ঢাকা, বুধবার, ৫ ভাদ্র ১৪২৬, ২১ আগস্ট ২০১৯
bangla news

ডেভিড বার্গম্যানের আদালত অবমাননার আদেশ ১৭ এপ্রিল

286 |
আপডেট: ২০১৪-০৩-৩১ ৩:৩৬:০০ এএম
ব্রিটিশ নাগরিক সাংবাদিক ডেভিড বার্গম্যান

ব্রিটিশ নাগরিক সাংবাদিক ডেভিড বার্গম্যান

ব্রিটিশ নাগরিক সাংবাদিক ডেভিড বার্গম্যানের বিরুদ্ধে ব্লগে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল সংশ্লিষ্ট বিষয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করার মাধ্যমে আদালত অবমাননার অভিযোগের শুনানি শেষ হয়েছে। আগামী ১৭ এপ্রিল এ বিষয়ে আদেশ দানের দিন ধার্য করেছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২।

ঢাকা: ব্রিটিশ নাগরিক সাংবাদিক ডেভিড বার্গম্যানের বিরুদ্ধে ব্লগে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল সংশ্লিষ্ট বিষয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করার মাধ্যমে আদালত অবমাননার অভিযোগের শুনানি শেষ হয়েছে। আগামী ১৭ এপ্রিল এ বিষয়ে আদেশ দানের দিন ধার্য করেছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২।

সোমবার ডেভিড বার্গম্যানের পক্ষে শুনানি করেন তার আইনজীবী ব্যারিস্টার মোস্তাফিজুর রহমান খান। বাদী হাইকোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদের পক্ষে শুনানি করেন তার আইনজীবী অ্যাডভোকেট সাঈদ মিজান। শুনানি শেষে ১৭ এপ্রিল আদেশ দানের দিন ধার্য করেন চেয়ারম্যান বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বে ৩ সদস্যের ট্রাইব্যুনাল।

শুনানিতে বার্গম্যানের আইনজীবী মোস্তাফিজুর রহমান খান বলেন, বার্গম্যান ব্লগে ট্রাইব্যুনালের কোনো মামলা বা বিচারিক বিষয় নিয়ে আপত্তিকর, বিতর্কিত  কিছু লেখেননি। বরং তার লেখায় গঠনমূলক সমালোচনা উঠে এসেছে, যা ট্রাইব্যুনালের জন্য সহায়ক হতে পারে।
 
এ সময় ট্রাইব্যুনাল এ আইনজীবীকে প্রশ্ন করেন, মুক্তিযুদ্ধে কতো লোক শহীদ হয়েছেন সেটা ঐতিহাসিকভাবে স্বীকৃত একটি বিষয়। এ বিষয়ে বিতর্ক তৈরির করার কি আছে? তার মানে এই নয় যে, এ বিষয়টি নিয়ে গবেষণা বা সমালোচনা হবে না। সমালোচনা হতেই পারে। কিন্তু সমালোচনার উদ্দেশ্য এবং ধরন নিয়ে প্রশ্ন থাকে।  
 
জবাবে মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, বার্গম্যান বলেননি যে, একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে শহীদের সংখ্যা ৩০ লাখের কম বা বেশি। তিনি কেবল বলেছেন, ট্রাইব্যুনাল তার রায়ে যে  ৩০ লাখ শহীদের উল্লেখ করেছেন কোনো সূত্র উল্লেখ না করে। তাছাড়া মুক্তিযুদ্ধে শহীদের প্রকৃত সংখ্যা নিয়ে বিতর্ক আছে। এ বিষয়ে তিনি বিভিন্ন সূত্র উল্লেখ করেছেন।
 
মোস্তাফিজুর রহমান আরো বলেন, মেনে নিলাম শহীদের সংখ্যা নিয়ে বার্গম্যানের সমালোচনা আমাদের জাতীয় আবেগকে আঘাত করে। কিন্তু তাতে কি তার বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগ আনা যায়? তিনি কি আদালতের বিচারাধীন বিষয় নিয়ে মন্তব্য করেছেন? বার্গম্যান গঠনমূলক সমালোচনা করেছেন। সুতরাং এটা আদালত অবমাননা হতে পারে না।
 
শুনানিতে আবেদনকারী আবুল কালাম আজাদের আইনজীবী মিজান সাঈদ বলেন, বার্গম্যান অভ্যাসগতভাবে একজন আদালত অবমাননাকারী। এর আগেও তার বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগ উঠেছে। আদালত তাকে সতর্কও করেছেন।
 
তিনি বলেন, তার এসব সমালোচনা ট্রাইব্যুনালের মর্যাদাকে ক্ষুন্ন করার পাশাপাশি জনমনে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করবে। তাই বার্গম্যানের ব্লগে প্রকাশিত লেখায় সমালোচনা কোনোভাবেই গঠনমূলক হতে পারে না।    
 
ট্রাইব্যুনাল আবেদনকারীর আইনজীবী মিজান সাঈদকে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে বললে তিনি বলেন, ট্রাইব্যুনাল আইনের ১১(৪) ধারায় এ বিষয়ে উল্লেখ রয়েছে। তারপরও আপনারা যদি মনে করেন, এতে আদালত অবমাননা হয় তবে আদেশ দেবেন। আর মনে না করলে যা ভালো হয় সেটাই করবেন।

ডেভিড বার্গম্যানের বিরুদ্ধে হাইকোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদের দায়ের করা আদালত অবমাননার অভিযোগের শুনানি শেষে গত ২০ ফেব্রুয়ারি ৬ মার্চ হাজির হয়ে তার মন্তব্যের ব্যাখ্যা দিতে বার্গম্যানকে তলব করেছিলেন ট্রাইব্যুনাল।  তাকে সশরীরে উপস্থিত হয়ে অথবা আইনজীবীর মাধ্যমে তার মন্তব্যের ব্যাখ্যা দিতে বলেছিলেন ট্রাইব্যুনাল। ওই দিন বার্গম্যানের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মোস্তাফিজুর রহমান খান দুই সপ্তাহের সময়ের আবেদন জানালে ১৮ মার্চ দিন ধার্য করেছিলেন ট্রাইব্যুনাল।

গত ১৮ মার্চ  ডেভিড বার্গম্যান ট্রাইব্যুনালে হাজির হয়ে শো’কজ নোটিশের জবাব দেন। আইনজীবীর মাধ্যমে লিখিত জবাব দেন ডেভিড বার্গম্যান। তার পক্ষে তার আইনজীবী ব্যারিস্টার মোস্তাফিজুর রহমান খান ট্রাইব্যুনালে নোটিশের লিখিত জবাব দেন।

ব্রিটিশ সাংবাদিক ডেভিড বার্গম্যান বর্তমানে ইংরেজি দৈনিক দ্য নিউএজের বিশেষ প্রতিনিধি। তিনি সংবিধান প্রণেতা ড. কামাল হোসেনের মেয়ের জামাতা।  

১৮ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ ট্রাইব্যুনালের রেজিস্ট্রারের দফতরে ডেভিড বার্গম্যানের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগের আবেদনটি জমা দেন। আবেদনকারী আইনজীবী ট্রাইব্যুনালের বিচার প্রক্রিয়া এবং রায় সম্পর্কে ব্লগে মন্তব্য করায় কেন বার্গম্যানের  বিরুদ্ধে কারণ দর্শানোর (শো’কজ) নোটিশ জারি করা হবে না তা জানতে চাওয়ারও আবেদন করেন।
 
আবেদনকারী আইনজীবী আবেদনে বলেন, সাংবাদিক ডেভিড বার্গম্যান তার নিজস্ব ওয়েবসাইটে (bangladeshwarcrimes.blogspot.com)  আজাদ জাজমেন্ট অ্যানালাইসিস-১; ইন অ্যাবসেন্সিয়া ট্রায়াল অ্যান্ড ডিফেন্স ইনডিকোয়েন্সি এবং আজাদ জাজমেন্ট অ্যানালাইসিস-২; ট্রাইব্যুনাল অ্যাজাম্পশন শীর্ষক বিতর্কিত লেখা প্রকাশ করেন।
 
এসব লেখায় ট্রাইব্যুনালে মানবতাবিরোধী অপরাধে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক আবুল কালাম আজাদ ওরফে বাচ্চু রাজাকারের রায় নিয়ে করা মন্তব্যে ট্রাইব্যুনালের মর্যাদাহানি হয়েছে বলে আবেদনে অভিযোগ করা হয়েছে। ওই আইনজীবী তার আবেদনে ডেভিড বার্গম্যানের ব্লগে অপর ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর রায় নিয়ে করা মন্তব্যেও আদালত অবমাননা হয়েছে বলে উল্লেখ করেছেন।
 
২০১০ সালে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল গঠিত হওয়ার আগে থেকেই এই ব্রিটিশ সাংবাদিক বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ ও যুদ্ধাপরাধ বিষয়ে কাজ শুরু করেন। একই সঙ্গে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার নিয়ে গবেষণা, বিভিন্ন লেখালেখি ও কয়েকটি ভিডিও ডকুমেন্টারি তৈরি করেছেন ডেভিড বার্গম্যান।
 
ব্লগে ট্রাইব্যুনাল এবং ট্রাইব্যুনালের রায় নিয়ে বিতর্কিত লেখা ছাড়াও বিভিন্ন মহলে তার বিরুদ্ধে  জামায়াতের পেইড এজেন্ট হিসেবে কাজ কারার অভিযোগ রয়েছে। ২০১১ সালে আদালত অবমাননার অভিযোগের পর ভারতের তেহেলকাডটকমের কাছে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে নিজের জামায়াত সংশ্লিষ্টতার বিষয়টি অস্বীকার এবং বিষয়টি দুঃখজনক বলে মন্তব্য করেছিলেন তিনি।

ট্রাইব্যুনাল সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, ডেভিড বার্গম্যানের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার বিষয়ে এ আবেদনের আগেও একবার তাকে সতর্ক করেছিলেন ট্রাইব্যুনাল।
 
২০১১ সালের ২ অক্টোবর জামায়াতের নায়েবে আমির দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধকালীন মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযোগ গঠন বিষয়ে ইংরেজি দৈনিক  দ্য নিউএজের সম্পাদকীয় পাতায় বার্গম্যানের ‘আ ক্রুশিয়াল পিরিয়ড ফর আইসিটি’ শিরোনামে একটি লেখা প্রকাশিত হয়।
 
৩ অক্টোবর আদালত অবমাননার অভিযোগে প্রতিবেদক ডেভিড বার্গম্যান, নিউএজের সম্পাদক নুরুল কবির এবং প্রকাশক আ স ম শহীদুল্লাহ খানের বিরুদ্ধে এর কারণ দর্শাতে রুল জারি করেন। শুনানি শেষে ২০১২ সালের ১৯ ফেব্রুয়ারি ট্রাইব্যুনাল তার আদেশে প্রতিবেদক ডেভিড বার্গম্যানকে সর্বোচ্চ সতর্ক করেন।
 
সে সময় আদালত অবমাননা হয়েছে উল্লেখ করে ট্রাইব্যুনাল শুধুমাত্র ভাবমূর্তির বিবেচনায় সংশ্লিষ্টদের অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দেন।
 
বাংলাদেশ সময়: ১৩২৮ ঘণ্টা, মার্চ ৩১, ২০১৪

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2014-03-31 03:36:00