[x]
[x]
ঢাকা, বুধবার, ৬ চৈত্র ১৪২৫, ২০ মার্চ ২০১৯
bangla news

৩০০ ইয়াজিদি বন্দিকে হত্যা করলো আইএস

1603 |
আপডেট: ২০১৫-০৫-০২ ১১:৩৪:০০ পিএম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

ইরাকে সংখ্যালঘু ইয়াজিদি সম্প্রদায়ভুক্ত প্রায় তিনশ’ বন্দিকে হত্যা করেছে জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএস)। ইয়াজিদি ও ইরাকি কর্মকর্তাদের উদ্ধৃত করে রোববার (৩ মে) আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, শুক্রবার (১ মে) মসুল শহরের পশ্চিমাঞ্চলের তাল আফার জেলায় ওই বন্দিদের হত্যা করা হয়।

ঢাকা: ইরাকে সংখ্যালঘু ইয়াজিদি সম্প্রদায়ভুক্ত প্রায় তিনশ’ বন্দিকে হত্যা করেছে জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএস)।

ইয়াজিদি ও ইরাকি কর্মকর্তাদের উদ্ধৃত করে রোববার (৩ মে) আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, শুক্রবার (১ মে) মসুল শহরের পশ্চিমাঞ্চলের তাল আফার জেলায় ওই বন্দিদের হত্যা করা হয়।

গত বছর এ সম্প্রদায়ের হাজারোধিক লোককে বন্দি করে নিয়ে যায় আইএস জঙ্গিরা। তবে, এখন তাদের কী কারণে হত্যা করা হয়েছে তা জানা যায়নি।

এ হত্যাকাণ্ডকে ‘বীভৎস ও বর্বর’ বলে অভিহিত করেছেন ইরাকি প্রধানমন্ত্রী ওসামা আল-নুজাইফি।

অপরদিকে হত্যাকাণ্ডকে ‘নৃশংস অপরাধ’ অভিহিত করে ইয়াজিদি প্রগ্রেস পার্টির পক্ষ থেকে একটি বিবৃতি দেওয়া হয়। বিবৃতিতে আইএসের হাতে বন্দি অন্য মানুষদের উদ্ধারে ইরাকি বাহিনীকে অবিলম্বে অভিযানে নামার আহ্বানও জানানো হয়।

বেশ কিছু বিশ্বাসের ওপর গড়ে ওঠা ইয়াজিদিদের ধর্মকে ‘কুফুরি’ ও তাদের ‘কাফের’ বলে বিবেচনা করে আইএস।

গত বছর হাজারোধিক ইয়াজিদিকে আটক করা হলেও গত জানুয়ারিতেই প্রায় দুইশ’ জনকে ছেড়ে দেয় জঙ্গিরা। তবে, বন্দি বাকি ইয়াজিদিদের এখন আইএসের শক্ত ঘাঁটি মসুলেই রাখা হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

আইএস নামে পরিচিত সুন্নি সম্প্রদায়পন্থি এ জঙ্গি সংগঠন সিরিয়া ও ইরাকের বিশাল এলাকা দখলে নিয়েছে। গত বছরের জুনে ইরাকের অন্যতম বৃহৎ শহর মসুলসহ বেশ কিছু অঞ্চল দখলে নেয় আইএস। এরপর দখলে নেয় খ্রিস্টান অধ্যুষিত শহর কারোকোশসহ বেশ কিছু অঞ্চল।

আইএসের হত্যাযজ্ঞে মানবিক বিপর্যয় সৃষ্টি হলে তাদের দমনে গত সেপ্টেম্বরে অভিযানে নামে যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বে আন্তর্জাতিক বাহিনী। আইএস ধীরে ধীরে কোণঠাসা হয়ে পড়ছে বলে দাবি করছে পশ্চিমা সংবাদমাধ্যম।

বাংলাদেশ সময়: ০৯৩০ ঘণ্টা, মে ০৩, ২০১৫
এইচএ/

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db