ঢাকা, শনিবার, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ১৮ মে ২০২৪, ০৯ জিলকদ ১৪৪৫

এভিয়াট্যুর

বছর শেষে কলম্বো-গুয়াংজুতে পাখা মেলবে বিমান

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৬৩০ ঘণ্টা, এপ্রিল ৬, ২০১৫
বছর শেষে কলম্বো-গুয়াংজুতে পাখা মেলবে বিমান

ঢাকা: বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের রুট পরিকল্পনায় ব্যাপক পরিবর্তন আনা হচ্ছে। লোকসানি রুটসমূহ বন্ধের পাশাপাশি লাভজনক রুটসমূহে ফ্লাইট বাড়ানো শুরু করেছে রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী এয়ারলাইন্স।

একই সঙ্গে সম্ভাবনাময় নতুন রুটে ফ্লাইট চালুর পরিকল্পনা নিয়ে এগোচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি।  
 
এরই অংশ হিসেবে ঢাকা-কলম্বো ও ঢাকা-গুয়াংজু রুটে ফ্লাইট পরিচালনার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। বিমান সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।   
 
বিমানের মার্কেটিং বিভাগের এক কর্মকর্তা বাংলানিউজকে বলেন, এ দু’টি রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করে লাভ করা সম্ভব। কারণ, এসব রুটে প্রচুর সংখ্যক যাত্রী রয়েছে। শ্রীলংকার অনেক ব্যবসায়ী, গার্মেন্টস কর্মকর্তারা নিয়মিত ঢাকা-কলম্বো যাতায়াত করেন। এছাড়া, মালদ্বীপে প্রবাসী বাংলাদেশিরা রয়েছেন।   
 
ঢাকা-কলম্বো রুটে বর্তমানে মিহিন লংকা ফ্লাইট পরিচালনা করছে। এটি শ্রীলংকার রাষ্ট্রীয় এয়ারলাইন্স ‘শ্রীলংকান’ এর অঙ্গ প্রতিষ্ঠান। এই রুটে সপ্তাহে পাঁচটি ফ্লাইট পরিচালনা করছে তারা। খুব শিগগিরই তারা ফ্লাইট সংখ্যা সাতটিতে উন্নীত করবে বলে জানা গেছে।   
 
অথচ মিহিন লংকার আগে বিমানই এ রুটে ফ্লাইট পরিচালনার উদ্যোগ নিয়েছিল। অন্যদিকে মালদিভিয়ান এয়ার ভারতের দক্ষিণের শহর থিরুভানানথাপুরাম হয়ে মালেতে ফ্লাইট পরিচালনা করছে।  
 
ব্যবসা সূত্রে চীনে বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের যাতায়াত বেড়েছে। তেমনি চীনের বিনিয়োগকারীরাও ব্যবসার খাতিরে এদেশে আসছে। ড্রাগনএয়ার, চায়নাসাউদার্ন ও চায়না ইস্টার্নের প্রচুর সংখ্যক ফ্লাইট ঢাকা থেকে যাত্রী নিয়ে যাচ্ছে। প্রতিটি ফ্লাইটই যাত্রীপূর্ণ থাকছে।
 
এসব রুটে ফ্লাইট পরিচালনা করলে বিমান প্রচুর সংখ্যক যাত্রী পাবে। যা ব্যবসার প্রসার ঘটাবে বলে মনে করছেন বিমানের মার্কেটিং বিভাগের আরেক কর্মকর্তা। এই রুটেও বিমানে অনেক আগে থেকেই ফ্লাইট পরিচালনার উদ্যোগ নিয়েছিল। কিন্তু কলম্বো কিংবা গুয়াংজু রুটে বিমানের ফ্লাইট শুরুর আগেই মালদিভিয়ান, মিহিন লংকা, ড্রাগনএয়ার, চায়নাসাউদার্ন ও চায়না ইস্টার্ন ব্যবসা করছে।
 
নতুন ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেব কাইল হেউড বিমানে যোগ দেওয়ার পর পরিকল্পনাগুলোতে গতি আসে। বিমান সূত্র জানায়, বছরের শেষের দিকেই কলম্বো ও গুয়াংজু রুটে পাখা মেলবে বিমান। ইতোমধ্যেই এ দু’টি রুটে বিমানের মার্কেটিং বিভাগের একাধিক কর্মকর্তা ঘুরে এসেছেন। এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষ মার্কেটিং রিসার্চের কাজও সম্পন্ন করেছে।
 
 সূত্র জানায়, মার্চ মাসেই কাইল সৌদি আরবের রিয়াদ, জেদ্দা, দাম্মাম, কুয়ালালামপুর, কলকাতা রুটসমূহে ফ্লাইট সংখ্যা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। অন্যদিকে ১০ এপ্রিল বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে লোকসানি ঢাকা-রোম ফ্লাইট।
 
রুট পরিকল্পনার অংশ হিসেবে সৌদি আরবের প্রধান তিনটি শহর রিয়াদ, জেদ্দা, দাম্বামে বাড়তি ফ্লাইট যুক্ত হতে যাচ্ছে, বাড়ছে কুয়ালালামপুরের ফ্লাইট সংখ্যা। ভারতের কলকাতায় প্রতি সপ্তাহে ১৪ বার সংযুক্ত হতে যাচ্ছে বিমান। ঢাকা-কলকাতা রুটে প্রতি সপ্তাহে ১২টি ফ্লাইট পরিচালনা করা হবে।  
 
এ বিষয়ে বিমানের চেয়ারম্যান এয়ার মার্শাল (অব:) জামাল উদ্দিন আহমেদ বাংলানিউজকে বলেন, লোকসানি রুট বন্ধ করা, লাভজনক রুটে ফ্লাইট সংখ্যা বাড়ানো, সেই সঙ্গে নতুন রুট খোলা এয়ারলাইন্সের ব্যবসায়িক স্ট্রাটেজিরই অংশ।   
 
বাংলাদেশ সময় ০৬৩১ ঘন্টা, এপ্রিল ৬, ২০১৫ 
আইএইচ/এমজেড

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।