ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ১৬ রবিউস সানি ১৪৪২

শিল্প-সাহিত্য

মননের বিশ্লেষণ ‘মননের মধু’

শিল্প-সাহিত্য ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৪৬ ঘণ্টা, জুলাই ১৭, ২০১১
মননের বিশ্লেষণ ‘মননের মধু’

আমাদের ছোটগল্প কতখানি এগিয়েছে? ছোটগল্প কি মরে যাচ্ছে, নাকি ছোটগল্প বলতে প্রচলিত যে সংজ্ঞা রয়েছে সময়ের সাথে সাথে তার বদল ঘটেছে। ছোটগল্প কি বিষয়-বৈচিত্র্য বা আঙ্গিকে আজ অনেক দূর এগিয়ে আসেনি? বাংলা উপন্যাসেরই বা অবস্থা কি? আমাদের কথাসাহিত্য কতখানি প্রবেশ করেছে জীবনের গভীরে আর কতখানি কেবল বাস্তব অবস্থার উপরিভাগ নিয়ে কাজ করেছে?- এসব প্রশ্নকে সামনে রেখেই যেন লিখিত হয়েছে প্রবন্ধের বই ‘মননের মধু’।



বইটির লেখক সত্তর দশকের অন্যতম কথাসাহিত্যিক সুশান্ত মজুমদার। বইটিতে মোট ১৩ টি প্রবন্ধ রয়েছে। সুশান্ত মজুমদার প্রবন্ধগুলিতে সাহিত্যিক দৃষ্টিভঙ্গি থেকে তার অগ্রজ কথাসাহিত্যিক ও তাদের সাহিত্যে প্রবেশ করে ধরতে চেয়েছেন তাদের সৃজনশীল সাহিত্যকর্মের বিবিধ রূপান্তর। বিশেষ করে কথাসাহিত্যিকদের দেশকাল, সজ্ঞানতা, চরিত্রের মনস্ততত্ত্ব খনন, তাদের লিপিকৌশল তিনি বিশ্লেষণের প্রয়াস নিয়েছেন।
 
বইটির শুরুতেই রয়েছে ‘ছোটগল্প : কত দূর কনিষ্ঠ সন্তান’ শিরোনামের একটি প্রবন্ধ। এখানে তিনি ছোটগল্পের বিভিন্ন বাক বদলকে বিশ্লেষণ করতে গিয়ে বিষয় হিসেবে বেছে নিয়েছেন বাংলাদেশের স্বাধীনতার পূর্বাপর কথাসাহিত্য ও সময়জয়ী উজ্জ্বল কথাসাহিত্যিকদের।

এছাড়া ‘উপন্যাস : মনোরঞ্জন প্রকল্প’  নামক এক প্রবন্ধে তিনি কথা বলেছেন প্রতি বছর ঈদসংখ্যা ও শারদীয় সংখ্যায় লিখিতি হওয়া উপন্যাস নিয়ে। প্রশ্ন তুলেছেন এক দশকে বছর বছর এভাবে বাজারিভাবে লিখিত হওয়া উপন্যাসের মধ্যে স্মরণযোগ্য কালজয়ী উপন্যাস কেথায়? তাছাড়া ঈদসংখ্যা বা শারদীয়া সংখ্যায় ছাপা হয়নি এমন উপন্যাস কি পাঠকরা মনে রাখেননি। সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহর ‘লাল সালু’, শওকত ওসমানের ‘জননী’, আবু ইসহাকের ‘সূর্যদীঘল বাড়ি’, আখতারুজ্জামান ইলিয়াসের ‘চিলেকোঠার সেপাই’ বা ‘খোয়াবনামা’ তো কোনো বিশেষ সংখ্যায় ছাপা হয়নি কিন্তু পাঠক তো মনে রেখেছেন। তাহলে ঈদ উপন্যাস কেন মনে থাকে না?

বইটিতে স্থান পেয়েছে শক্তিমান সাহিত্যিক মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়ের জীবনী ও রচনার প্রসঙ্গ। এছাড়াও রয়েছে  বাংলাদেশের গল্প-উপন্যাসের ক্রমবিকাশ, কথাসাহিত্যের বিভিন্ন আখ্যান এবং আঙ্গিকের বিভিন্ন পরিবর্তন নিয়ে  গুণমানের বস্তুনিষ্ঠ আলোচনা। যেখানে তিনি বিশ্লেষণ করেছেন মনিক বন্দ্যোপাধ্যায়, সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহ, শওকত ওসমান, শওকত আলী, হাসান আজিজুল হক, আখতারুজ্জামান ইলিয়াস, কায়েস আহমেদ, জ্যোতিপ্রকাশ দত্ত ও শহীদুল জহিরের কথাসাহিত্য ও তাদের সময় নিয়ে।

এ বইয়ের প্রবন্ধগুলি ভবিষ্যৎ লেখকদের চিন্তা ও দৃষ্টিভঙ্গি গঠনে কিছুটা হলেও ভূমিকা রাখতে পারবে বলে আশা করা যায়।

সুশান্ত মজুমাদারের ‘মননের মধু’ প্রকাশিত হয় ২০১০ সালের ফেব্রুয়ারিতে। বইটি প্রকাশ করেছে শুদ্ধস্বর, প্রচ্ছদ এঁকেছেন কাইয়ুম চৌধুরী, মূল্য ৩২৫ টাকা।

বাংলাদেশ সময় ১৬৩০, জুলাই ১৭, ২০১১

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa