ্ছে, বিমানের এমডি পদে বেশি অভিজ্ঞ খুঁজতে গিয়ে বেশি বয়স্কদের নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে বলেই এমন সমস্যা হচ্ছে।

এ প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, আসলে তাদের অসুস্থতা বার্ধক্যজনিত ছিল না। তারা যে রোগে ভুগছিলেন, তা বয়সের ওপর নির্ভর করে না।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৩৭ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১১, ২০১৬
এসকেএস/আরআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa