ঢাকা, শনিবার, ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ২৬ নভেম্বর ২০২২, ০১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

কৃষি

রাজবাড়ীতে এবার ৭৫৭ কোটি টাকার পাট বিক্রির সম্ভাবনা

কাজী আব্দুল কুদ্দুস, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৩০ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ৭, ২০২২
রাজবাড়ীতে এবার ৭৫৭ কোটি টাকার পাট বিক্রির সম্ভাবনা

রাজবাড়ী: রাজবাড়ী জেলার পাটের সুনাম দেশজুড়ে। রাজবাড়ী জেলার উৎপাদিত পাট রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় বিক্রি হয়।

এ বছর রাজবাড়ীতে ৭৫৭ কোটি ৫১ লাখ ২০ হাজার টাকার পাট বিক্রি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর।

রাজবাড়ী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক এস এম সহীদ নূর আকবর জানান, চলতি বছর রাজবাড়ীতে ৪৯ হাজার ৮২২ হেক্টর জমিতে উচ্চফলনশীল পাটের চাষাবাদ হয়েছে। এরই মধ্যে চাষিরা পাট কেটে জাগ দিয়ে পাটের আঁশ ছাড়িয়ে রোদে শুকিয়ে তা বিভিন্ন হাট বাজারে বিক্রি শুরু করেছেন। জেলায় এ বছর হেক্টর প্রতি উৎপাদন হয়েছে ৫৬ মণ পাট। সে হিসেবে ৪৯ হাজার ৮২২ হেক্টর জমিতে পাট উৎপাদন হয়েছে ২৮ লাখ ৫ হাজার ৬০০ মণ বা ১ লাখ ১২ হাজার ২২৪ মেট্রিক টন। উৎপাদিত পাটের হিসেবকে যদি বেল্ট হিসেবে ধরা হয়, তাহলে এবার রাজবাড়ী জেলায় ৬ লাখ ২০ হাজার ২২ বেল্ট (১৮১ কেজিতে ১ বেল্ট) পাট উৎপাদিত হয়েছে। যার আর্থিক মূল্য ৭৫৭ কোটি ৫১ লাখ ২০ হাজার টাকা।

রাজবাড়ী জেলার বিভিন্ন হাটে বাজারে পাটের মান ভেদে ২ হাজার ৫০০ থেকে শুরু করে ৩ হাজার টাকা দামে বিক্রি হচ্ছে।

রাজবাড়ী জেলার কালুখালী উপজেলার হরিণবাড়িয়া হাটে গিয়ে দেখা যায়, হরিণবাড়িয়া হাটে সপ্তাহের ৭ দিনই চলে পাট কেনা-বেচা। স্থানীয় পাট চাষিরা তাদের উৎপাদিত পাট এ হাটে এনে বিক্রি করেন। ভালো দাম পাওয়ায় চাষিরাও অনেক খুশি।

পাট বিক্রেতা মো. কাইয়ুম খান জানান, ৪ মণ পাট বিক্রি করেছি। প্রতি মণ পাটের দাম পেয়েছি ২ হাজার ৮০০ টাকা করে। ৪ মণ পাটের দাম ১১ হাজার ২০০ টাকা পেয়েছি।

আরেক বিক্রেতা মো. জিলাল শেখ জানান, হরিণবাড়িয়া হাটে আমি ২ হাজার ৯০০ টাকা প্রতি মণ দরে ১০ মণ পাট ২৯ হাজার টাকায় বিক্রি করেছি।  

রাজবাড়ী জেলার এ পাটগুলো ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ, কুষ্টিয়া, ফরিদপুর, মাগুরাসহ বিভিন্ন জেলার পাটের মিলে চলে যায়।
হরিণবাড়িয়া হাট বণিক সমিতির সদস্য মো. জামাল মোল্লা জানান, এ মৌসুমে প্রায় ২ মাস ধরে হরিণবাড়িয়ার হাটে চলে পাট কেনা-বেচা। ৪টি গ্রেডে ভাগ করে পাটের আকার ও মান ভেদে পাটের দাম নির্ধারিত করা হয়। বর্তমানে ২ হাজার ৫০০ থেকে ৩ হাজার ৫০ টাকায় প্রতি মণ পাট কেনা-বেচা হচ্ছে।

হরিণবাড়িয়া হাট বণিক সমিতির সভাপতি খন্দকার মোকলেছুর রহমান জানান, কালুখালী উপজেলা হরিণবাড়িয়া এ হাটটি দীর্ঘদিনের। এ হাটে বর্তমান সময়ে প্রতিদিন প্রায় ৫০০ মণ পাট বিক্রি হচ্ছে। অর্থনৈতিক হিসেব করলে প্রতিদিন প্রায় ১২ থেকে ১৫ লাখ টাকার পাট আমরা কিনে থাকি। ২ মাসের হিসেবে যা প্রায় ১০ কোটি টাকার বেশি।

রাজবাড়ীতে পাটের উৎপাদন বাড়াতে নিয়মিত কৃষকদের প্রশিক্ষণ ও কারিগরি সহায়তা দেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন রাজবাড়ী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক এস এম সহীদ নূর আকবর।

বাংলাদেশ সময়: ১৪২০ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ৭, ২০২২
এসআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa