ঢাকা, বুধবার, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ০৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

পরিবেশ ও জীববৈচিত্র্য

বাঘের ৩ বাচ্চা ডুলাহাজরা সাফারি পার্কে অবমুক্ত করার সিদ্ধান্ত

আল মাসুদ নয়ন, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২১২ ঘণ্টা, জুন ১৩, ২০১২
বাঘের ৩ বাচ্চা ডুলাহাজরা সাফারি পার্কে অবমুক্ত করার সিদ্ধান্ত

ঢাকা: রাজধানীর শ্যামলী থেকে উদ্ধারকৃত বাঘের ৩ বাচ্চাকে হাতিলপুলের ‘প্লাটিনাম জিম’ নামের প্রাইভেট চিড়িয়াখানা থেকে চট্টগ্রামের ডুলাহাজরা সাফারি পার্কে অবমুক্ত করার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

তবে বাঘের ৩ বাচ্চাকে আপাতত বোটানিক্যাল গার্ডেনকে উপযোগী করে সেখানেই রাখা হবে।

   

বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে ৫ সদস্যবিশিষ্ট প্রাণি বিশেষজ্ঞ কমিটি বাঘের বাচ্চা ৩টিকে সাফারি পার্কে অবমুক্ত করার সিদ্ধান্ত নেন। একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র বাংলানিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সূত্র জানায়, ঢাকা চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ বাঘের বাচ্চাগুলোকে চিড়িয়াখানায় রাখার অপারগতা প্রকাশ করায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। উদ্ধারকৃত বাঘের বাচ্চাগুলো পরিবহনের উপযোগী হলেই তাদের সাফারি পার্কে পাঠানো হবে।  

প্রাণি বিশেষজ্ঞ কমিটির সদস্য হলেন- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক ও ওয়াইল্ড লাইফ ট্রাস্ট অব বাংলাদেশের চেয়ারম্যান  ড. আনোয়ারুল ইসলাম, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক (বাঘের ওপর পিএইচডি) ড. এম মনিরুল এইচ খান, সুন্দরবন বিশেষজ্ঞ এবং প্রাণিবিজ্ঞানী ড. আনিসুজ্জামান খান, ঢাকা চিড়িয়াখানার কিউরেটর এবিএম শহীদুল্লাহ এবং প্রাক্তণ প্রধান বনরক্ষক ও আইইউসিএন’র কান্ট্রি ডিরেক্টর ইশতিয়াক উদ্দিন আহমেদ।

উল্লেখ্য, সোমবার বেলা ১২টার দিকে রাজধানীর শ্যামলীর দুই নম্বর সড়কের ১৩/১২ নম্বর বাসায় অভিযান চালিয়ে র‌্যাব২-এর সদস্যরা বাঘের বচ্চাগুলোকে উদ্ধার করে।

বাঘের বাচ্চাগুলো পাচারের অভিযোগে জাহানারা বেগম (৪৭) এবং তার ছেলে জাকির হোসেনকে (২০) গ্রেফতার করা হয়। তাদের প্রত্যেককে দুই বছর করে বিনাশ্রম কারাদন্ড দেন র‌্যাবের নির্বাহী হাকিম এ এইচ এম আনোয়ার পাশা।  

এ সময় আনোয়ার পাশা বলেন, ‘বন্যপ্রাণি সংরক্ষণ আইন অনুযায়ী তাদের শাস্তি দেওয়া হয়েছে। তবে মূল হোতা আব্দুল কাদেরকে ধরা যায়নি। কাদেরের নামে বাঘ ও বন্যপ্রানি পাচারের অভিযোগে দেশের একাধিক থানায় মামলা রয়েছে। এর আগেও তাকে ধরার জন্য সাতক্ষীরায় অভিযান চালিয়েছিল পুলিশ। ‘

এরপর বন বিভাগের সার্বিক তত্ত্বাবধানে বাঘের বাচ্চাগুলোকে রাজধানীর এলিফ্যান্ট রোডের ২২/২, হাতিরপুলে অবস্থিত ‘প্লাটিনাম জিম’ প্রাইভেট চিড়িয়াখানায় র‌্যাব সদস্যদের পাহারায় রাখা হয়।

র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এএইচএম আনোয়ার পাশার নির্দেশে বাচ্চাগুলোকে প্রাণি চিকিৎসকদের সার্বক্ষণিক রক্ষণাবেক্ষনে প্লাটিনাম জিমে রাখা হয়।

বাংলাদেশ সময় : ২২০৩  ঘণ্টা, জুন  ১৩, ২০১২
এএমএন, সম্পাদনা : সুকুমার সরকার, কো-অর্ডিনেশন এডিটর
[email protected]

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa