ঢাকা, মঙ্গলবার, ৫ ভাদ্র ১৪২৬, ২০ আগস্ট ২০১৯
bangla news

বগুড়ায় হত্যার দায়ে ৩ জনের যাবজ্জীবন, ৯ জন খালাস

276 |
আপডেট: ২০১৫-০৫-১৪ ৮:৩৪:০০ এএম

জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে বগুড়ায় হত্যার দায়ে ৩ জনের যাবজ্জীবন ও প্রত্যকেকে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানাদেশ দিয়েছেন আদালত। একইসঙ্গে মামলার অপর ৯ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাদের খালাস দেওয়া হয়েছে।

বগুড়া: জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে বগুড়ায় হত্যার দায়ে ৩ জনের যাবজ্জীবন ও প্রত্যকেকে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানাদেশ দিয়েছেন আদালত। একইসঙ্গে মামলার অপর ৯ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাদের খালাস দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৪ মে) যাবতীয় সাক্ষ্য প্রমাণ শেষে আসামিদের বিরুদ্ধে আন‍া অভিযোগ দণ্ডবিধির ৩০২/৩৪ ধারায় সন্দহোতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় বগুড়ার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত-৩ এর বিচারক মো. হাফিজুর রহমান এ আদেশ দেন।

যাবজ্জীবন প্রাপ্ত ব্যক্তিরা হলেন বগুড়া সোনাতলা উপজেলার চারালকান্দী টগিরপাড়া এলাকার হামেদ আলীর ছেলে শফিকুল ইসলাম, একই এলাকার রমজান আলীর ছেলে বাবু মিয়া ও মৃত হাফিজ উদ্দিনের ছেলে আব্দুস সাত্তার। এদের মধ্যে শফিকুল ইসলাম পলাতক রয়েছেন।

মামলা থেকে খালাস পেয়েছেন একই এলাকার হেলার উদ্দিন, পিস্তল মিয়া, সাহাদ‍তুজ্জামান রাজা, দুখু মিয়া, রোস্তম আলী, মোছা. বেলী বেগম, সাহেরা বেগম, মেরিনা বেগম ও তাছমা বেগম।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী হেলালুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বাংলানিউজকে জানান, ২০০৮ সালের ১৭ সপ্টেম্বের সকাল পৌনে ৯টার দিকে জমি নিয়ে সৃষ্ট শত্রুতার জরে ধরে শফিকুল ইসলাম, বাবু মিয়া ও আব্দুস সাত্তারসহ অন্যান্য আসামিরা টগিরপাড়ার এলাকার আনোয়ার হোসেন মন্ডলের ছেলে রওশন আলম রতনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে।

ওই দিন রাতেই রতনের ভাই আবু সামাদ টিপু বাদী হয়ে থানায় ১৪ জনের নাম উল্লেখ করে দণ্ডবিধির ১৪৯/৩২৩/২২৪/৩০৭/৩০২/১১৪/৩৪ ধারায় সোনাতলা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

পরবর্তীতে ২০০৯ সালের ২৮ মে মামলার বিচার কাজ শুরু হয়। আসামি পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন আইনজীবী নজরুল ইসলাম, আমিরুল ইসলাম, আসলাম আঙ্গুর ও আব্দুল মতিন মন্ডল।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৩৪ ঘণ্টা, মে ১৪, ২০১৫
এটি/

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db 2015-05-14 08:34:00