ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৬ আগস্ট ২০২০, ১৫ জিলহজ ১৪৪১

স্বাস্থ্য

বিশ্বমানের আইসিইউ ইউনিট করছে গণস্বাস্থ্য

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০৭-০৮ ০৩:৩৭:১৭ পিএম
বিশ্বমানের আইসিইউ ইউনিট করছে গণস্বাস্থ্য গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র

ঢাকা: বিশ্বমানের সর্বাধুনিক চিকিৎসার সুযোগ-সুবিধা সম্মলিত ৪১ শয্যার আইসিইউ (নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র) ইউনিট তৈরি করছে ঢাকার গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতাল।

 

বুধবার (৮ জুলাই) গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের জনসংযোগ বিভাগের সঙ্গে কথা বলে এ তথ্য জানা যায়।

 

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের দায়িত্বশীল সূত্র থেকে জানা যায়, ৪১ শয্যা বিশিষ্ট আইসিইউ ইউনিটের মধ্যে নীচতলায় করোনা রোগীদের জন্য ১৫ শয্যার সম্পূর্ণ আলাদা একটি ইউনিট তৈরি করা হবে। করোনা আইসিইউ ইউনিট তৈরির কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। করোনা ইউনিটে প্রবেশ ও বের হওয়ার পথ থাকবে মূল হাসপাতাল থেকে সম্পূর্ণ আলাদা। মূল হাসপাতালের সঙ্গে কোনো সম্পর্ক থাকবে না করোনা ইউনিটের।

 

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের মিডিয়া উপদেষ্টা জাহাঙ্গির আলম মিন্টু বাংলানিউজকে বলেন, আসন্ন কোরবানির ঈদের আগেই করোনা আইসিইউ ইউনিটের উদ্বোধন করা হবে।

 

১৫ বেডের করোনা আইসিইউ ইউনিট ছাড়াও নগর হাসপাতালের চার তলায় ২৬ শয্যাবিশিষ্ট আরও দু’টি আইসিইউ ইউনিট তৈরি করা হচ্ছে। এরমধ্যে ১৮ সিটের একটি বিশ্বমানের সর্বাধুনিক কিডনি ট্রান্সফারেন্ট ইউনিট করা হচ্ছে। এতে বিশ্বের সেরা কিডনি ও আইসিইউ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক এবং প্রশিক্ষিত নার্সরা রোগীদের সেবায় নিয়োজিত থাকবে।  

 

এ বিষয়ে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের অধ্যাপক ডা. নাজিব মোহাম্মদ বলেন, আমাদের হাসপাতালের নতুন কিডনি ট্রান্সফারেন্ট ইউনিটে অত্যাধুনিক ইলেক্ট্রনিক (কম্পিউটারাইজড) বেড ছাড়াও উন্নত দেশগুলোর হাসপাতালের মতো সব সুযোগ-সুবিধা থাকবে।

 

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা এবং ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, স্বাধীনতার পর থেকেই গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতাল রোগীদের কম পয়সায় উন্নত চিকিৎসাসেবা দিয়ে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় আমাদের বিশ্বমানের আইসিইউ ইউনিটের যাত্রা শুরু হচ্ছে। যেখানে উন্নত দেশের সব সুবিধা পাবে একজন রোগী।

 

বাংলাদেশ সময়: ১৫৩৬ ঘণ্টা, জুলাই ০৮, ২০২০

আরকেআর/ওএইচ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa