ঢাকা, সোমবার, ১৮ আশ্বিন ১৪২৯, ০৩ অক্টোবর ২০২২, ০৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

শিল্প-সাহিত্য

বইমেলায় আসছে ‘রোদনভরা ভালোবাসা’

হারুন-অর-রশীদ, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭০৬ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০২২
বইমেলায় আসছে ‘রোদনভরা ভালোবাসা’ রোদনভরা ভালোবাসা

ফরিদপুর: অমর একুশে গ্রন্থমেলা-২০২২ এ প্রকাশিত হচ্ছে লেখক ড. আবুল কালাম আজাদের উপন্যাস ‘রোদনভরা ভালোবাসা’। বইটি প্রকাশ করছে ‘ইন্তামিন প্রকাশনী’।

ড. আবুল কালাম আজাদ দেশ মাটি ও মানুষের প্রতি একজন উদ্দীপ্ত লেখক। বর্তমানে তিনি দক্ষিণবঙ্গের অন্যতম নারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ফরিদপুরের সরকারি সারদা সুন্দরী মহিলা কলেজের সহকারী অধ্যাপক হিসেবে কর্মরত আছেন। তবে শিক্ষকতার পাশাপাশি তিনি নিয়মিত ছোট গল্প, কবিতা ও প্রবন্ধ লিখে চলেছেন। এটিই তার প্রথম উপন্যাস।

লেখকের কাছ থেকে জানা যায়, ‘রোদনভরা ভালোবাসা’ উপন্যাসের গল্পের প্রধান চরিত্র হিমেল। কলেজের শিক্ষার্থী থাকা অবস্থাতেই তার জীবনে আসে হীরা। এরপর সুখের সময়ের পাশাপাশি আসে দুঃখ গাঁথাও। যেন শেষ পর্যন্ত সফল হওয়ায় তার প্রধান ধ্যান। তবে হিমেল তার সেই কাঙ্খিত প্রেমকে সফল করতে পারবে কি না, তাই নিয়েই এগিয়ে যায় গল্পের কাহিনী। যা একটি নির্দিষ্ট সময়ে গিয়ে হিমেল উপলব্ধি করে নিজের কাছেই স্মৃতিচারণ করে এবং এটাকে আঁকড়ে ধরেই সে বাঁচতে চাই।

ড. আবুল কালাম আজাদ বলেন, কর্ম মানুষের জীবনের বেঁচে থাকার অবলম্বন, আর লেখালেখি হলো মানুষের আত্মার খোরাক। তাইতো নিজের কাজের মধ্য থেকেও লেখার জন্য একটু সময় বের করে নেই এবং লিখি। এছাড়া সবার অনুপ্রেরণায় লেখালেখিটা আরও সদূরপ্রসারী হবে বলে আশা করি।

‘রোদনভরা ভালোবাসা’ উপন্যাস প্রসঙ্গে ইন্তামিন প্রকাশনীর প্রকাশক এসএম ইউনুস বলেন, এটি লেখকের প্রথম উপন্যাস হলেও আশা করি এটি বেশ পাঠক প্রিয়তা পাবে। আশা করছি বইমেলায় ভালো বিক্রিও হবে। বর্তমান সময়ের নতুন যেকোনো লেখকের তুলনায় ‘রোদনভরা ভালোবাসা’ উপন্যাসটি বেশ নান্দনিক। বইটি পাওয়া যাবে বইমেলায় ইন্তামিন প্রকাশনীর ১১৭ ও ১১৮ নম্বর স্টলে।

ড. আবুল কালাম আজাদের জন্ম চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা থানার কুনিয়া গ্রামে। তিনি ১৯৭৮ সালের ০১ জানুয়ারি এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। এছাড়া তিনি কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনার্স-মাস্টার্স এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) থেকে এমফিল ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) থেকে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন। পরে তিনি বিভিন্ন কলেজে শিক্ষকতা শেষে বর্তমানে ফরিদপুরের ঐতিহ্যবাহী সরকারি সারদা সুন্দরী মহিলা কলেজের বাংলা বিভাগে সহকারী অধ্যাপক  হিসেবে কর্মরত আছেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৭০০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০২২
এইচএমএস/এসআরএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa