ঢাকা, সোমবার, ৯ কার্তিক ১৪২৮, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

বিনোদন

বর্ণিল জীবনে যে আফসোস বলিউড ‘শাহেনশাহ’র

বিনোদন ডেস্ক  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫৩৬ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২১
বর্ণিল জীবনে যে আফসোস বলিউড ‘শাহেনশাহ’র কেবিসির মঞ্চে অমিতাভ বচ্চন

অমিতাভ বচ্চন, যাকে বলা হয় বলিউডের সিনেমার সর্বকালের সেরা অভিনেতা। তার জনপ্রিয়তা এতটাই যে ভারতকে ছাড়িয়ে অভিনেতার খ্যাতি এখন বিশ্বময়।

মহাকাব্যিক জনপ্রিয়তা এবং দু’হাত ভরে অর্থ সবই পেয়েছেন। তবুও বলিউডের ‘শাহেনশাহ’খ্যাত এ অভিনেতার মনে রয়ে গেছে বিশাল এক শূন্যতা।  

বহু বছর ধরে বিষয়টি মনের মধ্যে জমিয়ে রেখেছিলেন এ তারকা। তবে এবার কৌন বনেগা ক্রোড়পতির (কেবিসি) মঞ্চে থেকে সেই আফসোসের কথাটি শেয়ার করলেন অমিতাভ বচ্চন।

কেবিসি’র প্রতিযোগী নম্রতা শাহয়ের সঙ্গে কথায় কথায় অমিতাভ বচ্চন তার জমিয়ে রাখা আফসোসের কথা জানিয়েছেন। এ অভিনেতা জানান, তার দুই সন্তান শ্বেতা বচ্চন এবং অভিষেক বচ্চন যখন ছোট ছিল তখন তাদের একেবারেই সময় দিতে পারেননি তিনি। ওই সময়ে ভারতের সব চেয়ে ব্যস্ত তারকা ছিলেন তিনি। সারাদিন শুটিংয়ে ব্যস্ত থাকার কারণে ইচ্ছে থাকা স্বত্বেও ছেলে-মেয়েকে সময় দিতে পারতেন না এ অভিনেতা।  

অমিতাভ বচ্চন বলেন, ‘ওই সময় প্রায় তিন শিফটে কাজ থাকত। যে কারণে খুব ভোরে বাসা থেকে বের হতাম যখন দুই সন্তানই ঘুমে থাকত। আবার কাজ শেষে ফিরতেও গভীর রাত হয়ে যেত। যখন বাসায় ফিরতাম ততক্ষণে ওরা (শ্বেতা এবং অভিষেক) খাবার খেয়ে ঘুমিয়ে পড়েছে। ’ 

এই অভিনেতা বিষয়টি নিয়ে আক্ষেপ করে আরও বলেন, ‘তখন ব্যাপারটি নিয়ে মনে মনে অনেক কষ্ট পেতাম। এই খারাপ লাগাটা এখনও আমাকে তাড়া করে বেড়ায়। বিষয়টি বহুদিন মনে জমা ছিল। আজ কথাগুলো বলতে পেরে নিজেকে অনেকটাই হালকা মনে হচ্ছে। ’ 

গল্প আড্ডার ফাঁকে অমিতাভ বচ্চন জানান, কর্মজীবনের শুরুতে কলকাতার একটি অফিসে চাকরি করতেন তিনি। কিন্তু তার মন ছিল অভিনয়ের দিকে। তাই সবকিছু ছেড়ে মুম্বাই পাড়ি জমিয়েছিলেন তিনি

বাংলাদেশ সময়: ১৫৩৭ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২১
এনএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa