ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩ কার্তিক ১৪২৮, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

স্বাস্থ্য

হামে বিশ্বব্যাপী ঘণ্টায় ১৮ শিশুর মৃত্যু

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২০৮ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৪, ২০১৪
হামে বিশ্বব্যাপী ঘণ্টায় ১৮ শিশুর মৃত্যু ছবি : বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ঢাকা: বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার মতে বিশ্বব্যাপী প্রতিদিন হাম রোগে আক্রান্ত হয়ে ৪৩০ ও প্রতি ঘণ্টায় ১৮ শিশুর মৃত্যু হয়।

৯ মাস থেকে ১৫ বছরের কম বয়সী সব শিশুকে হাম ও রুবেলার হাত থেকে বাচাঁনোর জন্য হাম-রুবেলা টিকাদান কর্মসূচি-২০১৪ কার্যক্রম শুরু হয়েছে।



গ্লোবাল অ্যালায়েন্স ফর ভ্যাকসিন ইমিউনাইজেশন (গাভি), ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন (হু), রোটারি ইন্টারন্যাশনাল, ইউনিসেফ এবং লায়ন্স ক্লাব ইন্টারন্যাশনালের অর্থায়নে এবং বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচির (ইপিআই) মাধ্যমে এ টিকাদান কার্যক্রম পরিচালিত ও বাস্তবায়িত হচ্ছে।

শুক্রবার সকালে রাজধানীর শাহবাগে লায়ন্স ক্লাব ইন্টারন্যাশনাল মাল্টিপল জেলা ৩১৫ উদ্যোগে আয়োজিত এক ৠালিতে অংশগ্রহণ করে হাম-রুবেলা টিকাদান ক্যাম্পেইন-২০১৪ কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন করেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, লায়ন্স ক্লাব সবসময় সমাজের জন্য কাজ করে থাকে। বহু বছর থেকেই শিক্ষা, স্বাস্থ্য,  দুর্যোগ সচেতনতায় তারা বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করে আসছে।

এসময় হাম-রুবেলা থেকে শিশুদের বাঁচানোর জন্য টিকাদান কর্মসূচির এ উদ্যোগে তথ্যমন্ত্রী আয়োজকদের ধন্যবাদ জানান।

তিনি বলেন, মানুষকে বাঁচানোর জন্য আগামী প্রজন্মকে রোগমুক্ত করে একটি সুস্থ সবল জাতি উপহারে দল মত নির্বিশেষে সব রাজনীতিবিদের এ কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ ও সহযোগিতা করা উচিত।

এসময় লায়ন্সের মাল্টিপল কাউন্সিল চেয়্যারম্যান ডা. জগলুল আব্বাস মজুমদার বলেন, হাম ও রুবেলা একটি ভাইরাস জনিত মারাত্মক সংক্রমক রোগ। বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার মতে বিশ্বব্যাপী প্রতিদিন হাম রোগে আক্রান্ত হয়ে ৪৩০ ও প্রতি ঘণ্টায় ১৮ শিশুর মৃত্যু হয়।

বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার হিসেবে অনুযায়ী, ২০১১ সালে হামে আক্রান্ত হয়ে এক লাখ ৫৪ হাজার শিশু মৃত্যুবরণ করে। অন্যদিকে, রুবেলা ভাইরাসে প্রতি বছর প্রায় এক লাখ শিশু আক্রান্ত হয়। তাই হাম-রুবেলা মুক্ত বাংলাদেশ গড়ে তোলার জন্যই আমাদের এ ক্যাম্পেইন।

২৫ জানুয়ারি থেকে ১৩ই ফেব্রুয়ারি ২০১৪ পর্যন্ত তিনসপ্তাহব্যাপী এ টিকাদান ক্যাম্পেইন শুক্রবার ব্যতীত প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত চলবে বলেও জানান তিনি।

তিনি আরও জানান, এ ক্যাম্পেইনে সারাদেশে এক লাখ ৭১ হাজার ৫০টি টিকাদান কেন্দ্রের মাধ্যমে এক লাখ ৬০ হাজার ৮৩২টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে মোট পাঁচ কোটি ২০ লাখ শিশুকে টিকা দেওয়া হবে।

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুর নেতৃত্বে র‌্যালিতে অন্যান্যের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন ৬ জেলার ৬ জন গর্ভনর ও লায়ন্সের লিও সদস্যরা।

বাংলাদেশ সময়: ১২০২ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৪, ২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa