ঢাকা, শুক্রবার, ১৫ শ্রাবণ ১৪২৮, ৩০ জুলাই ২০২১, ১৯ জিলহজ ১৪৪২

স্বাস্থ্য

শিশুর হার্ট ভালো রাখতে চাই খেলার মাঠ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬২৩ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০১৩
শিশুর হার্ট ভালো রাখতে চাই খেলার মাঠ

ঢাকা: হার্টকে রোগমুক্ত রাখতে চাই সুস্থ শরীর, প্রফুল্ল মন। এই সচেতনতা ও শারীরিক শক্তি দরকার শৈশব থেকেই।

আর শিশুর হার্ট ভালো রাখতে প্রয়োজন নিয়মিত খেলাধুলা ও শরীর চর্চা। এ জন্য প্রতিটি স্কুলেই থাকা উচিৎ খেলার মাঠ।

বিশ্ব হার্ট দিবস উপলেক্ষ্য রোববার সকালে ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন আয়োজিত এক গণ-সেমিনারে এ পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা।
 
‘হার্টকে সুস্থ রাখার পথচলা শুরু হোক শৈশব থেকেই’ এ স্লোগান নিয়ে জনসাধারণের মধ্যে হৃদরোগের কারণ ও ঝুঁকি সম্পর্কে সচেতনতা বাড়াতে রোববার পালিত হচ্ছে বিশ্ব হার্ট দিবস।
 
জনসাধারণের মাঝে হৃদরোগ, হৃদরোগের কারণ ও ঝুঁকির বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ওয়ার্ল্ড হার্ট ফেডারেশনের উদ্যোগে বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও ২৯ সেপ্টেম্বর বিশ্ব হার্ট দিবস উদযাপন করা হয়।
 
মূল প্রবন্ধ উপস্থাপনায় ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশনের যুগ্ম মহাসচিব ডা. সিরাজুল ইসলাম বলেন, জীবনাচরণের কিছু সাধারণ নিয়ম, যেমন- স্বাস্থ্যসম্মত খাদ্য গ্রহণ, শারীরিকভাবে সক্রিয় হওয়া এবং তামাকজাত দ্রব্য গ্রহণ না করা, নিয়মিত রক্তচাপ ও ডায়াবেটিস পরিমাপ করা হৃদরোগ এবং স্ট্রোকের ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে।
 
তিনি বলেন, শৈশব থেকে স্বাস্থ্যসম্মত জীবন-যাপন শুরু করলে তা সারাজীবন চালিয়ে যাওয়া সম্ভব নয়। আর নিয়মের মধ্যে বেড়ে ওঠা শিশু যখন প্রাপ্ত বয়স্ক হয় তখন সে শঙ্কামুক্ত থাকতে পারে। শিশুদের হার্টের সুস্থতা রক্ষার জন্যে জরুরিভাবে পদক্ষেপ নেওয়া উচিত।
 
সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. ক্যাপ্টেন (অব) মুজিবুর রহমান ফকির বলেন, আগের চেয়ে দেশে হৃদরোগের চিকিৎসার অনেক উন্নতি হয়েছে।

স্বাস্থ্যখাতে এ সরকারের নেওয়া বিভিন্ন পদক্ষেপের কথাও এসময় তুলে ধরেন তিনি।
 
ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশনের তথ্য মতে, প্রতিবছর বিশ্বে ১ কোটি ৭৩ লাখ লোক হৃদরোগজনিত কারণে মারা যান। যার শতকরা ৮০ ভাগই স্বল্প ও মধ্য আয়ের দেশে।

ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন অব বাংলাদেশ ৪০ হাজার মানুষের মধ্যে জরিপ চালিয়ে দেখতে পায়, বেশির ভাগ হৃদরোগই নিয়ন্ত্রণ ও নিরাময়যোগ্য।

দিবসটিকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে পালন করে ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন। ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন প্রাঙ্গণে বিনামূল্যে হাটের চেক-আপ করা হয়।

ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন অব বাংলাদেশের মহাসচিব বিগ্রেডিয়ার জেনারেল (অব.) আব্দুল মালিক জানান, হৃদরোগে আক্রান্ত রোগীদের ক্ষেত্রে দেখা যায় যে তারা দীর্ঘদিন ধরে ধূমপানের কারণে মারাত্মকভাবে এ রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন। এতে তারা শারীরিক, মানসিক ও আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হন।

এজন্যে সবাইকে ধূমপান থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানান তিনি।

বাংলাদেশ সময়: ১৬০৬ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৯, ২০১৩
এমএন/এসএটি/এসআরএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa