ঢাকা, রবিবার, ৩ ভাদ্র ১৪২৬, ১৮ আগস্ট ২০১৯
bangla news

শিল্পকলায় নান্দীমুখের নাট্যোৎসব শুরু

361 |
আপডেট: ২০১৫-০১-০২ ৯:৫৩:০০ এএম
ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

আনন্দলোকে মঙ্গলালোকে গীতধ্বনির মাধ্যমে মঙ্গলপ্রদীপ জ্বালিয়ে উদ্বোধন হল চট্টগ্রামের নাট্যচর্চার সংগঠন নান্দীমুখ আয়োজিত দক্ষিণ এশিয়া নাট্যোৎসব। শুক্রবার সন্ধ্যায় চট্টগ্রাম শিল্পকলা একাডেমি মুক্তমঞ্চে নয় দিনব্যাপি এ উৎসব শুরু হয়।

চট্টগ্রাম: আনন্দলোকে মঙ্গলালোকে গীতধ্বনির মাধ্যমে মঙ্গলপ্রদীপ জ্বালিয়ে উদ্বোধন হল চট্টগ্রামের নাট্যচর্চার সংগঠন নান্দীমুখ আয়োজিত দক্ষিণ এশিয়া নাট্যোৎসব।

শুক্রবার সন্ধ্যায় চট্টগ্রাম শিল্পকলা একাডেমি মুক্তমঞ্চে নয় দিনব্যাপি এ উৎসব শুরু হয়।

আয়োজক সংগঠন নান্দীমুখ নাট্যদলের নাটক তবুও মানুষ পরিবেশনের মধ্য দিয়ে  শুরু হয়েছে বর্ণাঢ্য এ নাট্যোৎসব।  নাট্যোৎসবে অংশগ্রহণ করেছে বাংলাদেশ, ভারত ও নেপালের নয়টি নাট্যদল।

অভ্যুদয় সঙ্গীত অঙ্গনের উদ্বোধনী সঙ্গীত ও স্কুল অব ওরিয়েন্টাল ডান্সের নৃত্য পরিবেশনায় উদ্বোধন হয় নাট্যোৎসব।  উদ্বোধনের সঙ্গে সঙ্গে নান্দীমুখের নাট্যকর্মীরা ফানুস উড়িয়ে দেন।

নাট্যোৎসবের উদ্বোধন করেন দৈনিক আজাদী পত্রিকার সম্পাদক এম. এ. মালেক।

নান্দীমুখের সভাপতি অভিজিৎ সেনগুপ্তের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন সংস্কৃতি সচিব ড. রণজিৎ কুমার বিশ্বাস। বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন ভারতের বিশিষ্ট নাট্য গবেষক ড.কুন্তল মুখোপাধ্যায়, নাট্য নির্দেশক ও অভিনেতা সমীর বিশ্বাস এবং বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনের সেক্রেটারী জেনারেল আকতারুজ্জামান।

সংস্কৃতি সচিব প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, আমি যেকোনো অনুষ্ঠানে দুটি কারণে যাই। যে অনুষ্ঠানে গেলে আমি আলোকিত হতে পারি আর যে অনুষ্ঠানে গেলে আমি নিজের ক্ষুদ্রতাকে অনুভব করতে পারি। আজ এ অনুষ্ঠানে এসে আমি নাটকের আলোয় আলোকিত হলাম।

ড.রণজিৎ কুমার বিশ্বাস বলেন, আমাদের দেশে যত অশুভ ছায়া পড়ুক, বাংলার প্রতিটি মানুষ যেন জেগে থাকে। আমাদের ঘুম যেন টুটে যায়।

উদ্বোধক দৈনিক আজাদীর সম্পাদক  এম এ মালেক বলেন, নাট্যকাররা আমাদের জীবনের ভেতর বাহির তুলে আনে। আমাদের জীবনের পরিণতি আমরা নাটকের মাধ্যমে দেখতে পাই।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ভারতীয় নাট্যকাররা তাদের  বক্তব্যে ভারত বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক যোগাযোগ এগোনোর মাধ্যমে ইতিবাচক কাজ চালিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে নান্দীমুখ পরিবেশন করে নাটক তবুও মানুষ। নাটকটি নির্দেশনা দিয়েছেন অভিজিৎ সেনগুপ্ত।

নয় দিনব্যাপি এ উৎসব চলবে ১০জানুয়ারি পর্যন্ত।  ৩ জানুয়ারি ভারতের  মাঙ্গলিক নাট্যদলের নাটক মানুষ ভূত,৪ জানুয়ারি ভারতের সংলাপ কোলকাতা নাট্যদলের  প্রযোজনা নিরাশ্রয়, ৫ জানুয়ারি ঢাকার  বটতলা নাট্যদলের নিরীক্ষাধর্মী প্রযোজনা দি ট্রায়াল অব মালাই ইলিয়া, ৬ জানুয়ারি আয়োজক সংগঠন নান্দীমুখ নাট্যদলের প্রযোজনা উর্ণাজাল,৭ জানুয়ারি পদাতিক নাট্য সংসদ বাংলাদেশ নাট্যদলের নতুন নাটক সৃজন পোড়ামাটি, ৮ জানুয়ারি বিবর্তন যশোর নাট্যদলের প্রযোজনা বিসর্জন, ৯ জানুয়ারি নেপালের মান্ডালা থিয়েটারের নিরীক্ষাধর্মী প্রযোজনা জাম্পিং ফ্রগ, ১০ জানুয়ারি ভারতের  রঙ্গাশ্রম নাট্যদলের প্রতারক পরিবেশিত হবে।

নান্দীমুখ নাট্যদলের রজতজয়ন্তী উপলক্ষে বছরব্যাপী অনুষ্ঠানমালার এটি প্রথম আয়োজন বলে জানিয়েছেন আয়োজকেরা। এছাড়া প্রতিদিন অনিরুদ্ধ মুক্তমঞ্চে রয়েছে প্রতিথযশা শিল্পীদের পরিবেশনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

বাংলাদেশ সময়:২০৪৩ ঘন্টা,জানুয়ারি ০২, ২০১৫

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2015-01-02 09:53:00