ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ ফাল্গুন ১৪৩০, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২৩ শাবান ১৪৪৫

ফুটবল

শুক্রবার বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ সিঙ্গাপুর

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট স্পোর্টস | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৫ ঘণ্টা, নভেম্বর ৩০, ২০২৩
শুক্রবার বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ সিঙ্গাপুর

দুই মাস পর আর্ন্তজাতিক ম্যাচ খেলতে মাঠে নামছে বাংলাদেশ নারী ফুটবল দল। সর্বশেষ সেপ্টেম্বরে এশিয়ান গেমসে নেপালের বিপক্ষে মাঠে নেমেছিল বাংলাদেশের মেয়েরা।

ওই ম্যাচে হিমালয়ের দেশটির বিপক্ষে ১-১ গোলে ড্র করেছিল লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা।  

দীর্ঘ ৬০ দিনের বিরতির পর আবারো বল পায়ে ফিফা প্রীতি ম্যাচ খেলতে শুক্রবার মাঠে নামছে সাইফুল বারী টিটুর দল। এবার বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ সিঙ্গাপুর। কমলাপুরে বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়াম ম্যাচটি শুরু হবে বিকাল ৪ টায়।  

শক্তির বিচারে বাংলাদেশ আর সিঙ্গাপুরের পার্থক্য রয়েছে। ফিফা নারী ফুটবল র‌্যাংকিংয়ে বাংলাদেশের চেয়ে ১২ ধাপ এগিয়ে সিঙ্গাপুর। বাংলাদেশ যেখানে ১৪২, সিঙ্গাপুর সেখানে ১৩০। তবে ধারণা করা যাচ্ছে দুই দলের লড়াইটা কিছুটা প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হতে পারে।  

সিঙ্গাপুরের সঙ্গে এবারই প্রথম বাংলাদেশ মাঠে নামবে বিষয়টি এমন নয়। এর আগে ২০১৬ সালে একবারই সিঙ্গাপুরের সঙ্গে খেলেছিল বাংলাদেশ দল। সেবার তাদের কাছে ২-১ গোলে হেরেছিল লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। সেই সিঙ্গাপুর আবারো বাংলাদেশের মুখোমুখি।

মাঠে নামার আগে বুধবার এক সংবাদ সন্মোলনে বাংলাদেশের অধিনায়ক সাবিনা খাতুন বলেন, ‘সিঙ্গাপুরের বিপক্ষে ম্যাচ নিয়ে যেটা বলার আছে, সম্ভবত ২০১৬ সালে ওদের বিপক্ষে আমাদের একটা ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা ছিল। সেখানে সম্ভবত ২-১ গোলে আমরা ওদের কাছি হারি। অনেক বছর পর ওদের বিপক্ষে খেলতে যাচ্ছি, আগের চেয়ে আমাদের বর্তমান দল অবশ্যই অনেক ভারসাম্যপূর্ণ। টেকনিক্যাল, টেকটিক্যাল, ফিজিক্যাল সবদিকে উন্নতি হয়েছে। আশাকরি দর্শকেরা মাঠে আসবে, দুটি চ্যালেঞ্জিং ম্যাচ দেখবে। ’

গোল করলে মাঠের দর্শকরা খুশি হন এমনটা জানিয়ে সাবিনা আরো বলেন, ‘আমরা গোল করলে দর্শকরাই যেন সবচেয়ে বেশি খুশি হন। দেশের ফুটবলের মান যেন রাখতে পারি, উন্নতির ধারাবাহিকতা রাখতে পারি, দেশের মাটিতে খেলা, অবশ্যই লক্ষ্য থাকবে জয়ের। ’

সিঙ্গাপুর সর্ম্পকে বাংলাদেশের নারী ফুটবল দলের অধিনায়ক আরো বলেন, ‘আমি মনে করি সিঙ্গাপুরের বিপক্ষে ভালো ম্যাচ হবে। টিমের সবাই ভালো…কিন্তু আমি মনে করি, মারিয়া ও মনিকা যদি খেলা ধরতে পারে, তাহলে ফল বের করে আনার জন্য এটা দলের জন্য সবচেয়ে ইতিবাচক দিক। দুজনেই প্রতি আমাদের সবসময় বাড়তি আত্মবিশ্বাস থাকে, মাসুরা এখন অনেক সিনিয়র, অনেক দায়িত্ব নিয়ে খেলে। এখন আমাদের কেউ পজিশন ধরে খেলে না, যে কেউ যে কোনো পজিশনে খেলতে পারে। ’

বাংলাদেশ সময়: ২০১০ ঘণ্টা, নভেম্বর ৩০, ২০২৩
এআর/এএইচএস 
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।