[x]
[x]
ঢাকা, সোমবার, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ১৯ নভেম্বর ২০১৮
bangla news

৬ মাদ্রাসা ছাত্রীকে মারধর, সুপার আটক

346 |
আপডেট: ২০১৫-০৯-০১ ১০:৪৮:০০ এএম

পঞ্চগড়ের আটোয়ারী উপজেলার নতুনহাট তড়িয়া দাখিল মাদ্রাসার সুপারিনটেনডেন্ট (সুপার) কলিম উদ্দীনের বিরুদ্ধে ছয় ছাত্রীকে মারধর করার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী মাদ্রাসা সুপারকে তার কার্যালয়ে অবরুদ্ধ করে রাখে।

পঞ্চগড়: পঞ্চগড়ের আটোয়ারী উপজেলার নতুনহাট তড়িয়া দাখিল মাদ্রাসার সুপারিনটেনডেন্ট (সুপার) কলিম উদ্দীনের বিরুদ্ধে ছয় ছাত্রীকে মারধর করার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী মাদ্রাসা সুপারকে তার কার্যালয়ে অবরুদ্ধ করে রাখে।

মঙ্গলবার (১ সেপ্টেম্বর) দুপুর আড়াইটার দিকে মারধরের ঘটনা ঘটে। সন্ধ্যা ৬টার দিকে আটোয়ারী থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ওই মাদ্রাসা সুপারকে আটক করলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

আহত শিক্ষার্থীরা হলেন-মাদ্রাসার সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী লাবনী, শ্রাবনী, সাথী, আর্নিকা, রুকসানা ও জেনি। তাদের মধ্যে লাবনীকে আটোয়ারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। বাকিরা প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, দুপুরে মাদ্রাসা সুপার কলিম উদ্দীন সপ্তম শ্রেণিতে পাঠদান করছিলেন। এ সময় ওই ছয় ছাত্রী শ্রেণিকক্ষে উপস্থিত না হয়ে কমনরুমে অবস্থান করছিলো। এতে মাদ্রাসা সুপার ক্ষিপ্ত হয়ে কমনরুমে গিয়ে বেত দিয়ে তাদের মারধর করেন। এতে লাবনী অজ্ঞান হয়ে পড়ে।
 
বিষয়টি জানাজানি হলে অভিভাবকরা ও এলাকাবাসী বিক্ষুব্ধ হয়ে মাদ্রাসায় এসে অফিস কক্ষে কফিল উদ্দীনকে অবরুদ্ধ করে রাখে। খবর পেয়ে পুলিশ তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত আটক মাদ্রাসা সুপার আটোয়ারী থানা পুলিশ হেফাজতে ছিলেন।

আটোয়ারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ আলম বিষয়টি নিশ্চিত করে বাংলানিউজকে জানান, মাদ্রাসা সুপার কফিল উদ্দীন পুলিশ হেফাজতে আছেন। সুনির্দিষ্ট অভিযোগ পেলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বাংলাদেশ সময়: ২০৪৩ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১, ২০১৫
এমজেড

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db