ঢাকা, বুধবার, ২ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৭ জুলাই ২০১৯
bangla news

কর্মবিরতিতে সরকারি কলেজ শিক্ষকরা

544 |
আপডেট: ২০১৫-০৯-১৯ ১:৫৪:০০ এএম

অষ্টম জাতীয় বেতন কাঠামোতে সিলেকশন গ্রেড ও টাইম স্কেল বাদ দেওয়ার প্রতিবাদে সারা দেশের সরকারি কলেজে কর্মবিরতি পালন করছেন শিক্ষকরা।

ঢাকা: অষ্টম জাতীয় বেতন কাঠামোতে সিলেকশন গ্রেড ও টাইম স্কেল বাদ দেওয়ার প্রতিবাদে সারা দেশের সরকারি কলেজে কর্মবিরতি পালন করছেন শিক্ষকরা।

বিসিএস শিক্ষক সমিতির আহ্বানে শনিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) থেকে দুই দিনের কর্মবিরতি পালন করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন সমিতির মহাসচিব আই কে সেলিম উল্লাহ খোন্দকার।

তিনি বাংলানিউজকে বলেন, সব সরকারি কলেজের শিক্ষকরা সরকারি কলেজ, আলিয়া মাদরাসা, শিক্ষক প্রশিক্ষণ (টিটি) কলেজ, গভ. কমার্শিয়াল ইনস্টিটিউট, শিক্ষাবোর্ড, শিক্ষা সংশ্লিষ্ট অফিস ও প্রকল্পে পূর্ণদিবস কর্মবিরতি চলছে।

কর্মবিরতি চলাকালে কলেজ শিক্ষকেরা সব ধরনের অভ্যন্তরীণ পরীক্ষা এবং জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন পরীক্ষা বর্জন করার ঘোষণা দিয়েছেন।

তবে, সরকরি কর্ম কমিশনের (পিএসসি) একটি নিয়োগ পরীক্ষা কর্ম বিরতির আওতামুক্ত থাকবে বলে জানিয়েছে বিসিএস শিক্ষক সমিতি।

এর আগে গত ১০ সেপ্টেম্বর প্রতিষ্ঠানগুলোতে পূর্ণদিবস কর্মবিরতি পালন করেন শিক্ষকরা।

তাদের অভিযোগ, সিলেকশন গ্রেড না থাকায় অধ্যাপকরা চতুর্থ গ্রেড থেকে অবসরে যাবে, এতে অন্য ক্যাডারের কর্মকর্তারা উচ্চ পদগুলোতে আসবে, এটা বৈষম্যমূলক।

শিক্ষকদের কর্মবিরতির কারণে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টার্সের শনিবারের একটি পরীক্ষা পিছিয়ে ৩১ অক্টোবর নেওয়া হয়েছে।

কর্মবিরতি প্রাথমিকেও:
বেতন স্কেল পুনর্নির্ধারণসহ ছয় দফা দাবি পূরণে দেশের সহকারি প্রাথমিক শিক্ষকদের চারটি সংগঠন শনিবার থেকে কর্মবিরতি পালন করছে।

১৯-২১ সেপ্টেম্বর সকাল ৯টা থেকে ১২টা এবং ২২ সেপ্টেম্বর সারা দিন কর্মবিরতি পালন করবেন তারা।

শুক্রবার শিক্ষকদের চারটি সংগঠন- বাংলাদেশ প্রাথমিক সহকারি শিক্ষক সমাজ, বাংলাদেশ প্রাথমিক বিদ্যালয় সহকারী শিক্ষক সমিতি, বাংলাদেশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সহকারী শিক্ষক সমিতি ও বাংলাদেশ প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক ফোরাম কর্মবিরতির ঘোষণা দেয়।

শিক্ষকদের দাবিগুলো হলো:
সহকারী শিক্ষকদের বেতন ১১তম গ্রেডে পুনর্নির্ধারণ, সরাসরি প্রধান শিক্ষক পদে নিয়োগ বন্ধ করে সহকারী শিক্ষকদের মধ্য থেকে নিয়োগ দেওয়া, শিক্ষক নিয়োগে নারী-পুরুষ নির্বিশেষে স্নাতক ডিগ্রি নির্ধারণ করা, জাতীয় শিক্ষানীতি অনুযায়ী শিক্ষকদের জন্য বেতন স্কেল ঘোষণা ও প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত করা, টাইম স্কেল ও সিলেকশন গ্রেড পুনর্বহাল এবং প্রাথমিক শিক্ষকদের জন্য অর্জিত ছুটির বিধান করা।

এসব দাবিতে আগামী ১৫ অক্টোবর সকাল ৯টা থেকে বেলা ৩টা পর্যন্ত জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে প্রতীকী অনশনের ঘোষণাও দিয়েছেন সংগঠনের নেতারা।

বাংলাদেশ সময়: ১১৫২ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৯, ২১০৫
এমআইএইচ/এমজেএফ/

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2015-09-19 01:54:00