ঢাকা, শনিবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ২৫ মে ২০১৯
bangla news

দেশে নারীদের সন্তান জন্ম দেওয়ার ক্ষমতা হ্রাস পাচ্ছে

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৪-২৫ ৬:৪৬:৪৪ এএম
সংবাদ সম্মেলনে সেমস গ্লোবাল ইউএসএ অ্যান্ড এশিয়া প্যাসিফিকের প্রেসিডেন্ট অ্যান্ড গ্রুপ ম্যানেজিং ডিরেক্টর মেহেরুন এন ইসলাম। ছবি: বাংলানিউজ

সংবাদ সম্মেলনে সেমস গ্লোবাল ইউএসএ অ্যান্ড এশিয়া প্যাসিফিকের প্রেসিডেন্ট অ্যান্ড গ্রুপ ম্যানেজিং ডিরেক্টর মেহেরুন এন ইসলাম। ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা:  জীবন যাপন পদ্ধতি এবং খাদ্যাভাস পরিবর্তনের কারণে বাংলাদেশের নারীদের মধ্যে সন্তান জন্ম দেওয়ার ক্ষমতা ক্রমশ হ্রাস পাচ্ছে। এতে উন্নত চিকিৎসার জন্য এ দেশের বেশিরভাগ নারী ভারতের চেন্নাইসহ বিভিন্নস্থানে চিকিৎসকদের স্মরণাপন্ন হচ্ছে। তাই চেন্নাই ফার্টিলিটি সেন্টার এদেশে যৌথ উদ্যোগে হাসপাতাল তৈরি করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে।

বুধবার (২৪ এপ্রিল) রাজধানীর পল্টনে ইআরএফ মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা এসব কথা বলেন। ‘১২তম মেডিটেক্স বাংলাদেশ ২০১৯’ উপলক্ষে সেমস গ্লোবাল এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।
 
সম্মেলনে বক্তারা বলেন, ১৮ কোটি মানুষের দেশ বাংলাদেশ, এটি বিশ্বের অষ্টম জনবহুল দেশ। সম্প্রতি স্বাস্থ্যখাতে অগগ্রতির জন্য বিশ্বে প্রশংসিত হয়েছে দেশটি। তৃণমূল পর্যায়ে স্বাস্থ্যসেবা সম্প্রসারণে বাংলাদেশ দীর্ঘদিন ধরে অঙ্গীকারাবদ্ধ হয়ে কাজ করেছে যা এ খাতকে উল্লেখ্যযোগ্য উন্নতির পাশাপাশি নির্ধারিত সময়ের অনেক আগেই সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এমডিজি) অর্জনে সহায়ক হয়েছে। আগামী ২০৩২ সালের মধ্যে সব নাগরিকের প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিতকরণ, মাতৃ ও শিশু মৃত্যুও হার উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস, আধুনিক ও উন্নত স্বাস্থ্যসেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে আমাদের সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। এ লক্ষ্যে কমিউনিটি ক্লিনিকের কার্যক্রম জোরদার করা হয়েছে। জাতীয় ই-হেলথ নীতিমালা এবং ই-হেলথ কৌশল তৈরির কাজ দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলেছে। 
 
সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, আগামী ২ থেকে ৪ মে, রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি, বসুন্ধরায় (আইসিসিবি) তিন দিনব্যাপী চিকিৎসা, ক্লিনিক্যাল ল্যাব ও স্বাস্থ্যসেবা শিল্পের আন্তর্জাতিক প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া প্রদর্শনীর পাশাপাশি ‘চতুর্থ আন্তর্জাতিক হেলথ ট্যুরিজম এক্সপো-২০১৯’ এবং ‘পঞ্চম বাংলাদেশ ক্লিনিক্যাল ল্যাব এক্সপো-২০১৯’ অনুষ্ঠিত হবে।
 
এসব প্রদর্শনীতে স্বাগতিক বাংলাদেশসহ ভারত, থাইল্যান্ড, চীন, কোরিয়া, যুক্তরাষ্ট্র, ফ্রান্স, অস্ট্রেলিয়া, সুইডেন, জার্মানি, ডেনমার্ক, যুক্তরাজ্য, তাইওয়ান, তুরস্কসহ দেশের প্রায় ১২০টি প্রতিষ্ঠান ২৮০টি স্টল নিয়ে অংশগ্রহণ করছে। স্বাস্থ্য খাতের বৃহৎ এ প্রদর্শনীতে থাকবে মেডিকেল, সার্জিক্যাল, হেলথকেয়ার, ক্লিনিক্যাল ল্যাব ইকুইপমেন্ট, ডেন্টাল ও ডায়াগনস্টিক সরঞ্জাম এবং ফার্মাসিউটিক্যাল ইকুইপমেন্টের বিশাল সমাহার।
 
এছাড়া, হেলথ ট্যুরিজম ও সার্ভিস উপকরণের জন্য থাকছে বিশেষ আয়োজন। প্রদর্শনীগুলোতে আগত দর্শনার্থী এবং সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ী ও প্রতিষ্ঠানের জন্য প্রতিদিন ফারটালিটি এবং থাইরয়েড রোগ ও অন্যান্য রোগ সংক্রান্ত বিষয়ে অভিজ্ঞ চিকিৎসকদের মাধ্যমে সেমিনারের আয়োজন করা হবে। এসব প্রদর্শনী প্রতিদিন সকাল সাড়ে ১০টা থেকে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে।
 
বাংলাদেশের মেডিকেল সেক্টর, স্বাস্থ্যসেবা সংস্থা এবং চিকিৎসা প্রশিক্ষণ, অ্যাম্বুলেন্স পরিসেবা, চিকিৎসা সরঞ্জাম সরবরাহ ও গ্রামীণ স্বাস্থ্য পরিসেবাগুলোর ক্ষেত্রে বিনিয়োগের প্রচুর সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে যা বিদেশি বিনিয়োগকারীদের আকৃষ্ট করেছে। মেডিটেক্স বাংলাদেশ স্বাস্থ্য সেবার ক্ষেত্রে উন্নয়নের জন্য এক নতুন মাইলফলক হিসেবে কাজ করে যাচ্ছে এবং এ প্রদর্শনী চিকিৎসা ও স্বাস্থ্যসেবা খাতের উন্নয়নের জন্য বিটুবি প্ল্যাটফর্ম ও যুগান্তকারী পদক্ষেপ হিসেবে কাজ করবে।
 
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সেমস গ্লোবাল ইউএসএ অ্যান্ড এশিয়া প্যাসিফিকের প্রেসিডেন্ট অ্যান্ড গ্রুপ ম্যানেজিং ডিরেক্টর মেহেরুন এন ইসলাম এবং গ্রুপের সিইও এস. এস. সারোয়ার, চেন্নাই ফারটালিটি সেন্টারের সিইও আজাদ খান প্রমুখ।
 
বাংলাদেশ সময়: ০৬৪৫ ঘণ্টা, এপ্রিল ২৫, ২০১৯
এমএএম/আরআইএস/

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-04-25 06:46:44