bangla news
জানান আপনার সমস্যা ও মতামত

ঘুরতে গেলে বিষণ্নতা কমে না বরং বাড়তে পারে

3216 |
আপডেট: ২০১৪-০৮-০৮ ১:৫১:০০ এএম

তোমার সমস্যার কথা ভালো করে পড়লাম। ইমেইল পাওয়ার সাথে সাথে জবাব দিতে পারলে ভালো হতো। অন্যান্য ইমেইলের সিরিয়ালের কারণে তোমার ইমেইল পড়তে এবং জবাব দিতে একটু সময় লেগে গেলো।

dear doctor
koyekdin jabot ami sob kichu khub taratari vule jacchi, mone koriye dile mone pore, but nijer theke mone korte parchina… eki kotha eksathe koyekbar boli, ami jani paser jon bujhte pereche, tarpor o stop korte ektu time lage..pray e eka eka kotha boli… rate ghumate parina.. but sokale ghumai.. ghum thik korar kichu tips peyechi.. ta  chesta korchi... mon sob somoy kharap thake, oneker poramorse cox bazaar thekew ghure elam, kaj hoyni ekhn o udas thaki..
Pray somoy okarone eka eka khub kadi, r nijei nijer vul sikar kore ekai sry boli r chukhe pani but hasar drama kori…karo kache amr kotha shunar somoy nei.. shunle o vul bujhe,,, amr parents theke o nei… karo sathe miste parina…ei boyose amr mathay onk responsibility ... amr ek aunty amk bujhto, amr kotha shunto…tar sathe ami emn kichu korechilam, ekhn se amk ager moto lov korena.. ami ekhn o bujhte parchina sedin rate ami onake ki bolechilam, amr vul..kichu khon age j kotha ami bolechilam taw mone korte parina…
amr kotha bolar manus khub kom, fb te somoy katate o aaj kal r valo lagche na...samannno kothay onk beshi rege jai.. kaw k bissas hoyna..emn mone hoy amr moner sob iccha jeno more geche..  ei world take aj kal khub beshi joghonno mone hocche.. khubi selfish mone hocche, mrittur jonne ekhn opekkha korchi…
 koyekbar suicide korar try korechilam, glas venge kobji te dite cheyechi, but glass bari dewate hate dhuke giyechilo, morini, chukh bedhe rastay hetechi, car samne ese horn bajay..parini                                                                    
pls help me…  kichu ekta solution din amk

তোমার সমস্যার কথা ভালো করে পড়লাম। ইমেইল পাওয়ার সাথে সাথে জবাব দিতে পারলে ভালো হতো। অন্যান্য ইমেইলের সিরিয়ালের কারণে তোমার ইমেইল পড়তে এবং জবাব দিতে একটু সময় লেগে গেলো।

কোনো দ্বিধা ছাড়াই বলা যায়, আপনি বিষণ্নতা রোগে ভুগছেন। বিষণ্নতাকে অবহেলা করতে নেই। সাময়িক কোনো কারণে মন খারাপ হওয়ায় বিষণ্নতা, আর রোগ বিষণ্নতা, দুটির মাঝে অনেক পার্থক্য। একটি উপসর্গ বা সিম্পটম অন্যটি একটি রোগ। প্রথমটি সাময়িক সমস্যা, দ্বিতীয়টি রোগ। মনে রাখবেন, রোগ সারাতে কোনো উপদেশ বা পরামর্শে কাজ হয় না। চিকিৎসা করাতে হয়। তাই দ্রুতই আপনি চিকিৎসার আওতায় আসুন সেই পরামর্শ দিচ্ছি।

আপনার সমস্যাগুলোকে যদি বিশ্লেষণ করি, তবে দাঁড়ায় যে,
-    আপনার কিছু মনে থাকে না।
-    ঘুমের সমস্যা
-    সব সময় মন খারাপ থাকে
-    অকারণে কান্না পায়
-    নিজেকে দোষী মনে হয়
-    নিজেকে অসহায় মনে হয়
-    নিজেকে একা মনে হয়
-    মানুষের সাথে মিশতে সমস্যা হয়
-    নিজের চিন্তা ভাবনা নিজের নিয়ন্ত্রণে থাকে না
-    যখন তখন রাগ হয়
-    কাউকে বিশ্বাস করতে ইচ্ছা হয় না
-    পৃথিবীর কোনো কিছুই মূল্যবান মনে হয় না
-    মৃত্যু চিন্তা ও চেষ্টা করাও হয়ে গেছে।

উপরের সমস্যাগুলোর ৫টি কিংবা এর অধিক যদি কারো মাঝে একাধারে দুই সপ্তাহের বেশি থাকে এবং সমস্যাগুলো যখন একজন মানুষের দৈনন্দিন কাজের ক্ষেত্রে সমস্যা তৈরি করে তখনই ধরে নিতে হবে, একজন মানুষ বিষণ্নতা রোগে ভুগছেন। নিজেই এখন চিন্তা করে দেখুন, এসব সমস্যা আপনার নিজের কোনো ভুল, নাকি রোগের কারণে হচ্ছে।

যত দ্রুত সম্ভব চিকিৎসা শুরু করুন। আপনার কাছ‍াকাছি কোনো মনোরোগ বিশেষজ্ঞের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন।

মনে রাখতে হবে, বিষণ্নতায় ভোগা কোনো মানুষ কক্সবাজার বা যেখানেই ঘুরতে যায় না কেন বা অন্য কোনো পদ্ধতির মাধ্যমে মন ভালো করতে চান না কেনো, সেটা ভালোতো হবেই না বরং তখন সেই কাজটিকেই উল্টো আর একটা চাপ মনে হবে। মনে হবে, সবাই কেমন আনন্দ করছে, মজা করছে আমি পারছি না কেন? কারণ বিষণ্নতা রোগে, যেখানে কোনো কিছুই ভালো লাগে না সেখানে ঘুরাঘুরি বা অন্য কোনো প্রকার আনন্দদায়ক কাজ ভালো লাগবে কিভাবে? সুতরাং চিকিৎসা অত্যন্ত জরুরি।

যেহেতু আপনার পরিবার বা কাছের মানুষজন আপনার সমস্যাটি বুঝতে পারছে না। আপনি চাইলে এ লেখা তাদের সঙ্গে শেয়ার করতে পারেন। তাদের ভুল ভাঙবে এবং আপনারও সুবিধা হবে।

চিকিৎসকের সাথে দেখা করার আগে আপনি চাইলে, ট্যাবলেট মিরটাজেপিন ১৫ মিগ্রা (মিটাপ্রেক্স/মিট্রাজিন) প্রতি রাতে একটা করে শুরু করতে পারেন। আপনার সমস্যার কারণ বুঝতে পারলাম না। হতে পারে পেছনে ব্যক্তিগত, সামাজিক বা পারিবারিক কোনো কারণ থাকতে পারে। কোনো কোনো শারীরিক কারণেও ডিপ্রেশন বা বিষণ্নতা হয়। কখনো আবার কোনো কারণ নাও পাওয়া যেতে পারে। কারণ যদি কিছু থাকে সেটা সমাধান করাও দরকার। ওষুধের পাশাপাশি তাই সাইকোথেরাপিও উপকারি হবে।

যদি ঢাকায় থাকেন তবে, বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের, মনোরোগবিদ্যা বিভাগে যোগাযোগ করতে পারেন। সব ধরনের সহায়তাই আপনি এখানে পাবেন। আপনার দ্রুত আরোগ্য কামনা করছি। পুনরায় মৃত্যু চিন্তা আসার আগেই চিকিৎসা শুরু করুন।




ডা. সালাহ্উদ্দিন কাউসার বিপ্লব

সহযোগী অধ্যাপক, মনোরোগবিদ্যা বিভাগ
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় 




বাংলাদেশ সময়: ১১৪৪ ঘণ্টা, আগস্ট ০৮, ২০১৪

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2014-08-08 01:51:00