ঢাকা, সোমবার, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ২৩ রবিউস সানি ১৪৪৩

পরিবেশ ও জীববৈচিত্র্য

পিরোজপুরে পুকুরে পাওয়া ‘টারপোন’ মাছটি বঙ্গোপসাগরের

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৪২ ঘণ্টা, মে ২২, ২০২১
পিরোজপুরে পুকুরে পাওয়া ‘টারপোন’ মাছটি বঙ্গোপসাগরের

পিরোজপুর: পিরোজপুরে পুকুরে পাওয়া ‘টারপোন’ মাছটির তথ্য নিয়ে জেলা মৎস্য অফিস ও উপজেলা মৎস্য অফিস ব্যাপক অনুসন্ধান চালিয়েছেন। বাংলানিউজে ‘পুকুরে আটলান্টিক মহাসাগরের ‘টারপোন’ মাছ শীর্ষক একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়।

 

সংবাদটি নিয়ে জেলা মৎস্য অফিস ও উপজেলা মৎস্য অফিসের সঙ্গে কথা হয়। তারা এ বিষয়ে খবর পেয়ে শনিবার (২২ মে) ওই মৎস্য চাষির বাড়িতে যান এবং তারা মাছের খোঁজ-খবর নেন।

পিরোজপুর সদর উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা জেরিন সুলতানা বাংলানিউজকে জানান, শনিবার (২২ মে) ওই মৎস্য চাষির বাড়িতে উপজেলা সহকারী মৎস্য কর্মকর্তা গোলাম মোস্তফাকে পাঠানো হয়েছিল। তিনি ওই চাষির পুকুর ও তার সার্বিক অবস্থা পরিদর্শন করেছেন। সেখানের মাটি ও পানি সংগ্রহ করা হয়েছে।  

তিনি আরো জানান, তার (চাষি) দেওয়া তথ্যমতে ধারণা করা হচ্ছে ওই পুকুরে চাষের জন্য ছাড়া মাছের পোনার সঙ্গে বঙ্গোপসাগর থেকে আসা মাছের পোনা ছিলো। আর সেই পোনার সঙ্গে ওই মাছের পোনা আসতে পারে। এটি দেখতে টারপোন মাছের মতো হলেও তবে এটি টারপোন মাছ নাও হতে পারে।

তিনি আরো জানান, `Clupeadae’  গোত্রের মাছ। এ গোত্রের মাছ লবনাক্ত পানিতে থাকে। ডিম ছাড়ার সময় হলে মোহনাতে ব্রাকিস ওয়াটারে আসে। অর্থাৎ যেখানে সাধু ও লবনাক্ত পাওয়া যায় এমন পানিতে আসে। একটু বড় হলে তাদের পরিবেশে অর্থাৎ সাগরে ফিরে যায়।

>>>পুকুরে আটলান্টিক মহাসাগরের ‘টারপোন’ মাছ

সরেজমিন পরিদর্শন করা উপজেলা সহকারী মৎস্য কর্মকর্তা গোলাম মোস্তফা জানান, ওই চাষি যে খামারির কাছ থেকে মাছের পোনা সংগ্রহ করেছেন তারা হয়তো বঙ্গোপসাগর থেকে মাছের পোনা সংগ্রহ করেছেন। আর সংগ্রহ করা ওই মাছের পোনার সঙ্গে মিলে ওই মাছের পোনা আসতে পারে। পুকুরের পারিবেশ ও মাটির কারণে মাছটি বেঁচে থেকে বড়ো হয়েছে। তবে এটি ‘টারপোন’ মাছ হতে পারে।

জানা যায়, শুক্রবার (২১ মে) মাছটি পাওয়া যায় পৌর শহরের শিকারপুর এলাকার তানভীর আহম্মেদের পুকুরে। তিনি বাংলাদেশ প্রতিদিনের পিরোজপুর জেলা প্রতিনিধি ও পিরোজপুর প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক।

তানভীর আহম্মেদ জানান, তার বাবা গত দু’বছর আগে পুকুরে চাষের উদ্দেশ্যে কিছু মাছ ছাড়েন। শুক্রবার (২১ মে) সকালে তার বড় ভাই (স্ত্রী’র ভাই) আজাদ হোসেন জাল দিয়ে পুকুরে মাছ ধরতে গিয়ে তার জালে তা  ধরা পড়ে। অন্য মাছ ধরার পরে অনেক সময় বেঁচে থাকলেও এ মাছটি উপরে ওঠার সামান্য কিছু সময়ের মধ্যে মারা যায়। মাছটির ওজন হয়েছে এক কেজি ১০০ গ্রাম।

পরিবারের সদস্যরা ওই দিন দুপুরে মাছটি রান্না করে কিছু অংশ খান। পরে মাছটির মাথা ও লেজে সহ কিছু অংশ রেখে দেন। মাছটি দেখতে অনেকটা ইলিশ মাছের মতো হলেও এর মুখ ও সামনের অংশ সম্পূর্ণ আলাদা।

জেলা মৎস্য কর্মকর্তা (ডিএফও) আব্দুল বারী বাংলানিউজকে বলেন, মাছটি আটলান্টিক মহাসাগর থেকে কোনোভাবে বঙ্গপসাগরে আসতে পারে। আর সে থেকে মাছের পোনা সংগ্রহ কালে তা অন্য মাছের পোনার সঙ্গে পুকুরে আসতে পারে। ‘টারপোন’ মাছ দু’ধরনের রয়েছে। এর একটি আটলান্টিক মহাসাগরের আর অন্যটি ইন্দো প্যাসেফিক টারপোন। ইন্দো প্যাসেফিক টারপোন বঙ্গপসাগরে হয়ে থাকে।

জানা যায়, টারপোন আকৃতির মধ্যে নানচিল কোরাল, Indo-pacific tarpon, Megalops cyprinoides মাছ রয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ২০২৪ ঘণ্টা, মে ২২, ২০২১
এনটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa