[x]
[x]
ঢাকা, বুধবার, ৬ চৈত্র ১৪২৫, ২০ মার্চ ২০১৯
bangla news

জিএসপি পুনর্বহাল না হওয়া ‘রাজনৈতিক কারণ’

623 |
আপডেট: ২০১৫-০৮-১১ ৪:৪০:০০ এএম
বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ

রাজনৈতিক কারণে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে বাংলাদেশের পণ্য অগ্রাধিকার বাণিজ্য (জিএসপি) সুবিধা পায়নি বলে মন্তব্য করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

ঢাকা: রাজনৈতিক কারণে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে বাংলাদেশের পণ্য অগ্রাধিকার বাণিজ্য (জিএসপি) সুবিধা পায়নি বলে মন্তব্য করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

মঙ্গলবার (১১ আগস্ট) সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, রাজনৈতিক কারণ ছাড়া, রাজনৈতিকভাবে বাংলাদেশকে বিবেচনা করা ছাড়া জিএসপি না পাওয়ার কোনো কারণ নেই।

তিনি বলেন, যেখানে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা নাইরোবিতে বাংলাদেশের প্রশংসা করেছেন, সেখানে সামান্য জিএসপি সুবিধা না পাওয়ার আর কোনো কারণ নেই।

জিএসপি সুবিধা না পেলেও বাংলাদেশের কোনো ক্ষতি হবে না বলে দাবি করেন বাণিজ্যমন্ত্রী।

গত ২৯ জুলাই থেকে বিশ্বের ১২২টি দেশ ও অঞ্চলের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে জিএসপি পুনর্বহাল করা হয়। এতে স্থান পায়নি বাংলাদেশ।

রানা প্লাজা ধসে ব্যাপক হতাহতের পর ২০১৩ সালের ২৭ জুন বাংলাদেশের জিএসপি সুবিধা স্থগিত করে যুক্তরাষ্ট্র। ওই বছরের ১ সেপ্টেম্বর থেকে এটি কার্যকর রয়েছে।

জিএসপির জন্য যুক্তরাষ্ট্রের ১৬টি শর্ত পূরণ করা হয়েছে জানিয়ে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, এ শর্তের চেয়ে বেশি কিছু করলেও তারা স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করবে না। আমরা আশা করবো, আমাদের সঙ্গে যেহেতু টিকফা (ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট কো-অপারেশন ফ্রেমওয়ার্ক এগ্রিমেন্ট) আছে, এর আওতায় তারা স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করবে।

জিএসপি ফিরিয়ে না দেওয়ার ব্যাখ্যা চাওয়া কিংবা নতুন করে উদ্যোগ নেওয়া হবে কিনা- প্রশ্নে মন্ত্রী বলেন, আমরা আমাদের শর্ত পূরণ করেছি। আমাদের আর কিছু করার নেই।

জিএসপি ফিরে পেতে ট্রেড ইউনিয়ন বাধা কি না- এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, আমাদের দেশের কিছু শ্রমিক নেতা যারা কারখানায় কাজ করেন না, যারা আন্তর্জাতিক কোনো কোনো শ্রমিক সংগঠনের সঙ্গে জড়িত তারা আমাদের অনেক ক্ষতি করেছেন।

তৈরি পোশাক খাতে যুক্তরাষ্ট্র ছাড়া সব দেশই বাংলাদেশকে শুল্ক ও কোটামুক্ত বাজার সুবিধা দিয়েছে বলেও জানান মন্ত্রী।

১২২টি দেশ আগেও জিএসপি সুবিধা পেত জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, এখানে নতুন দেশের নাম যুক্ত হয়নি। জিএসপি স্থগিতে আমাদের রফতানির কোনো ক্ষতি হয়নি। জিএসপি স্থগিতের পর প্লাস্টিক ও সিরামিক পণ্যের রফতানির প্রবৃদ্ধি বেড়েছে। জিএসপি বাতিল হয়নি, তা এখনও স্থগিত আছে।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী বিশেষ দেশের প্রতি বিশেষ নজর না দিয়ে বাজার বহুমুখীকরণের দিকে নজর দেবো বলে জানান মন্ত্রী। আমরা মনে করি, বাংলাদেশের তৈরি পোশাক একদিন পৃথিবীতে এক নম্বর হবে। কোনো কিছুই আমাদের অগ্রযাত্রাকে বাধাগ্রস্ত করতে পারবে না।

এর আগে বাংলাদেশে নিযুক্ত স্লোভেনিয়ার রাষ্ট্রদূত দারজা বাভদাজ কুরেত মন্ত্রীর সঙ্গে মতবিনিময় করেন।

এ প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, স্লোভেনিয়ার সহযোগিতায় ফুড প্রসেসিং ইন্ডাস্ট্রি করতে পারি। হাইড্রোলিক পাওয়ার প্ল্যান্ট করলেও তারা সহায়তা করতে পারবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৩৯ ঘণ্টা, আগস্ট ১১, ২০১৫
এমআইএইচ/এএসআর

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db