[x]
[x]
ঢাকা, বুধবার, ৬ চৈত্র ১৪২৫, ২০ মার্চ ২০১৯
bangla news

কর্ণফুলীর তীরে তারুণ্যের বৈশাখ’র বর্ষবরণ

551 |
আপডেট: ২০১৫-০৪-১৫ ১:৩৬:০০ এএম
ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

তারুণ্যের বৈশাখ উদযাপন পরিষদের উদ্যোগে কর্ণফুলীর তীরে ব্যতিক্রমধর্মী বিভিন্ন আয়োজনের মধ্য দিয়ে বৈশাখের প্রথম দিনটি বরণ করে নিলো চট্টগ্রামবাসী। বৈশাখ উদযাপনের রীতিকে বদলে দিয়ে পুরো বাঙালিয়ানা ঢঙে বর্ষবরণের এ অনুষ্ঠানে ছিলো উপচে পড়া ভিড়।

চট্টগ্রাম: তারুণ্যের বৈশাখ উদযাপন পরিষদের উদ্যোগে কর্ণফুলীর তীরে ব্যতিক্রমধর্মী বিভিন্ন আয়োজনের মধ্য দিয়ে বৈশাখের প্রথম দিনটি বরণ করে নিলো চট্টগ্রামবাসী। বৈশাখ উদযাপনের রীতিকে বদলে দিয়ে পুরো বাঙালিয়ানা ঢঙে বর্ষবরণের এ অনুষ্ঠানে ছিলো উপচে পড়া ভিড়। কর্ণফুলীর দখিনা বাতাস, নদী পাড়ের মোহময়তা এবং বিভিন্ন আয়োজনের মধ্য দিয়ে নতুন বছরকে বরণ করে নিতে অভয়মিত্র ঘাট পরিণত হয় হাজার মানুষের মিলনমেলায়।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে সাতটায় আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন বাঁশি শিল্পী ওস্তাদ ক্যাপ্টেন আজিজুল ইসলাম বংশীবাদনের মধ্য দিয়ে পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠানমালার সূচনা ঘটে।  একে একে অনুষ্ঠিত হয় বৈশাখী সাজ প্রতিযোগিতা, ঘুড়ি উৎসব। কর্ণফুলীকে বাঁচানোর দাবিতে প্রায় ১০০টি সাম্পান নিয়ে র‌্যালি বের করে তারুণ্যের বৈশাখ।

অনুষ্ঠানে সাংবাদিক ও টেলিভিশন ব্যক্তিত্ব আবেদ খান বলেন, সত্যিকার অর্থেই পহেলা বৈশাখ ধর্মনিরপেক্ষ ও মানবিক অনুষ্ঠান, বাঙালির উদার সামাজিক ও সাংস্কৃতিক পরিচয়কে ঊর্ধ্বে তুলে ধরার অনুষ্ঠান। এদিনে পৃথিবীব্যাপী বাঙালির নির্মল আনন্দ প্রকাশের জন্য একত্রিত হয়ে নববর্ষ পালনের এই উদ্যোগ সত্যি আমাদের আশান্বিত করে।

তিনি বলেন, পয়লা বৈশাখের সকাল বেলা নানা বৈশাখী আয়োজনে জনস্রোত দেখে আমাদের মনে সত্যি আশা জাগে। শুভ ও সুন্দরের পানে বাঙালি জাতির অগ্রযাত্রাকে থামিয়ে দেবার জন্য ধর্মের অপব্যাখ্যাকারীদের নিষেধ সত্ত্বেও যেভাবে মানুষ নববর্ষের মুক্ত বাতাস প্রাণে ভরতে এগিয়ে আসেন তাতে মনে হয়, বিকাশমান বাঙালিকে চাইলেই কোনো অপশক্তি নিরুদ্দেশে পাঠাতে পারবে না।

‘অনুকরণীয় আদর্শ তারুণ্য’ পদক প্রদান এবং সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সাংবাদিক ও টেলিভিশন ব্যক্তিত্ব আবেদ খান। পদক গ্রহণ করেন সংসদ সদস্য ওয়াসিকা এ খান।  আরও বক্তব্য রাখেন পরিষদের প্রধান পৃষ্ঠপোষক ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতা আমিনুল ইসলাম আমিন, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব মফিজুর রহমান, প্রধান উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট সীমান্ত তালুকদার, অন্যতম উপদেষ্টা ও প্রধান নির্বাহী লেখক-সাংবাদিক শওকত বাঙালি, সাংস্কৃতিক উপদেষ্ট আবৃত্তিশিল্পী অঞ্চল চৌধুরী ও অ্যাডভোকেট মিলি চৌধুরী, উপদেষ্টা হেলাল উদ্দিন, চেয়ারম্যান মো. আজাহার উদ্দিন, মহাসচিব সাজ্জাত হোসেন, কো-চেয়ারম্যান কবি মোহাম্মদ জোবায়ের ও লায়ন মো. মহিউদ্দিন সোহেল প্রমুখ।

‘হে সূর্য, তোমার আলোকের আবরণ খোলো, আমি সত্যকে দেখি’ এ শিরোনামে আয়োজনের সমাপনী দিনে একক আবৃত্তি করেন আবৃত্তিশিল্পী রণজিৎ রক্ষিত, অঞ্চল চৌধুরী ও অ্যাডভোকেট মিলি চৌধুরী। একক গানে অংশ নেন অশোক সেন গুপ্ত, প্রদীপ দাশ, অনামিকা তালুকদার, সুতপা চৌধুরী মুমু, পাপড়ি ভট্টাচার্য, হাসান জাহাঙ্গীর। দলীয় পরিবেশনায় অংশ নেয় নৃত্যম অ্যাকাডেমি, সানি টিউটোরিয়াল, স্বপ্তস্বর সঙ্গীতাঙ্গন, সুন্দরম শিল্পীগোষ্ঠী, শহীদ মিলন পরিষদ, বোধন আবৃত্তি পরিষদ, গোধূলী সঙ্গীত নিকেতন, সুরসাধনা সঙ্গীতালয়, ওডেব সাংস্কৃতিক দল, অপরাজেয় বাংলাদেশ, স্বপ্তস্বর সঙ্গীত বিদ্যালয়, তারুণ্যের উচ্ছ্বাস, ইমন কল্যাণ সঙ্গীত বিদ্যাপীঠ, গুরুকূল সঙ্গীত অ্যাকাডেমি, নৃত্য নিকেতন, শিল্পাঙ্কন শিল্পী গোষ্ঠী, সন্দ্বীপনা সাংস্কৃতিক ফোরাম, আওয়ামী শিল্পী গোষ্ঠী, প্রতিভা সঙ্গীত অ্যাকাডেমি। কবির লড়াইয়ে অংশ নেন কবিয়াল মো. আবু ইউসুফ ও আবদুল মান্নান। দৃষ্টি চট্টগ্রামের তত্ত্বাবধানে পরিবেশিত হয় বিশেষ রম্য বিতর্ক। বাঙালিয়ানা ফ্যাশন শো পরিবেশন করে মডেল ওয়ার্ল্ড। আবৃত্তিশিল্পী শওকত বাঙালি, অ্যাডভোকেট মিলি চৌধুরী ও সুমি চৌধুরী সঞ্চালনায় সাংস্কৃতিক আয়োজনে অংশ নেয় তারুণ্যের ব্যান্ডদল ‘শহরতলী। 

দু’দিনের আয়োজন সরাসরি সম্প্রচার করে একাত্তর টেলিভিশন।  মিডিয়া পার্টনার হিসেবে ছিল দেশের শীর্ষস্থানীয় ও জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম ও দৈনিক পূর্বদেশ।

বাংলাদেশ সময়: ১১২৮ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৫, ২০১৫
আইএসএ/টিসি

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db