[x]
[x]
ঢাকা, সোমবার, ৬ ফাল্গুন ১৪২৫, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯
bangla news

ন্যায্য দাবি মেনে নেওয়ার আহ্বান গণফোরামের

86 |
আপডেট: ২০১৪-০৩-১২ ৮:৪৪:০০ এএম
ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

খালি মাঠ পেয়ে গোল দিয়েছেন। ক্ষমতায় আছে, থাকেন। ক্ষমতার ভাগ চাই না। তবে জনগণের ন্যায্য দাবি যদি মেনে না নেন, তাহলে কীভাবে মানাতে হয়, সে পদ্ধতি গণফোরাম জানে বলে সরকারের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন ঢাকা মহানগর গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান সাইদ।

ঢাকা: খালি মাঠ পেয়ে গোল দিয়েছেন। ক্ষমতায় আছে, থাকেন। ক্ষমতার ভাগ চাই না।  তবে জনগণের ন্যায্য দাবি যদি মেনে না নেন, তাহলে কীভাবে মানাতে হয়, সে পদ্ধতি গণফোরাম জানে বলে সরকারের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন ঢাকা মহানগর গণফোরামের  সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান সাইদ।

বুধবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ঢাকা মহানগর গণফোরাম আয়োজিত এক মানববন্ধনে তিনি এ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

‘জ্বালানি-তেল-বিদ্যুৎ-গ্যাস-পানির দাম বাড়ানো চলবে না এবং যানজট নিরসনে জরুরি পদক্ষেপ চাই’ শীর্ষক ব্যানারে সংগঠনটি মানববন্ধন করে।

সাইদুর রহমান বলেন, আমরা জনগণের জন্য রাজনীতি করি। তাই, জনগণের ভোগান্তির কথা বলি। আমাদের দাবি দুটি-কোনোভাবেই বিদ্যুতের দাম বাড়ানো যাবে না; যানজট নিরসনে দ্রুত পদক্ষেপ নিতে হবে।

তিনি বলেন, কিছুদিন আগে ঢাকার রাস্তায় এক গর্ভবতী নারী হাসপাতালে যাওয়ারর আগেই সন্তান প্রসব করেছেন। যানজটের কারণে তিনি হাসপাতাল পৌঁছাতে পারেননি। এটা পুরো জাতির জন্য অত্যন্ত লজ্জাজনক।

সরকারের প্রতি আবারও হুঁশিয়ারি দিয়ে সাইদুর রহমান বলেন, আগামীতে এ ধরনের ঘটনা আর একবার হলে গণফোরাম বসে থাকবে না। জনগণকে সঙ্গে নিয়ে দাবি আদায়ে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলবে।

গণফোরামের  ঢাকা মহানগরের এ নেতা বলেন, বিদ্যুতের দাম কোনোভাবেই বাড়ানো যাবে না। কারণ, অতিরিক্ত এই করের বোঝা জনগণের গলার ফাঁস হয়ে দাঁড়াবে। তাই, সরকারের প্রতি অনুরোধ, বিদ্যুতের চুরি বন্ধ করুন। তাহলে আর বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রয়োজন হবে না। 

তিনি বলেন, দয়া করে জনগণের ওপর জুলুম বন্ধ করুন। জনগণের ন্যায্য দাবি মেনে নিন। যদি আপনারা (সরকার) মেনে না নেন এবং সমস্যা সমাধানে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ না করেন, তাহলে গণফোরাম জনগণকে সঙ্গে নিয়ে দাবি আদায়ে বিক্ষোভ মিছিল ও অবরোধসহ কঠোর আন্দোলন গড়ে তুলবে।

এ সময় তিনি বস্তিবাসীদের পুনর্বাসনের জন্যও সরকারের কাছে দাবি জানান।

মানববন্ধনে  যানজট নিরসনে সংগঠনের দাবিগুলো তুলে ধরা হয়।

দাবিগুলো হচ্ছে- যেখানে সেখানে গাড়ি পার্কিং অবশ্যই বন্ধ করতে হবে; ট্রাফিক আইন কড়াকড়িভাবে পালনের ব্যবস্থা করতে হবে; গাজীপুর থেকে কমলাপুর প্রতি এক ঘণ্টা পর পর শাটল ট্রেন চালুসহ বন্ধ স্টেশন চালু এবং উত্তরা ও মগবাজার স্টেশন স্থাপন করতে হবে; কমলাপুর থেকে নারায়ণগঞ্জ শাটল ট্রেন চালুর ব্যবস্থা করতে হবে; ঢাকা শহরে সিটি সার্ভিস চালু করতে হবে এবং মিনিবাস বন্ধ করে দ্বিতল ও বড় বাস চালুর ব্যবস্থা করতে হবে; অতিরিক্ত সরকারি গাড়ি ব্যবহার রোধকল্পে নম্বর প্লেটের রং ভিন্ন করতে হবে; প্রাইভেটকারের সংখ্যা কমানো এবং রেন্ট-এ-কারের সংখ্যা বাড়ানোর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে; সহজ শর্তে ভাড়াটে সিএনজি অটোরিকশার ব্যবস্থা করতে হবে; যানজট নিরসনে দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনা গ্রহণকল্পে আরো বেশি পরিমাণ ফ্লাইওভার নির্মাণ এবং মেট্রো রেলের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।
 
ঢাকা মহানগর গণফোরাম সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান সাইদের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে আরো উপস্থিত ছিলেন, গণফোরাম কেন্দ্রীয় কমিটির দফতর সম্পাদক নওয়াব আলী, প্রচার সম্পাদক আইয়ুব খান ফারুক, ঢাকা মহানগর কমিটির সদস্য মোহাম্মদ মিজানুর রহমান, শ্যামপুর থানার আহ্বায়ক  মোহাম্মদ শাহজাহান ও বস্তিবাসীদের পক্ষে রাফেজা বেগম প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৩৭ ঘণ্টা, মার্চ ১২, ২০১৪

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache