ঢাকা, সোমবার, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ২৩ রবিউস সানি ১৪৪৩

ফিচার

সোনালি আঁশেই জীবিকা তাদের

শোয়েব মিথুন, সিনিয়র ফটো করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮৪৪ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২১
সোনালি আঁশেই জীবিকা তাদের বাজারে পাট নিয়ে আসছেন এক কৃষক।

এক সময়ের সোনালি আঁশ হিসেবে পরিচিত পাট তার জৌলুশ হারিয়েছে। বর্ষাকালীন এই ফসলের প্রধান উৎপাদনকারী দেশ ছিল বাংলাদেশ।

তবে এখনও নতুন করে পাটের ব্যবহার বাড়ানোর চেষ্টা করছেন বিজ্ঞানীরা। ফলে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে অনেক কৃষক তাদের ফসলের তালিকায় রেখেছেন পাটকে।

সাধারণত দুই ধরনের পাট দেখা যায়। সাদা পাট ও তোষা পাট। এর জীবনকাল ১০০/১২০ দিন পর্যন্ত হয়ে থাকে। চৈত্র-বৈশাখ মাসে রোপণ ও শ্রাবণ-ভাদ্র মাসে ফলন হয়। পাট চাষে এখনও পর্যন্ত রাসায়নিক কীটনাশকের প্রয়োজন হয় না। পাটের সবই কাজে লাগলেও তার আঁশই প্রধান কাঁচামাল।

পাটের আঁশ নরম উজ্জ্বল চকচকে এবং এক থেকে চার মিটার পর্যন্ত লম্বা হয়। ইতিহাস পাট চাষে পূর্ব বাংলা তথা আজকের বাংলাদেশের সুখ্যাতির কথা জানালেও এখনও এদেশের পাটচাষি এবং পাটকল শ্রমিকদের ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটেনি।

ঢাকার পাশের জেলা মুন্সীগঞ্জের দীঘিরপাড় বাজারে নিয়মিত বসে পাটের হাট। ওই হাট থেকে সোনালি আঁশ বেচাকেনার ছবি তুলেছেন বাংলানিউজের সিনিয়র ফটো করেসপন্ডেন্ট শোয়েব মিথুন।

 

 নৌকায় পাট তুলছেন কৃষকরা।

 

পাটের বোঝা ওপরে তোলা হচ্ছে।

 

বাজারে চলছে পাটের বেচাকেনা।

 

স্থানীয় ব্যবসায়ীরা কিনছেন পাট।

 

 পাটের বোঝার কারণে এক কিশোরকে দেখাই যাচ্ছে না।

 

বাংলাদেশ সময়: ১৮৪৪ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২১
এনএসআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa