ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৬ মাঘ ১৪২৮, ২০ জানুয়ারি ২০২২, ১৬ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

রাশিফল

জন্ম তারিখে লুকিয়ে ভবিষ্যৎ পেশা!

জ্যোতিষী রুবাই | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০০০০ ঘণ্টা, নভেম্বর ৩০, ২০১৪
জন্ম তারিখে লুকিয়ে ভবিষ্যৎ পেশা!

পৃথিবীর দুই প্রান্তের দুই ব্যবসায়ী, একজন বিল গেটস অপরজন ভারতের ধীরুভাই আম্বানি। দুই প্রজন্মের দুই মানুষ।

বলতে পারবেন এদের মিল কোথায়? কিংবা ভারতের দুই প্রধানমন্ত্রী, বর্তমান নরেন্দ্র মোদী ও সাবেক মনমোহন সিং-এর মিল কোথায়? কিংবা কোথায় মিল শাহরুখ খান আর লিওনার্দো ডি ক্যাপ্রিয়ের মধ্যে?
 
হয়তো ভাবছেন এ বার কেমন ধাঁধা। কেউ হয়তো ভাবছেন বিষয়টাকে গুগলে খুঁজলে কেমন হয়? না তার আর দরকার নেই। আসলে যে বিখ্যাত ব্যক্তিদের কথা বলা হলো তাদের মিলটি জ্যোতিষগত।
 
বিষয়টাকে একটু পরিষ্কার করে বলা যাক। আপনারা জ্যোতিষশাস্ত্রে মূলাঙ্কের বিষয়টি এই কলামে আগেই পড়েছেন। যারা মূলাঙ্ক বিষয়টি জানেন না তাদের জন্য সংক্ষেপে বলা জায় জন্ম তারিখের যোগফল হলো মূলাঙ্ক। যেমন, আপনার জন্মদিন ২২ হলে, আপনার মূলাঙ্ক ৪,(২+২= ৪)। আর আগের প্রশ্নগুলির উত্তর লুকিয়ে এই মূলাঙ্কে।
 
অবাক হলেন? অবাক হবেন না, আসলে আগের করা প্রশ্নের উত্তরটি হলো- এই বিখ্যাত ব্যক্তিদের মূলাঙ্কগুলি এক। যেমন, বিল গেটসের জন্ম তারিখ ২৮ অক্টোবর। আর ধীরুভাই আম্বানির জন্মদিন ২৮ ডিসেম্বর, আশ্চর্যজনকভাবে বিখ্যাত শিল্পপতি রতন টাটার জন্মদিনও ২৮ ডিসেম্বর। আবার শিল্পপতি মুকেশ আম্বানি জন্মেছিলেন ১৯ এপ্রিল।
 
লক্ষ্য করলে দেখবেন এদের সবার জন্ম তারিখের যোগফল ১০। অর্থাৎ, জ্যোতিষের নিয়মে এদের মূলাঙ্ক ১।
 
জ্যোতিষের সংখ্যা তত্ত্ব হিসেবে যারা মূলাঙ্ক ১ সংখ্যার অন্তর্গত। এদের মধ্যে নেতৃত্ব দেওয়ার ক্ষমতা অন্যদের থেকে বেশি। এরা খুব ইতিবাচক মনোভাব নিয়ে সব কাজ করেন। তাই উপরোক্ত তারিখে জন্মালে পেশা হিসেবে ব্যবসাকে বাছতে পারেন। কারণ, নেতৃত্ব দেওয়ার পাশাপাশি এরা খুব ভালো ব্যবসায়ীও। ইতিবাচক মনোভাব, নেতৃত্ব দেওয়ার ক্ষমতা থাকা ও জেদি, পরিশ্রমী হওয়ায় ব্যবসায়ে সাফল্য অনিবার্য।
 
আসুন এবার দেখি যে মানুষরা  মূলাঙ্ক ২ সংখ্যার মধ্যে পড়ছে তাদের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য। এরা অত্যন্ত সৃষ্টিশীল ও কূটনীতিজ্ঞ কিন্তু সঙ্গে ‘মুডি’ হওয়ায় ব্যবসা এদের জন্য নয়। যে কোনো ধরনের শিল্প-কলা, মনোরঞ্জন বা সৃষ্টিশীল কাজে এরা পারদর্শী। তাই দুনিয়ার অনেক জনপ্রিয় অভিনেতার জন্ম তারিখ ২ বা মূলাঙ্ক ২! যেমন, অমিতাভ বচ্চন, শাহরুখ খান, লিওনার্দো ডি ক্যাপ্রিও প্রমুখ।
 
৩, ১২, ২১ ও ৩০-এ জন্মালে আপনি ৩ সংখ্যার। এই সংখ্যার অধিপতি বৃহস্পতি যা ধন-সম্পত্তির অধিকারী। এই মূলাঙ্কের উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিত্ব হিসেবে নাম করা যায় কারিনা কাপুর, এডি মর্ফি আর বায়রন বুফে। এই মূলাঙ্কের পক্ষে ব্যবসাও উপযুক্ত। বিশেষ করে আর্থিক ব্যবসা যেমন শেয়ার ইত্যাদি বা 'রিটেল' বা খুচরা ব্যবসায় এরা খুবই লাভ করেন।
 
৪, ১৩, ২২, ৩১ - বা ৪ সংখ্যা জন্ম তারিখ হলে এরা একেবারেই অন্য প্রকৃতির। কিছু না কিছু বিশেষ গুণ এদের মধ্যে থাকে। এরা চাকরি বা শিল্পকলায় উন্নতি করবেন। ব্যবসায় কোনো আগ্রহ না থাকায় ব্যবসা করলে ক্ষতির মুখ দেখবেন। অতিরিক্ত ঝুঁকি গ্রহণ এদের পক্ষে ক্ষতিকারক। কিশোরকুমার, ঋষি কাপুরের মূলাঙ্ক সংখ্যা ৪।
 
৫, ১৪ আর ২৩ তারিখ মানে ৫ সংখ্যায় যারা জন্মান তারা জেদি হন। যে কোনো বিষয়ে খুবই তাড়াতাড়ি সিদ্ধান্ত নিতে পারেন। সব কাজে খুব হিসেব করে পা ফেলেন। তাই শেয়ার মার্কেটের কাজ এদের জন্য ভালো। এত ভালো গুণের মধ্যে একটাই খারাপ গুণ হলো, খুব তাড়াতাড়ি এরা নিজের কাজের প্রতি উৎসাহ হারিয়ে ফেলেন। তাই নিত্য-নতুন কাজ এদের কাজের প্রতি উৎসাহী রাখে। ‘কমিউনিকেশন স্কিল’ বা কথা বলার ক্ষমতা এতটাই জোরালো যে, বিপণন বিভাগে এরা সর্বোচ্চ পর্যায়ে যেতে পারেন। প্রেম এদের জোরাল। উদাহরণ হিসেবে বলা যায় বিরাট কোহলি, আমির খান আর মার্ক জুকারবার্গের নাম।
 
৬, ১৫ আর ২৪ মানে ৬ সংখ্যক ব্যক্তিদের  মধ্যে আকর্ষণী ক্ষমতা প্রচণ্ড। যে কাজই করুন না কেন এরা তাতে যথেষ্ট সুনাম অর্জন করেন। এঁরা হোটেল, রেস্তোরাঁ বা শৌখিন জিনিসের ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত থাকলে উন্নতি করবেন। শচীন তেন্ডুলকার, অনিল কাপুর, আজিম প্রেমজি ৬ সংখ্যায় রয়েছেন।
 
৭, ১৬ আর ২৫ অর্থাৎ ৭ সংখ্যার অধিকারী খুব বিশ্লেষণাত্মক মনোভাবী হওয়ায় গবেষণা ধর্মী কাজে দক্ষ হন। একই সঙ্গে সৃষ্টিশীলও হন। এরা সব সময় নিজের তৈরি করা দুনিয়ায় ‘বিভোর’ থাকেন। এবং অতি বিনয়ী হন। তাই অনেকে এদের ‘আত্মভোলা' ও ‘দুর্বল’ মনের মানুষ ভেবে ভুল করেন। যা তারা একেবারেই নন।   কোনো ব্যবসায় যুক্ত থাকলে এরা উন্নতি করবেনই। এই আত্মভোলা কাজ পাগল বিখ্যাতদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য মহেন্দ্র সিং ধোনি, সাইফ আলি খান ছাড়াও আরও অনেকে।
 
আপনার জন্ম সংখ্যা ৮, ১৭, ২৬ বা ৮ হলে ৩৫ বছরের পর থেকে আপনি উন্নতি করবেন। এই সংখ্যার অধিকারী খুবই পরিশ্রমী ও সতর্ক হোন। ধাতু বা রিয়েল এস্টেট ব্যবসা এদের জন্য শুভ। কোনো সংস্থায় চাকরি নিলে হিসাবরক্ষণ বা এইচ আর বিভাগে এরা বেশি উন্নতি করবেন। চাইলে ফ্যাশন ডিজাইনারের কাজও করতে পারেন। উল্লেখ্য ব্যক্তিত্ব - নরেন্দ্র মোদী, মনমোহন সিং।
 
৯, ১৮ আর ২৭ বা ৯ সংখ্যক ব্যক্তি প্রচণ্ড শারীরিক শক্তির আধার হন। ফলে খেলাধূলায় এলে নাম করেন। তাই বিশ্বের অনেক নামি খেলোয়াড় এই সংখ্যায় জন্মেছেন। শারীরিক ক্ষমতা বেশি হওয়ায় সেনা বিভাগেও এই সংখ্যার মানুষ বেশি থাকা দরকার। একান্তই ব্যবসা করতে চাইলে কেমিকেল আর রিয়েল এস্টেটে কাজ করতে পারেন। মাহেলা জয়বর্ধনে, মাইকেল ফেল্পস আর টম ক্রুজ এই সংখ্যার ব্যক্তিত্ব।
 
বাংলাদেশ সময়: ০০০১ ঘণ্টা, নভেম্বর ৩০, ২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa