ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১ আশ্বিন ১৪২৮, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭ সফর ১৪৪৩

স্বাস্থ্য

কৃত্রিম মিষ্টিতে মেদ কমে না!

স্বাস্থ্য ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২৩২ ঘণ্টা, নভেম্বর ৫, ২০১৪
কৃত্রিম মিষ্টিতে মেদ কমে না!

ক্যালরি নিয়ন্ত্রণে রেগুলার ড্রিংকস ছেড়ে ডায়েট ধরেছেন অনেকেই। কিন্তু তাতেই কি শেষরক্ষা হচ্ছে? খাদ্য গবেষকরা বলছেন, না, ডায়েট কোলা আপনার ওজন কমাবে এমনটা মনে করার কোনো কারণই নেই।



আর এ কথা কেবল কোলার জন্য প্রযোজ্য তা নয়, চিনিমুক্ত কৃত্রিম মিষ্টির যে কোনও খাবারের ব্যাপারেই গবেষকদের এক কথা। সুগার-ফ্রি চকোলেট, সুগার-ফ্রি কেক বলে যা কিছু বাজারে মিলছে তা খেলে ওজন কমবে, এমনটা নয়।

যারা মনে করছেন কৃত্রিম মিষ্টি খেলে রক্তে চিনি ও ক্যালোরির পরিমান কমে যাবে তাদের জন্য নিচের পয়েন্টগুলো জেনে নেওয়া জরুরি-

ওজন বাড়বে
আসলে যেটা ভাবছেন, ফল কিন্তু ঠিক তার উল্টো। কৃত্রিম মিষ্টি খেলেও আপনার ওজন বাড়বেই। কারণ এই কৃত্রিম মিষ্টি আপনার আগ্রহ বাড়িয়ে দেয়, ফলে ক্যালোরি গ্রহণ বাড়তেই থাকে, কমে না। ওজন তো বাড়বেই। কারণ কৃত্রিম মিষ্টির কোনো খাবার মানুষ পুরোটা বা অনেকটাই খেয়ে ফেলে নির্দ্বিধায়। মনে করে কিছুই হবে না। আরেকটি কথা, কৃত্রিম মিষ্টি দিয়ে যেসব খাবার তৈরি হয় সেগুলো উচ্চ শর্করাযুক্ত।

মেটাবোলিক সিনড্রম
এটি এমন এক সিনড্রম যা শরীরকে ম্যালা কতগুলো সমস্যায় ফেলে রাখে। উচ্চ রক্তচাপ, উচ্চ চিনি, মেদভুঁড়ি, অস্বাভাবিক মাত্রার কলেসস্টেরল এসব কিছুই ওই শরীরের অনুসঙ্গ। আর তাতে বেড়ে যায় পক্ষাঘাত, হৃদরোগ আর অন্যান্য রোগের ঝুঁকি।

গবেষকরা দেখেছেন, যারা নিয়মিত কৃত্রিম মিষ্টি খাচ্ছেন তাদের মেটাবোলিক সিনড্রমে পতিত হওয়ার ঝুঁকি বেড়ে যাচ্ছে অন্তত দ্বিগুন।

ডায়াবেটিস
কৃত্রিম মিষ্টি ইনসুলিনের মতো হরমোন বাড়িয়ে দেয়। গবেষকরা দেখেছেন কৃত্রিম মিষ্টি খেলে শরীরে ইনসুলিনের পরিমান ২০ শতাংশ পর্যন্ত বেড়ে যায়। রক্তে যাদের বেশি মাত্রায় চিনি রয়েছে তাদের জন্য এই ইনসুলিন মাত্রা ভালো ভূমিকা রাখতে পারে, কিন্তু নিয়মিতভাবে যখন ইনসুলিন বাড়ে তখন এর কার্যকারিতা লোপ পায়। ফলে ডায়াবেটিস বেড়ে যায়।

হাইপারটেনশন ও হৃদরোগ
দিনে অন্তত দুইবার কৃত্রিম মিষ্টির বেভারেজ যারা খাচ্ছেন তাদের হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বেড়ে যায়। চিনিযুক্ত খাদ্যের যে প্রভাব শরীরে পড়ে, কৃত্রিম মিষ্টির খাদ্যের প্রভাব তার থেকে খুব একটা আলাদা কিছু নয়। আর এতে হৃদযন্ত্রে অস্বাভাবিকতা দেখা দেয়।

মুখের স্বাদ লোপ পায়
কৃত্রিম মিষ্টি চিনির চেয়ে একটু বেশিই মিষ্টি। এই মিষ্টি যখন আপনার স্বাদগ্রহণের কোষগুলোতে লাগে তখন আর সাধারন কম মিষ্টির খাবার মুখে রুচবে না। যেমন প্রাকৃতিক ফল খেতে গেলেও স্বাদ পাবেন না। আর এভাবে মুখের স্বাদ যখন লোপ পায়, তখন আপনি বেশি মিষ্টিযুক্ত খাবার খুঁজতে থাকবেন।

তাহলে উপায়?
Sweet_2
সে পরামর্শও দিয়েছেন খাদ্য গবেষকরা। বলেছেন, যদি আপনি চিনির বিকল্প কিছু খুঁজতে চান, আপনি ভর করতে পারেন প্রাকৃতিক মধুর ওপর। এই মধুই আপনাকে দেবে পরিপূর্ণ স্বাদ, কিন্তু থাকবেনা কোনো স্বাস্থ্যঝুঁকি।

বাংলাদেশ সময় ১২২৮ ঘণ্টা, নভেম্বর ০৫, ২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa