[x]
[x]
ঢাকা, সোমবার, ৮ মাঘ ১৪২৫, ২১ জানুয়ারি ২০১৯
bangla news

রাবিতে নানা আয়োজনে বিশ্বনাট্য দিবস উদযাপন

107 |
আপডেট: ২০১৪-০৩-২৭ ৬:৫৬:০০ এএম

‘যেখানেই আছে মানব সমাজের অস্তিত্ব সেখানেই ফুটে ওঠে অদম্য দৃশ্যকলাশিল্প ভাবনার প্রকাশ’ এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় নাট্যকলা বিভাগ উদযাপন করলো বিশ্ব নাট্যদিবস।

রাবি: ‘যেখানেই আছে মানব সমাজের অস্তিত্ব সেখানেই ফুটে ওঠে অদম্য দৃশ্যকলাশিল্প ভাবনার প্রকাশ’ এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় নাট্যকলা বিভাগ উদযাপন করলো বিশ্ব নাট্যদিবস।

বৃহস্পতিবার সারাদিন নানা আয়োজনে পুরো ক্যাম্পাস মাতিয়ে রাখে এ বিভাগটি।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড.মিজানউদ্দিন কাগজের বিমান উঁড়িয়ে বিশ্বনাট্য দিবসের উদ্বোধন করেন ও শোভাযাত্রায় অংশ নেন। দিবসটি উপলক্ষে ভিন্ন আয়োজনে পুরো ক্যাম্পাস মাতিয়ে তোলে নাট্যকলা বিভাগ।

পুরো ক্যাম্পাস জুড়ে ৩টি নাটক প্রদর্শন করে তারা। এর মধ্যে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের নৃত্যনাটক চণ্ডালিকা, মুনীর চৌধুরীর মর্মান্তিক, দ্বিজেন্দ্রলাল রায়ের সাজাহান প্রদর্শন করে। এছাড়াও লাঠিখেলা ও মাইম (মুকাভিনয়) প্রদর্শন করে।

নাটকগুলো ক্যাম্পাসের গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোতে প্রদর্শিত হয়। প্রশাসন ভবনের সামনে বাংলার ঐতিহ্যবাহী লাঠিখেলা প্রদর্শন করে যার তারা, নির্দেশনা দেন বিভাগের শিক্ষক সুখন সরকার। কাজী নজরুল ইসলাম মিলনায়তনের সামনে চণ্ডালিকা নির্দেশনায় ল্যাডলী মোহন মৈত্র মিলন, লাইব্রেরির পেছনে আমচত্বরে মর্মান্তিক নির্দেশনায় আরিফ হায়দার, টুকিটাকি চত্বরে সাজাহান নির্দেশনায় ড. এসএম ফারুক হোসাইন।

ইসমাইল হোসেন শিরাজী ভবনের সামনে মাইম (মুকাভিনয়) উপস্থাপন করে। সব প্রদর্শনীতে অংশগ্রহণ করেন বিভাগের বিভিন্ন বর্ষের শিক্ষার্থীরা।

সন্ধ্যায় বিভাগের সামনে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের নিয়ে মুক্ত আড্ডার আয়োজন করেছে বিভাগটি। এখানে সবাই বাংলাদেশের বর্তমান সংস্কৃতি চর্চায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের নাট্যকলা বিভাগের অবস্থান নিয়ে মুক্ত আলোচনা করবে। এরপর নাচ, গান,আবৃত্তি ও ফানুস উঁড়িয়ে শেষ হবে দিনব্যাপী বিশ্বনাট্য দিবসের নানা আয়োজন।

এর আগে সকালে উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানের আগে দক্ষিণ আফ্রিকার নাট্যনির্দেশক ব্রে বেট্লীর দেওয়া বিশ্বনাট্য দিবসের বাণী-২০১৪ পড়ে শোনান বিভাগে শিক্ষক আরিফ হায়দার।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্যে উপাচার্য প্রফেসর ড.মিজানউদ্দিন বলেন, মানুষ শিল্প তৈরি এবং শিল্প মানুষ তৈরি করে। তিনি আরও বলেন, নাট্যকলা বিভাগ দেশের নাট্যচর্চায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে। শুধু দেশে নয়, দেশের বাইরেও বিভিন্ন প্রদর্শনীতে অংশ নিচ্ছে এ বিভাগটি। এই ধারা অব্যাহত রাখবে বলে আমি আশা ব্যক্ত করছি।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- বিশ্ববিদ্যালয় জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক ড. ইলিয়াছ হোসেন, ছাত্র উপদেষ্টা ড. সাদেকুল আরেফিন মাতিন, বিভাগের সভাপতি ড.অসিত রায়, বিভাগের শিক্ষক ড.শাহরিয়ার হোসেন, রহমান রাজু, মীর মেহবুব আলম, কৌশিক সরকার, আমিরুজ্জামান, সুমনা সরকার প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৪৬ ঘণ্টা, মার্চ ২৭, ২০১৪

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14