ঢাকা, রবিবার, ২ আষাঢ় ১৪২৬, ১৬ জুন ২০১৯
bangla news

ফ্রান্স-ক্রোয়েশিয়া: অভিজ্ঞতা নাকি মানসিক শক্তির জয়!

ওয়ার্ল্ড কাপ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৭-১৫ ১২:৪৩:০৩ এএম
ফ্রান্স-ক্রোয়েশিয়া ফাইনাল। ছবি: সংগৃহীত

ফ্রান্স-ক্রোয়েশিয়া ফাইনাল। ছবি: সংগৃহীত

আর মাত্র কয়েক ঘণ্টা পরই বিশ্ব পাবে নতুন ফুটবল সেরা। এক মাস আগে শুরু হওয়া এই ফুটবলযজ্ঞের পর্দা নামবে রোববার (১৫ জুলাই)। ৩২টি দল নিয়ে শুরু হওয়া এই আয়োজনের বাকি আছে আর দুটি দেশ।

বিস্ময় জাগানো ক্রোয়েশিয়া আর ফ্রান্সের মধ্যে ফাইনাল দিয়েই শেষ হচ্ছে ‘দ্য গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ’র রাশিয়া আসর।

এ যেন এক বিস্ময়, এ এক অকল্পনীয় সাফল্য! ক্রোয়েশিয়ার প্রতিটি মানুষের বর্তমান মনের ভাবনা এমনটাই। ৪২ লাখ মানুষের দেশটি রোববার খেলতে নামবে জীবনের সর্বোচ্চ সাফল্যের খেলাটি। এটি শুধু একটি দল নয়! এর সঙ্গে জড়িয়ে আছে পুরো দেশের হৃদস্পন্দনও।

অন্যদিকে আছে ফ্রান্সের সম্মান আরো একটু বাড়িয়ে নেওয়ার সুযোগ। নিজেদের জার্সিতে আরো একটি তারকা বাড়িয়ে নেওয়ার এই সুযোগ কিছুতেই হাতছাড়া করবে না তারা। 

মস্কোর লুঝনিকি স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় রাত ৯টায় মুখোমুখি হবে ফ্রান্স-ক্রোয়েশিয়া। শিরোপা তুলে ধরতে পারলে ফরাশিরা ছুঁয়ে ফেলবে আর্জেন্টিনা, উরুগুয়েকে। কিন্তু তাদের এই স্বপ্নের পথে প্রধান বাঁধা তাদের ফাইনাল ভাগ্য।

২০০৬ বিশ্বকাপের ফাইনালে জিদানের সেই গুঁতো কাণ্ডের পর টাইব্রেকারে হেরে যেতে হয় ইতালির বিপক্ষে। ২০১৬-তে পর্তুগালের বিপক্ষে ইউরো ফাইনালে আবারও হার।

প্রথমবার ফাইনাল খেলা ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে ফেভারিট হিসেবে মাঠে নামলেও ফরাসিরা জানে ক্রোয়েশিয়া ঠিক কতটা কঠিন দল। পরিসংখ্যান হোক আর অভিজ্ঞতা, সবদিক থেকেই ক্রোয়েশিয়ার থেকে এগিয়ে ফ্রান্স।

তবে বিশ্বকাপ ফাইনালে যে সব সময় ফেভারিটরা জেতে না সেটা ফরাসিরা খুব ভালো করেই জানে।

১৯৯৮ বিশ্বকাপের ফাইনালে রোনাল্ডো-রিভালদোর ব্রাজিল ছিল ফেভারিট, কিন্তু জিদানরা সেদিন ৩-০ গোলে উড়িয়ে দেশকে প্রথমবার বিশ্বকাপ এনে দিয়েছিলেন।

২০০৬ বিশ্বকাপের এই ফ্রান্সই ছিলো ফেভারিট, কিন্তু ইতালির বিপক্ষে কান্না নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয়েছিল ফরাসিদের।

এই ফ্রান্সের বিপক্ষে মাঠে নামা ক্রোয়েশিয়ার সামনে আছে ইতিহাস লেখার হাতছানি। বিশ্বকাপের ইতিহাসে নবম দেশ হিসেব চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সুযোগ ক্রোয়েশিয়ার সামনে। ক্রোয়েশিয়া বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলবে, এখনো হয়তো অনেকের বিশ্বাস হবে না। কিন্তু তারা করে দেখিয়েছ। এখান থেকে শিরোপা তুলে ধরলেও অবিশ্বাসের কিছু থাকবে না।

রাশিয়া বিশ্বকাপের আগে ক্রোয়েটরা ছিল ফিফা র‌্যাংকিংয়ের ২০ নম্বরে। র‌্যাংকিংয়ের এত পিছনে থেকে এর আগে কোনো দেশ কখনো বিশ্বকাপের ফাইনালে খেলেনি। ১৯৯৮ সালের বিশ্বকাপে প্রথমবার অংশ নিয়ে তৃতীয় হওয়া দেশটি সেবার যে বিস্ময় জাগিয়ে গিয়েছিলো ফুটবল ভক্তদের মনে সেই বিস্ময়ই যেনো আরও কয়েকধাপ বাড়িয়ে দেওয়ার দায়িত্ব নিয়েই রাশিয়া বিশ্বকাপ শুরু করে ক্রোয়েটরা।

সব মিলিয়ে এখন পর্যন্ত দুই দলের দেখা হয়েছে পাঁচবার। একবারও ফ্রান্সকে হারাতে পারেনি ক্রোয়েশিয়া। পাঁচ ম্যাচে ফরাসিদের তিন জয়ের সঙ্গে আছে দুটি ড্র। তবুও বিস্ময় জাগানো ক্রোয়েশিয়া আবারো বিস্ময় জাগাতে পারবে কি-না তা দেখতে অপেক্ষা করতে হবে আরো কয়েক ঘণ্টা।

বাংলাদেশ সময়: ১০৪২ ঘণ্টা, জুলাই ১৫, ২০১৮

এমকেএম/এমএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   ফিফা বিশ্বকাপ ২০১৮
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

ফিফা বিশ্বকাপ ২০১৮ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
cache_14 2018-07-15 00:43:03