[x]
[x]
ঢাকা, রবিবার, ১ পৌষ ১৪২৫, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮
bangla news

মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা বাতিলে শিক্ষার্থীদের আল্টিমেটাম

535 |
আপডেট: ২০১৫-০৯-২৩ ১০:১৬:০০ এএম
ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম (ফাইল ফটো)

ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম (ফাইল ফটো)

২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের এমবিবিএস-বিডিএস ভর্তি পরীক্ষা বাতির করে নতুনভাবে পরীক্ষা নেওয়ার জন্য সরকারকে ২৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়েছে শিক্ষার্থীরা। এ সময়ের মধ্যে দাবি না মানলে ২৮ সেপ্টেম্বর থেকে কঠোর আন্দোলনের হুমকি দিয়েছে তারা।

চট্টগ্রাম: ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের এমবিবিএস-বিডিএস ভর্তি পরীক্ষা বাতির করে নতুনভাবে পরীক্ষা নেওয়ার জন্য সরকারকে ২৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়েছে শিক্ষার্থীরা।  এ সময়ের মধ্যে দাবি না মানলে ২৮ সেপ্টেম্বর থেকে কঠোর আন্দোলনের হুমকি দিয়েছে তারা।

বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) বিকাল সাড়ে তিনটায় চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব মিলনায়তনে এক সাংবাদিক সম্মেলন থেকে সরকারকে এ সময় বেঁধে দেওয়া হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থী মানসুরা মেহেরুন।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘পাবলিক পরীক্ষায় এখন মেধাকে মূল্যয়ন করা হচ্ছে না।  এটি শিক্ষা ব্যবস্থাকে ধ্বংস করার ষড়যন্ত্র।  কারণ আমরা কষ্ট করে সারাবছর কঠোর পরিশ্রম করে পড়ালেখা করেছি। কিন্তু একটি বিশেষ মহল পরীক্ষার আগের দিন প্রশ্নপত্র পেয়ে গেছেন। যা পরেরদিনের পরীক্ষার প্রশ্নের সঙ্গে পুরো মিল রয়েছে। ’
তিনি বলেন, ‘আমরা শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে বিশ্বাসী।  আমরা মানববন্ধন, অবস্থান কর্মসূচি ও স্মারকলিপির মাধ্যমে সরকারকে আমাদের দাবির ব্যাপারে পরিষ্কার করেছি। কিন্তু সরকার এখনো এ বিষয়ে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি।  উল্টো বিভিন্ন গণমাধ্যমে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন কর্মকর্তারা মেডিকেলের কোন প্রশ্ন ফাঁস হয়নি বলে বিবৃতি দিয়েছেন।  আগামী ২৭ সেপ্টেম্বরের আমাদের দাবি মেনে না নিলে ২৮ সেপ্টেম্বর থেকে সারাদেশে কঠোর আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা কররো।   তখন সব দায় দায়িত্ব সরকারকেই নিতে হবে। ’

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থী অনিরুদ্ধ বড়ুয়া, সাদিয়া মৌ, আরফানুর রহমান, মাহিয়া তানজীন, অভিভাবক নাসরিন চৌধুরী।

এর আগে বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টায় প্রেসক্লাব সড়কের একপাশে অবস্থান নেয় প্রায় দুই শতাধিক শিক্ষার্থী। একইসঙ্গে জনমত গঠনের লক্ষ্যে গণস্বাক্ষর কর্মসূচিও পালন করে তারা। শিক্ষার্থীদের এ আন্দোলনের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করে অবস্থান কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছেন অভিভাবকরাও। 

গত শুক্রবার সরকারি-বেসরকারি মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজগুলোর সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা হয়, যাতে অংশ নেন ৮৩ হাজার শিক্ষার্থী। রোববার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর যে ফল ঘোষণা করেছে, তাতে ভর্তির যোগ্য শিক্ষার্থী পাওয়া গেছে ৪৮ হাজার ৪৪৮ জন।

এ পরীক্ষার ‘প্রশ্নপত্র ফাঁসে’ জড়িত থাকার অভিযোগে কয়েকজনকে গ্রেপ্তারের পর পরীক্ষা বাতিলের দাবিতে শনিবার থেকে দেশের বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ করে পরীক্ষার্থীরা।

বাংলাদেশ সময়:  ২০১৬ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১৫
বিপি/

** প্রেসক্লাবের সামনের সড়কে মেডিকেল ভর্তিচ্ছুদের অবস্থান

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db