bangla news

এসডিজি অর্জনে স্বাস্থ্যখাতে সফলতা জরুরি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১০-১৬ ৪:০০:২৯ পিএম
কর্মশালায় উপস্থিত অতিথিরা, ছবি: বাংলানিউজ

কর্মশালায় উপস্থিত অতিথিরা, ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা: ২০১৯ সালে বাংলাদেশ টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রায় (এসডিজি) আট সেক্টরে প্রত্যাশার তুলনায় পিছিয়ে আছে। সেগুলোর মধ্যে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হলো তিন নম্বর লক্ষ্য, সবার জন্য সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করা। বিশাল জনসংখ্যার এই দেশে এ লক্ষ্য পূরণ করা অনেক কঠিন হলেও এটাকে সর্বোচ্চ জরুরি উল্লেখ করে সম্পন্ন করা সম্ভব বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

বুধবার (১৬ অক্টোবর) রাজধানীর আজিমপুরের জাতীয় জনসংখ্যা গবেষণা ও প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটে ‘প্রজনন স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা সেবা সম্পর্কিত এসডিজি অর্জনে কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়ন’ শীর্ষক আয়োজিত কর্মশালায় বক্তারা এ কথা বলেন। 

বক্তারা বলেন, আমাদের সব ধরনের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে হবে। এজন্য আমাদের স্বাস্থ্যখাতের প্রতিটি পর্যায়ে বা নিম্ন পর্যায়ে বরাদ্দ রাখতে হবে বা সেখানে আমাদের বিনিয়োগ বাড়াতে হবে। কেননা, পুরো খাতটি আমাদের উন্নত করতে হবে। এতে এসডিজি অর্জনের চাপ অনেকাংশে কমে যাবে এবং লক্ষ্য অর্জন সহজ হবে।

বক্তারা আরও বলেন, ইতোমধ্যে আমাদের স্বাস্থ্যখাতের অনেক ক্ষেত্রে ব্যাপক সফলতা এসেছে। আমাদের কমিউনিটি ক্লিনিকসহ বিভিন্ন মাঠ পর্যায়ের স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রম সারাদেশে প্রশংসিত হয়েছে। অনেকে এই পদ্ধতিকে অনুসরণও করছে। এছাড়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই স্বাস্থ্যখাতের সফলতার জন্য অনেকগুলো পুরস্কারও অর্জন করেছেন। তাই এটা প্রমাণিত যে এ খাতে আমরা সফলতা অর্জন করতে পারব। যদিও আমাদের ব্যাপক পরিশ্রম করতে হবে এই বিশাল জনগোষ্ঠীকে স্বাস্থ্যসেবার আওতায় আনতে।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের সচিব শেখ ইউসুফ হারুনের সভাপতিত্বে কর্মশালায় আরও উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মো. আসাদুল ইসলাম, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ, পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কাজী আ খ ম মহিউল ইসলাম, জাতীয় জনসংখ্যা গবেষণা ও প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের (নিপোর্ট) মহাপরিচালক সুশান্ত কুমার সাহা প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১৬০০ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৬, ২০১৯
এমএএম/টিএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   স্বাস্থ্যসেবা
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-10-16 16:00:29