ঢাকা, রবিবার, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

স্বাস্থ্য

সিলেটে ২ হাজার ৭৬৪ কেন্দ্রে ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন শনিবার

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮০৭ ঘণ্টা, এপ্রিল ৩, ২০১৪
সিলেটে ২ হাজার ৭৬৪ কেন্দ্রে ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন শনিবার

সিলেট:  সিলেট জেলার ৪ লাখ ৫০ হাজার ৪৭২ শিশুকে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল  খাওয়ানো হবে। আর সিলেট সিটি করপোরেশন এলাকার আরও ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে আরও ৬৭ হাজার ৩৮৪ শিশুকে।



আগামী শনিবার অনুষ্ঠিত হবে ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন। বৃহস্পতিবার বিকেলে সিলেট সিভিল সার্জন কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে এক  মতবিনিময় সভায় এ তথ্য জানান সিলেটের সিভিল সার্জন ডা. আজহারুল ইসলাম।

সভায় জানানো হয়, সিলেটের ১২টি উপজেলায় টিকাদান কেন্দ্রের সংখ্যা ২ হাজার ৫৫৪টি। সিলেট সিটি কর্পোরেশনের কেন্দ্র সংখ্যা ২১০টি।

সিলেট জেলায় ৬-১১ মাস বয়সী শিশুর সংখ্যা ৪৮ হাজার ৮৮২, ১২-৫৯ মাস বয়সী শিশুর সংখ্যা ৪ লাখ ৭৯৮ , সিটি কর্পোরেশন ৬-১১ মাস বয়সী শিশুর সংখ্যা ৬ হাজার ৪৪২ ও ১২-৫৯ মাস বয়সী শিশুর সংখ্যা ৬০ হাজার ৯৪২ জন।

এদের ‘এ’ প্লাস খাওয়ানোর লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে।

সিভিল সার্জন সাংবাদিকদের জানান, বাংলাদেশকে অপুষ্টিজনিত অন্ধত্ব নির্মূল ও অপুষ্টিজনিত শিশু মৃত্যু প্রতিরোধ করার লক্ষ্যে জাতীয় ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন পালন করা হয়।

ভিটামিন ‘এ’ শুধু অপুষ্টিজনিত অন্ধত্ব থেকে রক্ষা করে না, ভিটামিন ‘এ’ শিশুর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বৃদ্ধি করে।

তিনি আরও জানান, ৬-১১ মাস বয়সী সকল শিশুকে একটি নীল রঙের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল এবং ১২-৫৯ মাস বয়সী সকল শিশুকে একটি লাল রঙের ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে।

সব ক্যাম্পেইন কেন্দ্র সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত খোলা থাকবে।   যদি কোনো শিশু গত ৪ মাসের মধ্যে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খেয়ে থাকে তাহলে সেই শিশুকে আর এটি খাওয়ানো যাবে না।

এছাড়া, কান্নারত অবস্থায় বা জোর করে শিশুকে ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো যাবে না। কোনো শিশুকে আস্ত বা গোটা খাওয়ানো যাবে না। ক্যাপসুলের মুখ কাঁচি দিয়ে কেটে ক্যাপসুলের ভেতরের তরলটুকু খাওয়াতে হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৪৪ ঘণ্টা, এপ্রিল ০৩, ২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa