[x]
[x]
ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩০ আশ্বিন ১৪২৫, ১৬ অক্টোবর ২০১৮
bangla news

হবিগঞ্জে ৫ দিনে জন্ডিসে আক্রান্ত দেড় শতাধিক 

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৯-১৮ ৭:৩৬:১৬ পিএম
নার্সিং ইনস্টিটিউট, হবিগঞ্জ

নার্সিং ইনস্টিটিউট, হবিগঞ্জ

হবিগঞ্জ: হবিগঞ্জ শহর ও আশপাশের এলাকায় গত কয়েকদিনে শিশুসহ দেড় শতাধিক লোকজন জন্ডিসে আক্রান্ত হয়েছেন। এ ঘটনায় শরহবাসীর মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে। 

মঙ্গলবার (১৮ সেপ্টেম্বর) বিকেলে শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজের সহকারী অধ্যাপক ডা. সোলাইমান মিয়া বাংলানিউজকে জানান, গত পাঁচদিনে হবিগঞ্জ শহরের নার্সিং ইনস্টিটিউটের ১৩ শিক্ষার্থী, পুলিশ, সাংবাদিক, আইনজীবী ও শিশুসহ বিভিন্ন বয়সের শতাধিক লোক জন্ডিসে আক্রান্ত হয়ে তার স্মরণাপন্ন হয়েছেন।

তিনি আরও জানান, জন্ডিস একটি পানিবাহিত রোগ। খাওয়ার পানি থেকে জীবাণু শরীরে প্রবেশ করে এ রোগের সৃষ্টি হয়। হবিগঞ্জ পৌরসভার পানি সরবরাহের লাইনে সমস্যার কারণে এ রোগের প্রকোপ দেখা দিয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। 
এদিকে হবিগঞ্জ আধুনিক জেলা সদর হাসপাতালের মেডিকেল টেকনোলজিস্ট জাহাঙ্গীর আলম জানান, গত পাঁচদিনে জন্ডিসে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে অর্ধশতাধিক লোক। এর অধিকাংশই শিশু। 

দ্রুত এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেওয়া না হলে মহামারীর আশঙ্কা করছেন স্থানীয়রা। 

হবিগঞ্জ নার্সিং ইনস্টিটিউটের ইনচার্জ রেহানা খাতুন জানান, গত কয়েকদিনে তার প্রতিষ্ঠানের ১৩ শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরবর্তীতে তাদের রক্ত পরীক্ষা করে জানা গেছে, ১৬ শিক্ষার্থীই জন্ডিসে আক্রান্ত। এ ঘটনায় পুরো ইনস্টিটিউটে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। হবিগঞ্জ পৌরসভার পানির লাইন থেকে ময়লা প্রবেশ করে এ সমস্যা হয়ে থাকতে পারে বলে ধারণা করছেন তিনি।

এ বিষয়ে সিভিল সার্জন ডা. সুচীন্ত চৌধুরী বাংলানিউজকে জানান, তিনি কয়েকদিন ধরে হবিগঞ্জের বাইরে ছিলেন। বিষয়টি সম্পর্কে খোঁজ নিয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

হবিগঞ্জের স্যানিটারি ইন্সপেক্টর অবনি কুমার দত্ত বাংলানিউজকে বলেন, পৌরসভার পানির কারণে জন্ডিস হচ্ছে এ ধরনের কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। তারপরও বিষয়টি ক্ষতিয়ে দেখা হচ্ছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৩০ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৮
এসআরএস

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   হবিগঞ্জ
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa