ঢাকা, সোমবার, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৬ মে ২০২২, ১৪ শাওয়াল ১৪৪৩

পরিবেশ ও জীববৈচিত্র্য

নীলফামারীতে কালবৈশাখীর প্রথম ছোবল, ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১০১৪ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৫, ২০২০
নীলফামারীতে কালবৈশাখীর প্রথম ছোবল, ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি মেঘ। ছবি: বাংলানিউজ

নীলফামারী: নীলফামারী জেলায় কালবৈশাখী প্রথম ছোবলে বিভিন্ন ফসলসহ ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি সাধিত হয়েছে। এতে করে করোনা দুর্যোগে থাকা মানুষজন আরেকটি বিপদের মুখে পড়েছে।

বুধবার (১৫ এপ্রিল) সকাল ৮টা ৫০ মিনিটে ওই কালবৈশাখী ঝড় আঘাত হানে।

প্রথমে কালো মেঘে আকাশ ছেয়ে যায়।

তারপর শুরু হয় শুকনো ঝড়। এরপর বৃষ্টিসহ ঝড় প্রায় ঘণ্টা স্থায়ী হয়। এতে করে ইরি-বোরোক্ষেত, পটল, করলা, শাক-সবজির ব্যাপক ক্ষতি হয়। ঝড়ে পড়েছে আম। কোনো কোনো স্থানে ঝড়ে গাছ উপড়ে পড়ে। এ সময় বিদ্যুৎসংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। মেঘ। নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার খাতামধুপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জুয়েল চৌধুরী জানান, বৈশাখী ঝড়ে তার ইউনিয়নে ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়েছে। কাঁচা ঘরবাড়িও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ঝড়ে তার ইউনিয়নে ১৫ কিলোমিটারজুড়ে সৃজিত বাগানের অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে।

তিনি বলেন, করোনার কারণে মানুষ এমনিতে গৃহবন্দি হয়ে খাদ্য সংকটে পড়েছেন। তার উপর এই ঝড় মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা হয়েছে।

নীলফামারী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মহসিন রেজা রূপম জানান, আকস্মিক বৈশাখী ঝড়ে ফসলের ক্ষতি হয়েছে। মাঠ পর্যায়ের কৃষি বিভাগের কর্মকর্তারা ক্ষয়ক্ষতি নিরুপণ করছেন।  

বাংলাদেশ সময়: ১০১১ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৫, ২০২০
এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa