bangla news

প্লাজমা ব্যাংক তৈরির কথা ভাবছেন ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী

রিফাত মেহেদী, গণ বিশ্ববিদ্যালয় করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০৫-২৯ ৯:৫৪:৩৫ পিএম
সাভারের গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

সাভারের গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

ঢাকা: দ্বিতীয় বারের মতো প্লাজমা থেরাপি নিয়েছেন সাভারের গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। প্লাজমা থেরাপি নিয়ে সুস্থ অনুভব করায় এর কার্যকরিতা দেখে ‘প্লাজমা ব্যাংক’ স্থাপনের কথা ভাবছেন তিনি।

শুক্রবার (২৯ মে) প্লাজমা থেরাপি নেওয়ার পর তিনি বলেন, এখন অনেক ভালো লাগছে। আজ একটা এক্স-রে করিয়েছি। শ্বাস নিতে কোনো কষ্ট হচ্ছে না তবে আরও ১০ দিন আইসোলেশনে থাকতে হবে।

এসময় তিনি বাংলানিউজকে বলেন, গত দুই দিন আগে প্রথমবারের মতো প্লাজমা নিয়েছি আজ দ্বিতীয়বারের মতো নিলাম। এখন অনেকটা সুস্থ বোধ করছি। গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র শিগগিরই একটা প্লাজমা ব্যাংক গড়ে তুলে মানুষকে মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা করতে চায়।

তবে ডা. জাফরুল্লাহর শারীরিক অবস্থার উন্নতি হওয়ার আগে প্লাজমা ব্যাংক নিয়ে কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছেনা বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালের এনেস্থেসিয়া বিভাগের রেজিস্ট্রার ডা. সাইমুম আরাফাত পান্থ বাংলানিউজকে বলেন, গতকাল তার (ডা. জাফরুল্লাহ) শারীরিক অবস্থার কিছুটা অবনতি হয়। তার অক্সিজেন সার্কুলেশন কমে গিয়েছিল। পরবর্তীতে তাকে অক্সিজেন দেওয়া হয়। কিন্তু প্লাজমা থেরাপি দেওয়ার পর সুস্থ অনুভব করায় তিনি প্লাজমা থেরাপির কার্যকরিতা সম্পর্কে বুঝতে পারেন। তখন তিনি বলেন, আমরা নিজেরাও (গণস্বাস্থ্য) প্লাজমা ব্যাংক তৈরি করতে পারি। এতে সাধারণ মানুষ সুবিধা পাবে।

ডা. পান্থ আরও বলেন, জাফরুল্লাহ চৌধুরীর এখনকার শারীরিক অবস্থার দরুণ তার কাছে যেতে পারছেনা সবাই। তিনি আরেকটু সুস্থ হলে তখন প্লাজমা ব্যাংক নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে। আপাতত তিনি শুধু মাত্র প্লাজমা ব্যাংক স্থাপনের পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন। এই পরিকল্পনা এখন একেবারেই প্রাথমিক স্তরে আছে। এখনই এ বিষয় নিয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।

বাংলাদেশ সময়: ২১৫৪ ঘণ্টা, মে ২৯, ২০২০
এইচএডি/

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   করোনা ভাইরাস
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2020-05-29 21:54:35